ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

সোনালি আসর

প্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদ

প্রকাশের সময় : ১৮ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

আ ল ম শা ম স
বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক, স্বাধীনতা-পরবর্তী অন্যতম শ্রেষ্ঠ লেখক হুমায়ূন আহমেদ। তিনি একাধারে ঔপন্যাসিক, ছোট গল্পকার, নাট্যকার, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও গীতিকার। তার রচিত প্রথম সায়েন্স ফিকশন “তোমাদের জন্য ভালোবাসা’। তার নির্মিত চলচ্চিত্রসমূহ পেয়েছে অসামান্য দর্শকপ্রিয়তা। তবে তার টেলিভিশন নাটকগুলো ছিল সর্বাধিক জনপ্রিয়। সংখ্যায় বেশি না হলেও তার রচিত গানগুলোও সবিশেষ জনপ্রিয়তা লাভ করে।
হুমায়ূন আহমেদ ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দের ১৩ নভেম্বর ময়মনসিংহ জেলার অন্তর্গত নেত্রকোনা মহকুমার কেন্দুয়ার কুতুবপুরে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা শহিদ ফয়জুর রহমান আহমদ এবং মা আয়েশা ফয়েজ। তার পিতা একজন পুলিশ কর্মকর্তা ছিলেন এবং তিনি ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তৎকালীন পিরোজপুর মহকুমার এসডিপিও হিসেবে কর্তব্যরত অবস্থায় শহীদ হন।
তোমাদের প্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদের ডাক নাম ছিল কাজল। ছোটদের নিয়ে খুব ভাবতেন তিনি। আর তাই তো খুব সহজেই ছোটদের মনের মাঝে জায়গা করে নিতে পেরেছিলেন।
একদিনে হুমায়ূন আহমেদ তৈরি হননি। অনেক কষ্ট আর পরিশ্রম করে তিনি হুমায়ূন আহমেদ হয়ে উঠেছিলেন।
ছোটদের প্রিয় এই লেখক ছেলেবেলায় খুব দুরন্ত ছিলেন। একবার হুমায়ূন আহমেদের মেজো চাচা তাকে কিশোরীমোহন পাঠশালায় ভর্তি করিয়ে দেন এবং সেখানে তিনি প্রথম দিনেই হাতের কনুই দিয়ে মেরে একটি ছেলের সামনের দাঁত ভেঙে দিয়েছিলেন। কী সাংঘাতিক কথা, তাই না?
অবশ্য এর জন্য হেডমাস্টার সাহেব যতক্ষণ ক্লাস চলেছিল, ততক্ষণ তাকে কান ধরে দাঁড় করিয়ে রেখেছিলেন। আর ক্লাসের সবাইকে বলেছিলেন, সাবধান থাকবে, ও কিন্তু পুলিশের ছেলে। আর পুলিশের ছেলেরা গু-া হয়।
হুমায়ূন আহমেদ তখন ক্লাস সিক্সে পড়েন। পড়া বলতে না পারায় স্যার তার গলায় সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেন। আর তাতে লেখা ছিলÑ ‘আমি পড়া পারি নাই আমি গাধা’। এভাবে তাকে সারা স্কুল ঘুরতে বলা হলে তিনি গলা থেকে সাইনবোর্ড খুলে ফেলেন আর স্যারকে বলেন, “আপনি গাধা!”
তারপর এক দৌড়ে স্কুল থেকে পালিয়ে গেলেন। পরে অবশ্য ওই স্যারের কাছ থেকে মাফ চেয়ে নিয়েছিলেন।
হুমায়ূন আহমেদ শুধু দুষ্টুমি করতেন, তা শুধু নয়। তিনি কিন্তু অত্যন্ত মেধাবী ছিলেন। সব সময় ভালো রেজাল্ট করতেন। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি রসায়নে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। এরপরে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ডাকোটা ইউনিভার্সিটি থেকে পলিমার রসায়ন বিষয়ে গবেষণা করে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।
যার জন্য আজ তিনি ছোটদের কাছে খুব পরিচিত একটি নাম। ছোটদের জন্য লেখা তার বইগুলো হলোÑ নীল হাতি, তোমাদের জন্য রূপকথা, টগর এন্ড জেরি, তিনি ও সে, প্রিয় ভয়ংকর, পরীর মেয়ে মেঘবতী, কানি ডাইনি, কাক ও কাঠগোলাপ, জন্মদিনের উপহার, এই ছেলেটা, বোতল ভূত, পুতুল, সূর্যের দিন, ছোটদের সেরা গল্প, ছোটদের যত লেখা, ছোটদের জন্য এক ব্যাগ হুমায়ূন ইত্যাদি।
এবার তুলে ধরব হুমায়ূন আহমেদের বিভিন্ন শাখায় প্রথম কাজগুলো। তাঁর লেখা প্রথম উপন্যাস ছিল শঙ্খনীল কারাগার আর তার প্রথম প্রকাশিত উপন্যাসÑ নন্দিত নরকে (১৯৭৩)। প্রথম কল্পবিজ্ঞানের বইÑ তোমাদের জন্য ভালোবাসা (১৯৭৩)। প্রথম টিভি নাটকÑ এইসব দিনরাত্রি (১৯৮৪), প্রথম পরিচালিত চলচ্চিত্রÑ আগুনের পরশমণি (১৯৯৪)।
হুমায়ূন আহমেদ সবসময় প্রকৃতি ও ছোটদের ভালোবাসতেন। মিশে থাকতে চেয়েছিলেন ছোটদের মাঝে, প্রকৃতির মাঝে। আর তাই তিনি গাজীপুরে গড়েছিলেন নূহাশ পল্লী, যেখানে তিনি চিরনিন্দ্রায় শায়িত আছেন। আমাদের তোমাদের সবার প্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদ ১৯ জুলাই, ২০১২ ইন্তেকাল করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন