ঢাকা, সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৯ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

দাদুকে পুলিশই গুলি করে মেরেছে : কাশ্মিরের ছবি ঘিরে তোলপাড়

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০২০, ১১:০৪ এএম

ভারতের কাশ্মিরে সাধারণ মানুষকে হত্যা ও নির্যাতনে ভারতীয় পুলিশের নির্মমতা আবার সবার সামনে ফুটে উঠেছে।
সম্প্রতি সোপোর জেলায় ক্রসফায়ারিংয়ে এক বৃদ্ধকে মেরে তার লাশের ওপর ৩ বছরের নাতেকে বসিয়ে ছবি তুলে। রক্ত ভিজে যাওয়া লাশের উপর বসে থাকা তিন বছরের নাতির ছবিটি বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয় এবং এটি হামলার জায়গা থেকে তোলা বলে জানিয়েছে ভারতের পুলিশ।

বুধবার সকালে উত্তর কাশ্মীরের সোপোর শহরে উগ্রবাদী ও আধা সামরিক বাহিনীর বাহিনীর মধ্যে ক্রসফায়ারে নিহত হওয়ার সময় তিন বছরের ছোট্ট শিশুটি তার দাদু বশির আহমেদের সঙ্গেই ছিল।

এই ঘটনার পরে ভারতের সিআরপিএফের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, উগ্রবাদীদের গুলির কারণে বসির আহমেদ নামে ওই নাগরিক নিহত হয়েছেন। তাদের বক্তব্য- “সোপোর থেকে কুপওয়ারা আসছিল একটি বেসামরিক গাড়ি। উগ্রবাদীরা গুলি চালাচ্ছিল। গাড়ি চালাচ্ছিলেন এক বৃদ্ধ ব্যক্তি। গাড়ি থামিয়ে একটি নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার জন্য গাড়ি থেকে তিনি নেমেছিলেন কিন্তু সন্ত্রাসীদের গুলিতে মারা যান। পরে এসআইএফ এই ছোট্ট শিশুটিকে উদ্ধার করে।

তবে বাচ্চা ছেলেটি তার বাড়িতে পৌঁছলে পুলিশের দাবি সন্দেহজনক হয়ে ওঠে এবং সে বলে যে পুলিশই তার দাদুকে হত্যা করেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা বেশ কয়েকটি ভিডিও ক্লিপে ছেলেটির কণ্ঠে শোনা যায় ‘পুলিশ তার দাদুকে মেরেছে।’


‘বাবা’ কী হয়েছে জিজ্ঞাসা করা হলে, ৩ বছরের ওই নাতি বলে এবি "গোলি মারি" (দাদুকে গুলিবিদ্ধ করা হয়েছিল) ।ছেলেটি জবাব দেয় "পুলিশ ওহে নে" ।

বুধবার সকালে উত্তর কাশ্মিরের সোপোর শহরে উগ্রবাদী ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে ক্রসফায়ারে নিহত হওয়ার সময় ছেলেটি তার দাদু বশির আহমেদের সাথে ছিল।

ছবি-বিতর্কে সিআরপিএফের পাল্টা প্রশ্ন, এই গুলিযুদ্ধে শুধু বশির নন, প্রাণ গিয়েছে তাদের এক সহকর্মীরও। তবে কি ছবি ভাইরাল করার জন্য নিজেদের লোকেরই প্রাণ নিয়েছে তারা? কাশ্মিরের আইজিপি বিজয় কুমারের দাবি, উগ্রবাদীদের হুমকির মুখেই সিআরপিএফকে কাঠগড়ায় তুলছে বশিরের পরিবার। শিশুর ছবিটি যে তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়েছে, তার শাস্তির আশ্বাসও দিয়েছেন আইজিপি।

দাবি-পাল্টা দাবির মধ্যেই বশিরের মৃত্যুর নিরপেক্ষ তদন্ত চেয়ে সরব হয়েছে জম্মু-কাশ্মির আপনি পার্টি। তাদের দাবি, ক’দিন আগে অনন্তনাগে এ ভাবেই সিআরপিএফের উপর উগ্রবাদীহানার সময় বুলেট লেগে প্রাণ যায় ছ’বছরের এক শিশুর। একের পর এক নিরপরাধ মানুষের মৃত্যুর পরও কেন সতর্ক হচ্ছে না বাহিনী? গাফিলতি কার? এই ছবি ঘিরে দেশজুড়ে তোলপাড় হচ্ছে ভারত।
সূত্র : পূবের কলম

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন