ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

শক্তিশালী যুক্তরাষ্ট্রের ভিত্তি কাঁপিয়ে দিয়েছে ইরান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২০, ৪:৩৯ পিএম

সামরিক শক্তি, প্রযুক্তি ও এই খাতে ব্যয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ধারে কাছেও কোন দেশ নেই। সামরিক ক্ষেত্রে ‘অসম্ভব শক্তিশালী’ যুক্তরাষ্ট্রকেও চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলা যায় এটা আগে ধারণাও করা যায় নি। অথচ, মার্কিন ঘাঁটিতে ঘোষণা দিয়ে হামলা চালিয়ে সেই কাজটিই করেছে ইরান।

মধ্যপ্রাচ্যের গণমাধ্যম পর্যবেক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান মিডেল ইস্ট মনিটরের এক নিবন্ধে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র সব সময় মনে করে এসেছে তাদের ঘাঁটিতে হামলা চালানোর সাহস বা সক্ষমতা কারও নেই। এমন দম্ভ থেকে অনেক কিছুই করেছে মার্কিন প্রশাসন। কিন্তু তাদের সেই দম্ভ ভেঙে চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের অপেক্ষাকৃত ‘কম শক্তিশালী’ দেশ ইরান।

কাসেম সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে ৮ জানুয়ারি সবাইকে বিস্মিত করে সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে ইরাকে অবস্থিত মার্কিন ঘাঁটিতে হামলা চালায় ইরান। যুক্তরাষ্ট্রও হয়তো ভাবেনি, এমন ভয়াবহ হামলা চালাবে তেহরান। মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আমাদের কোনো সেনা হতাহত হয়নি। এমনকি ঘাঁটিরও খুব বেশি ক্ষতি হয়নি। ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় কোনো মার্কিন সেনা হতাহত না হওয়ায় ইরানের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না বলে জানায় ট্রাম্প প্রশাসন। একই সঙ্গে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে জানায়, ইরানের হামলায় কোনো মার্কিন সেনা হতাহত হলে তেহরানকে এর কঠোর জবাব দেওয়া হবে।

ইরানের হামলায় ট্রাম্পসহ অন্যরা তখন ক্ষতির বিষয়টি অস্বীকার করলেও ধীরে ধীরে সব সত্য বেরিয়ে আসছে। হামলার পরের সপ্তাহে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর (পেন্টাগন) স্বীকার করে, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ১১ সেনা আহত হয়েছে। তাদের মস্তিষ্কে ক্ষত সৃষ্টি হওয়ায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এরপর চলতি সপ্তাহে নতুন করে আরও ৩৪ জন আহতের কথা স্বীকার করে তারা।

এছাড়া বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা গেছে, ইরাকে অবস্থিত মার্কিন ঘাঁটির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তারপরও যুক্তরাষ্ট্র পুরো ঘটনাটি চেপে গিয়ে থেকেছে নীরব। এতেই স্পষ্ট যে, ইরানের সঙ্গে উত্তেজনা আরও বাড়িতে জটিল কোনো পরিস্থিতিতে পড়তে চায়নি মার্কিন কর্তৃপক্ষ। ফলে পুরো বিষয়টিই কৌশলে এড়িয়ে গেছে তারা। হামলার অনেক কিছু গোপন করলেও মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের দম্ভ যে চূর্ণ-বিচূর্ণ হয়েছে তা কোনোভাবেই গোপন করতে পারেনি মার্কিন প্রশাসন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (13)
** হতদরিদ্র দীনমজুর কহে ** ২৭ জানুয়ারি, ২০২০, ৫:২১ পিএম says : 1
মার্কিনিদের হাব ভাব এমন,মার খেয়েও বলছে বুঝো কেমন?
Total Reply(0)
মোঃ সাইফুল ইসলাম ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০৭ এএম says : 2
আসলে আমেরিকা চালাকি করছে যেভাবে আর তা হলো,ইরানকে ভবিষ্যতে সৌদির সাথে যুদ্ধেে জারানোর জন্য এবং ধংস করার জন্য জিয়ে রেখেছে।
Total Reply(0)
মোঃ সাইফুল ইসলাম ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০৮ এএম says : 2
আসলে আমেরিকা চালাকি করছে যেভাবে আর তা হলো,ইরানকে ভবিষ্যতে সৌদির সাথে যুদ্ধেে জারানোর জন্য এবং ধংস করার জন্য জিয়ে রেখেছে।
Total Reply(0)
মোঃ সাইফুল ইসলাম ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০৮ এএম says : 2
আসলে আমেরিকা চালাকি করছে যেভাবে আর তা হলো,ইরানকে ভবিষ্যতে সৌদির সাথে যুদ্ধেে জারানোর জন্য এবং ধংস করার জন্য জিয়ে রেখেছে।
Total Reply(0)
ইসমাইল ২৯ জানুয়ারি, ২০২০, ৮:৫২ পিএম says : 0
মুসলমানেরা ঐক্যবদ্ধ হলে কাফিরেরা পালানোর জাগায় পাবে না।
Total Reply(0)
MD:NAYAN MIA ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৭ পিএম says : 1
আমেরিকার যত শক্তিশালী হোক মুসলমানের এক্যবদ্ধ হলে কোন শক্তি টিকবে না দুনিয়াতে
Total Reply(0)
Md Ataullah ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৪৯ পিএম says : 1
আমি খুব খুসি আমেরিকা ধংস হোক
Total Reply(0)
Mizanur Rahman ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৩৯ পিএম says : 1
কখনো কাউকে দূর্বল ভাবা ঠিক না। সে টাই প্রমান করলো ইরান। অহংকার পতনের মূল। পিঠ যখন দেয়ালে ঠেকে যায় তখন অনেক উপায় বের হয় ইরান তার প্রমান দিলো।
Total Reply(0)
MD:NAYAN MIA ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:১৯ পিএম says : 1
আমেরিকার যত শক্তিশালী হোক মুসলমানের এক্যবদ্ধ হলে কোন শক্তি টিকবে না দুনিয়াতে
Total Reply(0)
Mohammad ayub ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ৮:২৫ এএম says : 1
ঈমানী শক্তিতে বলিয়ান হলে সবই যে সম্ভব ইরান সেটা প্রমান করেছে৷
Total Reply(0)
Md Mamun Ali ২৮ জানুয়ারি, ২০২০, ৯:৩৮ এএম says : 1
আমেরিকার রাজত্ব অনেকটা শেষ
Total Reply(0)
Dr.Noor Mohammad ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১০:৫৩ এএম says : 0
এক ইরানের হামলাতেই আমেরিকা দিশাহারা।মুসলিম সবাই এক হলে আমেরিকা পালানোর জায়গা পাবেনা।
Total Reply(0)
এম এম প্রিন্স ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:৫৮ এএম says : 0
ভাই দয়া করে চীন সরকারের কাছে আপনারা ম্যাসেজ পাঠান।তাদের করোনা ভাইরাস একমাত্র আল্লাহর পক্ষ থেকে গজব।মানবতা হচ্ছে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধর্ম।উইঘুর মুসলমান জাতিকে তারা যে বর্বরোচিত আঘাত করতেছে এটি তারই ফল।আল্লাহ জালিম কে মহামারী দিয়ে নিশ্চিহ্ন করেন। পৃথিবীর এবং এটি বলেন যে পৃথিবীর প্রত্যেক জাতি সবাই তাদের নিজ নিজ দেশে স্বাধীন ভাবে বাচার এবং নির্ভয়ে জীবন যাপন করার অধীকার রাখে। সে যে ধর্মেরই লোক হোক না কেন।যা আমাদের রহমাতুল-লিল-আলামিন ১৪০০ বছর আগে শিক্ষা দিয়েছেন।এবং ইসলামের বিধান সংখ্যা লঘু জাতিকে জান-মালের নিরাপত্তা দেওয়া দেশের সরকার প্রধানের দায়িত্ব এবং কর্তব্য।এবং জোর দিয়ে বলুন মানবতা হচ্ছে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধর্ম। উইঘুর নিরপরাধ মুসলিম নির্যাতন আজ বন্ধ করুন তোমরা করোনা ভাইরাস থেকে কাল মুক্তি পাবে। বিকল্প কেোন পথ চায়নার জন্য খোলা নেই
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন