ঢাকা, রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৮ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মীর জাফরকে বিয়েতে অস্বীকার করেন সিরাজউদ্দৌলার স্ত্রী

বাংলার স্বাধীনতা হারানোর ইতিহাস ৪

বিবিসি বাংলা | প্রকাশের সময় : ৮ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

করম আলি ‘দ্য মুজাফ্ফরনামা অব করম আলি’ গ্রন্থে আলিবর্দি খানের বংশের সব নারীদের হত্যা করার বর্ণনা দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘প্রায় ৭০ জন নিরপরাধ বেগমকে একটি নৌকায় চাপিয়ে মাঝ-গঙ্গায় নিয়ে যাওয়া হয়, আর সেখানেই নৌকাটি ডুবিয়ে দেয়া হয়। সিরাজউদ্দৌলার বংশের বাকি নারীদের বিষ খাইয়ে হত্যা করা হয়।

‘নৌকাডুবি আর বিষ খাইয়ে যাদের হত্যা করা হল, সবাইকে একই সঙ্গে নদীর ধারেই খোশবাগ নামের একটি বাগানে দাফন করা হয়েছিল’। শুধু একজন নারীকে মেরে ফেলা হয়নি, তিনি ছিলেন সিরাজউদ্দৌলার অসাধারণ সুন্দরী স্ত্রী লুৎফ-উন-নিসা। মীর জাফর আর তার ছেলে মীরান - দুজনেই তাকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন।

করম আলি লিখছেন, ‘লুৎফ-উন-নিসা বাবা-ছেলে দু’জনের প্রস্তাবই এই বলে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন যে, প্রথমে হাতির পিঠে চড়েছি, এখন গাধার পিঠে চাপা সম্ভব নয়’।
মীর জাফরের পতন : পলাশীর যুদ্ধের বছরখানেকের মধ্যেই মীর জাফরের তেজ ধীরে ধীরে নিভে আসতে শুরু করে। কিছুদিন আগেও যে ক্লাইভ মীর জাফরের হয়ে কথা বলতেন, তিনিও তাকে ‘দ্য ওল্ড ফুল’ বা ‘বোকা বুড়ো’ বলে, আর তার ছেলে মীরানকে ‘আ ওয়ার্থলেস ডগ’ বা ‘বেকার কুকুর’ বলে উল্লেখ করতে থাকেন। আলস্য, অক্ষমতা আর আফিমের নেশা মীর জাফরকে পুরোপুরি বদলে দিয়েছিল।

১৭৫৮ সালের ১১ নভেম্বর ক্লাইভ জন পিনকে লেখা এক চিঠিতে বলছেন, ‘যে ব্যক্তিকে আমি মসনদে বসিয়েছিলাম, সে অহঙ্কারী, লোভী আর কথায় কথায় গালিগালাজ করা এক লোকে পরিণত হয়েছে। তার এ ব্যবহারের জন্য নিজের প্রজাদের কাছ থেকেই সে দূরে সরে যাচ্ছে’। ক্লাইভ ইংল্যান্ডে ফিরে যাওয়ার আগে অবধি মীর জাফর তার সৈন্যদের ১৩ মাসের বকেয়া বেতনের মাত্র তিনটে কিস্তি দিতে পেরেছিলেন। বেতন না পেয়ে সৈনিকরাও ক্ষোভে ফুঁসতে শুরু করেছিল।

স্যার পেন্ডেরল মুন তার বই ‘ওয়ারেন হেস্টিংস অ্যান্ড ব্রিটিশ ইন্ডিয়া’ গ্রন্থে লিখেছেন, মীর জাফরের বাহিনীর ঘোড়াগুলোর অস্থিচর্মসার হয়ে পড়েছিল আক্ষরিক অর্থেই। তাদের শরীরের হাড় গোনা যেত। সেগুলোর পিঠে যারা চাপত, তাদের অবস্থা সামান্য উন্নত ছিল। এমনকি জমাদাররাও (অফিসার পদের নাম) ছেঁড়াফাটা পোশাক পরতে বাধ্য হতেন। পলাশীর যুদ্ধের তিন বছরের মধ্যেই ভারতের অন্যতম ধনী শহর মুর্শিদাবাদ দুস্থ হয়ে পড়ল। (চলবে)

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (13)
Farid Rana ৭ জুলাই, ২০২০, ১:০৯ এএম says : 1
সেই স্বাধীনতা আজো পুনরদ্ধার হয় নি।
Total Reply(0)
Jamil Hosen Jon ৭ জুলাই, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
ইংরেজদের দায়ী করে আর কি হবে তারা সুবিধাবাদি-সাম্রাজ্যবাদি সেটা জেনও মসনদের লোভে মিরজাফরই- ঘষেটি বেগমরাই তো সিরাজের পতন ও প্রাণ বধ করেছে। যে কারনে মীরজাফরের বংশধরেরা পূর্ব পূরুষের পরিচয় দিতে চায়না,নিজেদের লুকিয়ে রাখে।এখনও অনেক মীরজাফর আছে সুযোগের অপেক্ষায়।
Total Reply(0)
Samin Mollah ৭ জুলাই, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
মীরজাফর নামটা বাংলা তথা ভারতবর্ষের ইতিহাসে এক বিশ্বাসঘাতকতার নাম তাই কারো নাম মিরজাফর রাখা হয় না কিন্তু এই মীরজাফর চরিত্রের মানুষ গুলো আজও আছে আমাদের দেশে আদের থেকে সদা সতর্ক থাকা উচিৎ
Total Reply(0)
Iftikhar Bappy ৭ জুলাই, ২০২০, ১:১০ এএম says : 0
মীর জাফর পুত্র মিরন যেভাবে নবাব সিরাজউদ্দৌলা কে হত্যা করেছিল। মিরনকেও তার পাপের পারিনিতি ভোগ করতে হয়েছে, ইংরেজদের হাতে হত্যার মধ্যদিয়ে মিরনের পাপাচারের সমাপ্তি হয়।
Total Reply(0)
Hannan Kabir ৭ জুলাই, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
ঝুগে ঝুগে মিরজাফররা ছিলো এখনো আছে,ওরা ধিকৃত ওরা ঘৃনীত তাই আজ পর্যন্ত মীর জাফরের নামে কোন বাঙালী তাদের কোন বংশধরের নাম মির্জাফর রাখে না। অন্য দিকে নবাব সিরাজউদ্দৌলা মানুষের হৃদয়ে আছে,ও চিরদিন থাকবে।
Total Reply(0)
Umme Habiba Sauda ৭ জুলাই, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
পলাশীর যুদ্ধে নবাব সিরাজউদ্দৌলা পরাজিত না হলে, বাংলা তথা ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাস অন্য রকম হতো,হয়ত অর্থনৈতিক উন্নয়নের চিত্র ই পাল্টে যেত। পৃথিবীর ধনী রাষ্ট গুলোর 10 টির ভিতরে একটি হতো ভারতীয় উপমহাদেশ বা বাংলাদেশ।
Total Reply(0)
Umed Raja ৭ জুলাই, ২০২০, ১:১১ এএম says : 0
সবকিছুর মূল হোতা বৃট্রিশরা।লুঠেরা। মানুষ ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয়না শুধু আপসোস এবং অনুশোচনা করে।আমরা ভাবতে পারি নবাব সিরাজউদ্দোলার লাশ ঘোরার পিঠে ঘুরানো হয়েছিল কত নির্মম যা ভাষাই প্রকাশ করা যাই না। এই নিউজে বিট্রিশদেরকে ভালো সাজানোর চেষ্টা করা হয়েছে। পৃথিবীতে যত ভয়ংকর ঘটনা ঘটেছে সবকিছুর নাটেরগুরু এই বিট্রিশরা।
Total Reply(0)
Md Sagor Mia ৭ জুলাই, ২০২০, ৮:১৫ এএম says : 0
আমরা আমাদের সেই ঐতিহ্য বাংলা-বিহার-উরিষ্যা ফিরে পেতে চাই।
Total Reply(0)
Chiranjit das ৭ জুলাই, ২০২০, ৫:১৮ পিএম says : 0
এই রকম আরো কিছু আপডেট পেতে চাই ধন্যবাদ ।
Total Reply(0)
Purnima saha ৭ জুলাই, ২০২০, ৯:১৯ পিএম says : 0
ব্রিটিশ রা সব সময় নিজের স্বার্থে ও সুবিধার জন্য আমাদের ব্যবহার করেছে। আর আমরা সেটা হতে দিয়েছি নিজেদের ক্ষুদ্র স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য। তা না হলে কি ওরা ২০০বছর শাষন করতে পারত!
Total Reply(0)
Mashrurul haque ৭ জুলাই, ২০২০, ৯:৩৫ পিএম says : 0
বৃটিশরা ভারতবর্ষে কৃত্রিম খাদ‍্য সংকট তৈরী করে যেভাবে মানুষ হত‍্যা করেছে, ভারতবর্ষ বিশেষ করে বাংলায় নীলচাষের নামে কৃষকদের উপর অত‍্যাচার ও নির্যাতন এবং বাংলার সম্পদ লুন্ঠনের হিসাব আদায়ে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করা প্রয়োজন।
Total Reply(0)
Md maidul islam ৮ জুলাই, ২০২০, ৭:৫১ পিএম says : 0
আমি এখন 36বছর , আগে আমি মুর্শিদাবাদের করুন ইতিহাস গুরুত্ব দিতামনা, এখন যখনই মুর্শিদাবাদের ইতিহাস পরই মনের মধ্যে কেমন যেন হয়েযায় , কোথায় যেন চোখের জলে হারিয়ে যায়।
Total Reply(0)
Nur ৮ জুলাই, ২০২০, ৯:৫৩ পিএম says : 0
Ami sab kichu janina
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন