ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

জালিয়াতির মাধ্যমে জাল দলিল তৈরির ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আ.লীগ নেতাসহ তিনজন কারাগারে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাত | প্রকাশের সময় : ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৩:১০ পিএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জালিয়াতির মাধ্যমে জাল দলিল তৈরির ঘটনায় আওয়ামলীগ নেতাসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত হলেন হলেন ভুয়া দলিল দাতা সাধন সরকার, সনাক্তকারী মোঃ রুস্তম আলী এবং দলিল লেখক সদর উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী সাহারুল ইসলাম। দলিল লেখক কাজী সাহারুল সদর উপজেলার সুুহিলপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগেরও সাধারন সম্পাদক।
বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে ভুয়া দাতা সেজে জায়গা দলিল করে নেয়ার ঘটনা ধরা পরার পর রাতে জমির ভুয়া বিক্রেতা, দলিল লেখক ও দলিল সনাক্তকারীসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে সাব রেজিস্ট্রি অফিসের মোহরার জয়ন্তী রানী চক্রবর্তী মামলা করেন। মামলায় ভুয়া দলিল দাতা বিজয়নগর উপজেলার দক্ষিণ রাজাবাড়ি গ্রামের সাধন সরকার, সনাক্তকারী জেলা শহরের কান্দিপাড়া মহল্লার মো. রুস্তম আলী এবং দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী সাহারুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে সদর মডেল থানা পুলিশ।
পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর সাব রেজিষ্টারের এজলাসে বিজয়নগর উপজেলার চর-পাঁচগাও মৌজার বিএস চূড়ান্ত ৭২৭ খতিয়ানভূক্ত বিএস ৪৪৫৭ দাগের ৩৫ শতক জমি নিবন্ধনের জন্য দাখিল করা হয়। খতিয়ানে জমির মূল মালিক হিসেবে মৃত চন্দ্র কিশোর শর্মার পুত্র হরেন্দ্র কান্ত শর্মার নামোল্লেখ থাকলেও নিবন্ধনের জন্যে দলিল দাখিল করেন সাধন শর্মা। সে তার জাতীয় পরিচয়পত্রে পিতা অবচরণ সরকারের পরিবর্তে হরেন্দ্র কান্ত শর্মা লিপিবদ্ধ করেন। সাব রেজিষ্টার মো. ইয়াছিন আরাফাতের নিকট বিষয়টি সন্দেহ হলে তিনি এ্যাপসের সাহায্যে জাতীয় পরিচয়পত্র পরীক্ষা করে ভুয়া বলে নিশ্চিত হন। এরপরই সাধন সরকার এবং মো. রুস্তম আলীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। রাতে মামলা হবার পর পুলিশ ওই দলিলটির লেখক কাজী সাহারুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে। দলিল গ্রহিতা হিসেবে নাম রয়েছে বিজয়নগর উপজেলার চর ইসলামপুর গ্রামের মো. ইয়াছিন মিয়ার। তাকে ছাড়াও শহরের মেড্ডার নয়ন ঋষি এবং বিজয়নগর উপজেলার ইসলামপুরের মো. নূরুল ইসলামকে মামলায় আসামী করা হয়েছে।
সদর সাব রেজিষ্টার হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনকারী আখাউড়ার সাব রেজিষ্টার মো: ইয়াছিন আরাফাত জানান, ‘নিবন্ধন মহা পরিদর্শকের সাথে কথা বলে মুল দলিলটি জব্দ করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুর জানান, ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ৩ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন