ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বাউফলে কলেজ ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা, মারাত্মক আহত ২

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ এপ্রিল, ২০২০, ১১:২৪ এএম

পটুয়াখালীর বাউফলের কালিশুরী ইউনিয়নের সিবপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রেদোয়ান (১৯) নামের এক কলেজ ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। কুপিয়ে জখম করা হয়েছে তার অপর দুই ছোট ভাই আবদুল্লাহ (১৬) ও ফয়সালকে (৮)। শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত রেদোয়ানের বাবার নাম মৃত নুরুল হক সিকদার। হত্যাকারী সাহিদা বেগম কে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে ।

জানা গেছে, গত ৯ এপ্রিল কাঁথা ও কম্বল রোদে দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী আলম খানের স্ত্রী সাহিদা বেগমের সাথে নিহত রেদোয়ানের ভাবি রেশমা বেগমের তর্ক বিতর্ক হয় ।

রেশমা বেগম অভিযোগ করেন, ওই ঘটনার জের ধরে ঘটনার দিন রাত আড়াইটার দিকে সাহিদা (৪০) বেগম ও তার ছেলে ইমরান (১৬) তাদের নির্মাণাধীন ঘরে
প্রবেশ করে তার ঘুমন্ত তিন দেবর রেদোয়ান, আবদুল্লাহ ও ফয়সালকে এলাপাতাড়ি ভাবে কুপিয়ে জখম করে। এসময় বাহির থেকে থেকে তার রুমে দরজার কড়া রশি দিয়ে বাধা ছিল। রুমের ভিতর থেকে তিনি কেবল ডাক চিৎকারের শব্দ শুনতে পাচ্ছিলেন। একপর্যায়ে তার ছোট দেবর ফয়সাল এসে দরজার খুলে দিলে তাকে রক্তাক্ত অবস্থা দেখতে পান এবং অন্য রুমে গিয়ে তার অপর দুই দেবরকে রক্তাক্ত অবস্থায় পরে থাকতে দেখেন। এরপর তার ডাকচিৎকারের বাড়ির লোকজন এগিয়ে আসেন। ঘটনার সময় রেদোয়ানে মা মমতাজ বেগম ও বড় ভাই দ্বিনার সিকদার বাড়ি ছিলেননা। ওই সময় তারা ঢাকায় অবস্থান করছিলেন।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার বাবুল হোসেন জানান, খবর পেয়ে তিনি রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে ও চৌকিদার চুন্নু হাওলাদারের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে বাউফল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রেদোয়ানকে মৃত বলে ঘোষনা করে । তার আহত অপর দুই ভাই আবদুল্লাহ ও ফয়সালকে ওই রাতেই আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

নিহত রেদোয়ান কালিশুরী ডিগ্রী কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র ছিল। এ ছাড়াও তার অপর দুই ভাই আবদুল্লাহ কালিশুরী এসএ ইনিস্টিটিউটের নবম শ্রেণীতে এবং ফয়সাল স্থানীয় একটি হাফেজি মাদ্রাসা পড়াশুনা করছেন।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান জানান,পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে রবিবার সকাল ৯টার দিকে কালিশুরী কুমারখালী বাজারের কাছ থেকে সাহিদা বেগমকে (৪০) গ্রেফতার করেছে। তার ছেলে ইমরান পলাতক রয়েছেন। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন