ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মেহবুবা মুফতির ডিটেনশন নিয়ে মোদি সরকারের সমালোচনায় সুপ্রিম কোর্ট

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:০৮ পিএম

অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির গৃহবন্দি বা ডিটেনশন নিয়ে মোদি সরকারের সমালোচনা করলো ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতাকে সুপ্রিম কোর্ট প্রশ্ন করে, ‘ডিটেনশন আজীবন ধরে হতে পারে না। আমরা আপনাদের সতর্ক করে এটা জানতে চাই যে, কতদিন ধরে একটা ডিটেনশন চলতে পারে? আমরা সরকারের থেকে এটাও জানতে চাই যে, এই ডিটেনশন কতদিন চলবে? এটাই আমাদের জিজ্ঞাস্য।’

তবে মেহবুবা মুফতির দলীয় সভায় যোগ দেয়ার অনুমতি চেয়ে মুফতি-কন্যা যে আবেদন জানিয়েছিলেন, তা এ দিন খারিজ করে দিয়েছে শীর্ষ আদালত। এ বিষয়ে সরকারের কাছে দরবার করার জন্য মুফতির কন্যাকে পরামর্শও দিয়েছে আদালত। গত ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের ঠিক আগে আটক করা হয়েছিল ভূস্বর্গের রাজনৈতির নেতা নেত্রীদের। তাদের মধ্যে ছিলেন মেহবুবা মুফতিও। তার কন্যা ইলতিজা মুফতি শীর্ষ আদালতে যে আবেদন জানিয়েছিলেন তাতে রিট পিটিশনে সংশোধন চাওয়া হয়েছিল। রিট পিটিশনে বিভিন্ন গ্রাউন্ডে মুফতির ডিটেনশনকে চ্যালেঞ্জ জানানো হয়েছিল। পাশাপাশি ‘বেআইনিভাবে মুফতিকে আটক করে রাখার জন্য’ ক্ষতিপূরণ এবং মামলার খরচও দাবি করা হয় পিটিশনে।

এর আগে, প্রায় আট মাস ‘গৃহবন্দি’ থাকার পর গত মার্চে মুক্তি পান জম্মু ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা। ‘হরি নিবাস’ থেকে বেরনোর পর ওমর বলেছিলেন, ‘২৩২ দিন আটক থাকার পর অবশেষে হরি নিবাস থেকে বেরোতে পারলাম। তবে ২০১৯ সালের ৫ অগস্টের আগে পরিস্থিতি যে রকম ছিল, আজ তার থেকে অনেকটাই বদলে গিয়েছে।’ তিনি পরে আরও বলেছিলেন, ‘আজ অবশ্য বুঝতে পারছি, জীবন-মরণের লড়াই চলছে এখানে। আমাদের যে সব কর্মীদের আটক করে রাখা হয়েছিল, তাঁদের এখন ছেড়ে দেওয়া হোক। তবে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে সরকারের সমস্ত নির্দেশ মেনে আমাদেরও মেনে চলতে হবে।’ ওমরের বাবা তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স প্রধান ফারুক আবদুল্লা আগেই মুক্তি পেয়েছিলেন। সূত্র: টিওআই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন