ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মোদির কারণেই ঢাকার সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি: রাহুল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:৩১ পিএম

বাংলাদেশসহ প্রতিবেশীদের সাথে সুসম্পর্ক নষ্ট করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিজেপি সরকারের পররাষ্ট্রনীতির সমালোচনা করে রোববার এই মন্তব্য করেন বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা রাহুল গান্ধী। এতদিন বিভিন্ন বিষয়ে সমালোচনা করলেও এই প্রথম ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক বা প্রতিবেশীদের সঙ্গে বন্ধুত্ব নিয়ে মোদিকে দোষারোপ করলেন তিনি।

রোববার এক টুইট বার্তায় রাহুল গান্ধী টুইট করে বলেছেন, ‘কংগ্রেস দীর্ঘদিন চেষ্টা করে প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করেছিল। বেশ কয়েক দশক লেগেছিল এই সম্পর্ক তৈরি করতে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেই সম্পর্ক নষ্ট করছেন।’ একই সাথে তিনি ভারতের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্কের অবনতি নিয়ে ভারতের প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম দ্য ইকনমিস্টের সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদন তুলে ধরেন। প্রতিবেদনের শিরোনাম ‘বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক দুর্বল হচ্ছে, চীনের সঙ্গে শক্তিশালী হচ্ছে’। এর পরিপ্রেক্ষিতে রাহুলের মন্তব্য, ‘প্রতিবেশী দেশগুলির মধ্যে বন্ধুহীন হয়ে থাকাটা ভয়ংকর।’

পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক আগে থেকেই খারাপ। সম্প্রতি চীনের সঙ্গে সম্পর্ক তলানিতে। নেপালও নতুন ম্যাপ প্রকাশ করে ভারতীয় এলাকা দাবি করেছে। তারপর নেপালের সঙ্গেও সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। মায়ানমার ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গেও সম্পর্ক খুব ঘনিষ্ঠ নয়। তিস্তা চুক্তি, এনআরবিলসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাংলাদেশের সাথেও সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। এদিকে, সীমান্ত থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে সিলেট আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর নির্মাণে ভারতকে হটিয়ে কাজটি নিয়েছে চীনা প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের ৯৭ শতাংশ পণ্য রপ্তানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা দিয়েছে চীন। ভারতের সঙ্গে তিস্তা নদীন পানি বণ্টনের সমস্যা না মেটায় সেখানে পানি ব্যবস্থাপনায় ১ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগও করছে তারা।

এর পরেই টনক নড়ে ভারতের। এতদিন অবহেলা করে আসলেও বাংলাদেশের সঙ্গে চীন সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ করছে বোঝার পরই সম্প্রতি পররাষ্ট্র সচিবকে ঢাকা পাঠিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। অঘোষিত সেই সফরের পর ভারত জানিয়েছিল, তারা এক বছরের মধ্যে বাংলাদেশে একাধিক প্রকল্পের কাজ শেষ করবে।

ইকনমিস্টের রিপোর্টে বলা হয়েছে, সম্প্রতি বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক খারাপ হয়েছে। আর এই অবস্থায় চীন বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো করার চেষ্টা করছে। গত কয়েক মাস ধরে লাদাখে ভারত ও চীনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। প্রবল উত্তেজনা রয়েছে। সেনা ও মন্ত্রী পর্যায়ে একাধিকবার আলোচনার পরেও পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। এই অবস্থায় বাংলাদেশের সঙ্গে চীনের সম্পর্ক ভালো হওয়া মানে ভারতের কাছে অশনি সংকেত। কারণ, প্রতিবেশীদের মধ্যে বাংলাদেশের সঙ্গেই সব চেয়ে ভালো সম্পর্ক ছিল ও আছে ভারতের।

গত কয়েক মাসে করোনা পরিস্থিতি, দেশের বেহাল অর্থনীতি, বেকারের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া, সাধারণ মানুষের উপর বোঝা চাপানো, কৃষি বিল নিয়ে ভোটাভুটি না করা, সাংসদদের সাসপেন্ড করা নিয়ে নরেন্দ্র মোদির সমালোচনা করেছেন রাহুল গান্ধী। কিন্তু ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক নিয়ে তাকে কখনো কিছু বলতে শোনা যায়নি। বাংলাদেশ সহ সব প্রতিবেশীর সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক খারাপ হওয়া বিষয়ে সরাসির মোদিকে দায়ী করলেন। সূত্র: ডয়চে ভেলে, এনডিটিভি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Mohammad Akash ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:৪৭ পিএম says : 0
ঢাকাকে অনেক খাইছেন। আর খাওয়ার আশা কইরেন না।
Total Reply(0)
Mokter Hossain ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:৪৭ পিএম says : 0
100 পার্সেন্ট সত্য কথা।
Total Reply(0)
M.D. Arif Hossain ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:৪৮ পিএম says : 0
ঠিক কথা বলছে
Total Reply(0)
খলিল ফখরুল ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৮:৪৮ পিএম says : 0
ভারতের গোলামী করার জন্য স্বাধীন হইনি
Total Reply(0)
abul kalam ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৯:১২ পিএম says : 0
ভারত থেকে বেরিয়ে আসলেই বাংলাদেশের কল্যাণ হবে। ভারতের কোন বন্ধু- নাই--
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন