ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ১৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

অচেতন বিএনপির চেতনা : করোনায় জনমত বুঝে স্থগিত চায় চসিক ভোট

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৯ মার্চ, ২০২০, ৯:৩১ এএম | আপডেট : ১:১৯ পিএম, ১৯ মার্চ, ২০২০

অবশেষে অচেতন বিএনপির চেতনা ফিরে এলো। দলটি মুখ খুললো। চট্টগ্রামবাসীর জনমত দেরিতে হলেও বুঝে নিয়ে স্বীকার করছে, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে। জনগণের মাঝে ভয়ভীতি আতঙ্ক রয়েছে। এরজন্য ২৯ মার্চের চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচন স্থগিত চায় মাঠের প্রধান বিরোধী দলটির চট্টগ্রামের নেতারা।
আজ বুধবার রাতে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও দলের চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনা করে চসিক ভোট স্থগিতের দাবি জানান।
তিনি বললেন, এ বিষয়ে বিএনপির হাইকমান্ডের সাথে কথা বলবেন। এরপরই আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) এটি চিঠির মাধ্যমে দাবিটি জানানো হবে।
ডা. শাহাদাত বলেন, করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে। এটি মহামারি আকার ধারণ করেছে। আজ বাংলাদেশে একজন মারা গেছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এমন অবস্থার মাঝে সাধারণ জনমনপ ভয়ভীতি কাজ করছে।
তার উপলব্ধি, এমনিতেই ভোটকেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি কম। করোনার কারণে তা আরও কমে আসতে পারে। আর ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণের কথা রয়েছে। ইভিএমে আক্রান্ত কোনো ব্যক্তি ভোট দিলে তার দ্বারা পরবর্তী ব্যক্তিও আক্রান্ত হতে পারেন। বিষয়টি নিয়ে সবার ভাবা উচিৎ। তিনি জানান যে, ভোট স্থগিতের জন্য
নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি।
স্থগিতের জোরালো দাবি মানবাধিকার কমিশনের
চট্টগ্রামবাসীকে করোনাভাইরাসের ‘মহাবিপদ’ থেকে সুরক্ষিত রাখতে অবিলম্বে চসিক নির্বাচন স্থগিত করার জোরালো দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সিনিয়র ডেপুটি গভর্নর আমিনুল হক বাবু। আজ রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ দাবি জানান।
তিনি বলেন, চলমান বিশ্ব মহাসংকটে নিপতিত করোনাভাইরাসের কারণে। বাংলাদেশও চরম ঝুঁকির মধ্যে। ইতিমধ্যে একজন বাংলাদেশি মৃত্যুবরণ করেছেন। কিছুসংখ্যক এ সংক্রামক রোগে আক্রান্ত। বাংলাদেশ সরকার করোনার বিস্তার ঠেকাতে ইতিমধ্যে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে। চট্টগ্রামের পতেঙ্গাসহ বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রও নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। বৈশ্বিক বিমান চলাচল সীমিত করা হয়েছে। করোনা ভাইরাসের ফলশ্রুতিতে চট্টগ্রাম অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল।
তিনি আরও বলেন, এ সংকট উত্তরণে জনসমাগম এড়ানো আবশ্যক। অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে ২৯ মার্চ অনুষ্ঠেয় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচন স্থগিত করার বিষয়ে জনমত প্রবল।
বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছে প্রার্থীরা শত কিংবা হাজারো লোকজন নিয়ে এখনো নির্বাচনী প্রচার কার্যক্রম চালাচ্ছে। সামাজিক ও গণমাধ্যমে যা দৃশ্যমান। এ ধরনের প্রচারণা চট্টগ্রামকে মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকির মুখে ফেলে দিচ্ছে। করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকে মুক্তি পেতে উন্নত বিশ্ব যেখানে হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে আমাদের অসচেতনতা কাম্য নয়। এ প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন কর্তৃক অদ্যাবধি সিটি নির্বাচন স্থগিত না করা অনভিপ্রেত ও দুঃখজনক।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন