ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ফের রোহিঙ্গা হত্যা মিয়ানমারে

তাৎক্ষণিক ও নিঃশর্তভাবে আইসিজের আদেশ বাস্তবায়ন করুন : জাতিসংঘ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে গাম্বিয়ার দায়ের করা মামলায় গত বৃহস্পতিবার মিয়ানমারের বিরুদ্ধে চারটি অন্তর্বর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)। এতে রোহিঙ্গা হত্যা বন্ধের কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু ওই নির্দেশের মাত্র দু’দিনের মাথায় তা অমান্য করেছে মিয়ানমার। শনিবার কোনো ধরনের সংঘাত বা উসকানি ছাড়াই নিরীহ গ্রামবাসীর ওপর কামান হামলা চালিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। এতে দুই নারী নিহত এবং আরও অন্তত সাতজন আহত হয়েছে। গত সপ্তাহে মিয়ানমারকে রোহিঙ্গা হত্যা বন্ধসহ গণহত্যার প্রচেষ্টা বা ষড়যন্ত্র না করার জন্য দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশ দেয় আন্তর্জাতিক আদালত। ওই নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে যে, রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় কী ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, সে ব্যাপারে আন্তর্জাতিক আদালতের কাছে আগামী চার মাসের মধ্যে মিয়ানমারকে অবশ্যই প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে। প্রথম প্রতিবেদন দাখিলের পর প্রতি ছয় মাস পরপর একই ধরনের প্রতিবেদন আদালতের কাছে উপস্থাপন করতে হবে। গাম্বিয়া ওই প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে আদালতের কাছে প্রয়োজনীয় বিষয়ে আবেদন করতে পারবে। মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত সব ধরনের নির্যাতন-নিপীড়নের প্রমাণাদি সংরক্ষণ করতে হবে। অপরদিকে, মিয়ানমারকে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের (আইসিজে) অন্তর্বর্তী আদেশ বাস্তবায়নের তাগিদ দিয়েছে জাতিসংঘ। বৃহস্পতিবার আইসিজে নেপিদোকে রোহিঙ্গা গণহত্যায় অভিযুক্ত করে ওই জনগোষ্ঠীর সুরক্ষা নিশ্চিতে ৪টি অন্তর্বর্তী আদেশ জারি করেন। শুক্রবার জাতিসংঘের মানবাধিকার কার্যালয় থেকে দেওয়া বিবৃতিতে ‘তাৎক্ষণিক ও নিঃশর্তভাবে’ মিয়ানমারকে আদেশগুলো বাস্তবায়নের আহ্বান জানানো হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের সর্বোচ্চ বিচারালয় আইসিজের প্রেসিডেন্ট বিচারপতি আবদুল কাফি আহমেদ ইউসুফ রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা নিশ্চিতে চারটি অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ ঘোষণা করেন। এগুলো হলো- ০১. রোহিঙ্গাদের হত্যা, মানসিক ও শারীরিক নিপীড়ন ও ইচ্ছাকৃত আঘাত করা যাবে না। ০২. গণহত্যার আলামত নষ্ট করা যাবে না। ০৩. গণহত্যা কিংবা গণহত্যার প্রচেষ্টা বা ষড়যন্ত্র না করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশ। ০৪. মিয়ানমারকে অবশ্যই চার মাসের মধ্যে লিখিত জমা দিতে হবে, যেন তারা সেখানে পরিস্থিতি উন্নয়নে কী ব্যবস্থা নিয়েছে। শুক্রবার জাতিসংঘের মানবাধিকার হাইকমিশনারের মুখপাত্র লিজ থ্রোসেল এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘আইসিজের আদেশ ও জাতিসংঘ সনদের বাধ্যবাধকতা মেনে তাৎক্ষণিক ও নিঃশর্তভাবে পূর্ণাঙ্গ আদেশ বাস্তবায়ন করতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে মানবাধিকার কার্যলয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘ বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেসও উল্লেখ করেছেন, আদালতের ওই অন্তর্বর্তী আদেশগুলো আন্তর্জাতিক আইন মেনে দেওয়া হয়েছে। এজন্য ওই নির্দেশনা মানার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।’ প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর প‚র্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোগত সহিংসতা জোরদার করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। তারা রাখাইনে হত্যাকান্ড, সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ শুরু করলে জীবন বাঁচাতে নতুন করে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। এই নৃশংসতাকে ‘গণহত্যা’ আখ্যা দিয়ে ২০১৯ সালের ১১ নভেম্বর আইসিজেতে মামলা করে গাম্বিয়া। এরপরই ২৩ জানুয়ারি আদেশ দেয় আইসিজে। রয়টার্স, ইরাবতী, গালফ টুডে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
MD Aslam Miah Babul ২৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১:২৫ এএম says : 0
সামরিক পদক্ষেপ ছাড়া রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হবে না, এটা অনেক আগেই আমি বলেছি ।
Total Reply(0)
Md Nur Alam ২৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১:২৬ এএম says : 0
মায়েনমার কথিত আন্তর্জা তিক আদ্লত কে সবসময় বুড়ো আগুল দেখিয়ে আসছে কৈ তাদের বিরুদ্ধে কোন নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে না। এখন অন্যরা সবাই জানে মুসলমান মারলে কিছুই হয় না। তাই বিশ্ব জুরে মুসলমানদের হত্যার প্রতিযোগীতা চলছে।
Total Reply(0)
Abonty Rai ২৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১:২৬ এএম says : 0
পৃথিবীতে একটা জাতি যারা ৫২ টি মুসলিম দেশ থাকার পরও অমুসলিমরা মুসলিদের পিটিয়ে অথবা যে কোনো ভাবে মারলেও কোনো রকম বিচার বা কোনো কিছুর মুখোমুখি হতে হয় না, সেই অমুসলিম দেশের,, অথচ অমুসলিম একজন কে হত্যা করলেও তাকে বিভিন্ন কিছুর মুখোমুখি হতে হয়,,,এটার অবশ্যই কোনো কারন আছে,,,,
Total Reply(0)
নাসিম ২৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১:২৯ এএম says : 0
আইসিজের রায়কে বৃদ্ধাঙগুলী দেখিয়ে উলটো আবার হত্যা শুরু করলো।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন