ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

কোন উস্কানিতে পা দিবেন না : ইশরাক

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:২৪ পিএম

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন নিজেকে জনগণের প্রতিনিধি দাবি করে বলেছেন, ‘তার পক্ষে নগরবাসীকে একটি সুন্দর-মানবিক ও আধুনিক বাসযোগ্য ঢাকা উপহার দেয়া সম্ভব। যা সরকারের প্রতিনিধির পক্ষে সম্ভব নয়। কারণ সরকারের কাছে তাদের নানা দায়বদ্ধতা রয়েছে।’

শনিবার (২৫ জানুয়ারি) বংশাল থানাধীন রায়সাহেব বাজার মোড়ে সিটি নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর আগে এক পথসভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী এক সপ্তাহ বিএনপি কর্মী সমর্থক এবং ভোটারদের জন্য চূড়ান্ত পরীক্ষা উল্লেখ করে ইশরাক হোসেন বলেন, ধানের শীষের পক্ষে যে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে তার ফসল ঘরে তুলতে ১ ফেব্রæয়ারি আপনারা সকলে ভোট কেন্দ্রে যাবেন। কাউকে ভয় করবেন না। কোন উস্তানিতে পা দিবেন না। এ দেশটা কারো পারিবারিক সম্পত্তি নয়। এই দেশটার মালিক হলো জনগণ। আমিও আপনাদের সাথে মাঠে থাকবো। জনগণকে সাথে নিয়ে সকল স্বৈরাচারকে বিদায় করব।

পথসভা শেষে রায় সাহেবের মোড় থেকে ৩৬ নং ওয়ার্ডের বাগডাসা লেন সুইপার কলোনী, তাঁতীবাজার, কসাইটুলী হয়ে জিন্দাবাহার জামে মসজিদে আছরের নামাজ আদায় করেন ইশরাক হোসেনসহ বিএনপি নেতৃবৃন্দ।

এসময় দোকানপাট ও পথচারিদের হাতে লিফলেট বিতরণ এবং দোকানে দোকানে গিয়ে সালাম ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন ইশরাক হোসেন। এসময় বহুতল ভবনের ছাদে, বারান্দা ও ব্যালকনিতে দাড়িয়ে নারী-পুরুষ করতালি দিয়ে তাকে স্বাগত জানান। বিভিন্ন স্থানে নারী ভোটাররা বাড়ির ব্যালকনিতে দাড়িয়ে বৃষ্টির মত ফুলের পাপড়ি ছিটান ধানের শীষের প্রার্থীসহ গনসংযোগ বহরে।

গণসংযোগে অন্যদের মধ্যে যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা এস এম জিলানী, ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আবু তাহের, তাজ উদ্দিন আহমেদ, ইয়াকুব সরকার, শাহীদা মোরশেদ, যুবদল নেতা শরিফ হোসেনসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন।

আছরের নামাজ শেষে করে ৩৫ নং ওয়ার্ডে প্রচারণা ও গণসংযোগ করে বংশাল (বড় মসজিদ) জামে মসজিদে মাগরিবের নামাজ আদায় করে সন্ধ্যা সাতটায় ২৭ নং ওয়ার্ডের ঢাকেশ্বরী মন্দিরে সনাতন ধর্মাবলম্বিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে আজকের প্রচারণা শেষ করবেন ইশরাক হোসেন।

শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ১৯৯৬ সালে তত্ববধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে বেগম খালেদা জিয়া গণতন্ত্রকে নতুন মাত্রা দিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার বার বার গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিল করে রাষ্ট্রযন্ত্রকে দলীয়করণের মাধ্যমে ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করেছে।

ইশরাক বলেন, জনগণের কাছে তারা বারবার হার মেনেছে। এবারও হার মানবে। সিটি নির্বাচনে ধানের শীষকে বিজয়ী করে জনগণ আবার গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার একটি নতুন অধ্যায় সৃষ্টি করবে ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, সামনের এই কয়েকদির আমাদের জন চূড়ান্ত পরীক্ষা। গত ১৩ বছর ধরে আমরা যে ত্যাগ-তিতীক্ষা স্বীকার করে আসছি তার ফসল ঘরে তোলার সময় এসেছে। নির্বাচন পর্যন্ত আমরা মাঠে থাকবো, ভোট কেন্দ্র পাহারা দিব, যাতে করে ভোটাররা সুষ্ঠুভাবে তাদের ভোট কেন্দ্রে যেতে পারেন এবং নির্বিঘেœ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। যেখানে বাঁধা আসবে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সেখানে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

ঢাকার উন্নয়নে ব্যাপক পরিকল্পনা রয়েছে উল্লেখ করে সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার জ্যেষ্ঠ পুত্র ইশরাক হোসেন বলেন, এ সরকার কথায়-কথায় উন্নয়নের বুলি আওড়াচ্ছে। কিন্তু আমরা এখন পর্যন্ত সরকারের কাছ থেকে কোনো নির্দিষ্ট উন্নয়ন, নির্দিষ্ট কোনো সমস্যার সমাধান খুঁজে পাইনি। অন্যদিকে আমার বাবা সাদেক হোসেন খোকা মেয়র থাকা অবস্থায় বলতেন, ‘ঢাকা শহরের জন্য ১০০ বছরের একটা পরিকল্পনা দরকার।’ আমি তার পথ ধরেই এগুতে চাই। ভবিষ্যৎ দেশকে একটা উন্নত সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আর এটা বিএনপির নেতৃত্বেই সম্ভব।

পথসভায় বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গত এক সপ্তাহ নির্বাচন কমিশনকে আমরা অনেক অভিযোগ দিয়েছি। কিন্তু তাদের কাছ থেকে কোন প্রতিকার পাইনি। তবে তারা কি করল, না করল, এগুলো নিয়ে আমি এখন আর মাথা ঘামাচ্ছি না। শুধু তাদের অনুরোধ করতে চাই, সাংবিধানিকভাবে তাদের যে দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে সেটা সুষ্ঠুভাবে পালন করে জনগণকে ভোট দেয়ার সুযোগ করে দিবেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন