মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪

খেলাধুলা

পিএসএলে যাচ্ছেন তামিম-মাহমুদউল্লাহ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ নভেম্বর, ২০২০, ১২:০২ এএম

পাকিস্তানর ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) শেষ ধাপে খেলতে যাচ্ছেন বাংলাদেশের দুই সিনিয়র ক্রিকেটার তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ। এই টুর্নামেন্টে খেলার জন্য গতকালই বিসিবির অনাপত্তিপত্র পেয়েছেন তারা। দুজনই আগে খেলেছেন পিএসএলে। ২০১৭ ও ২০১৮ পিএসএলে কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সে খেলেছেন মাহমুদউল্লাহ। ২০১৬, ২০১৭ ও ২০১৮ পিএসএলে তামিম খেলেছেন পেশাওয়ার জালমিতে। এবার তামিম খেলবেন লাহোর কালান্দার্সে, মাহমুদউল্লাহ মুলতান সুলতানসে। পিএসএলে খেলতে মুখিয়ে আছেন বাংলাদেশের এই দুই ক্রিকেটারই। টুর্নামেন্টে খেলতে আগামী ১০ নভেম্বর ঢাকা ছাড়তে পারেন দু’জন।

বিসিবির আয়োজনে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আগামী ১৫ নভেম্বর শুরু হতে পারে বলে কিছুদিন আগে জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। তবে বোর্ডের ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান জানালেন, টুর্নামেন্টটি আরও কয়েকদিন পর শুরু হবে। তামিমদের তাই পিএসএলে যেতে বাধা নেই। অথচ এবার আইপিএলে দুটি দল থেকে প্রস্তাব পেয়েও বোর্ডের ছাড়পত্র পাননি মুস্তাফিজুর রহমান। তামিমদের অনুমতি দেওয়ার প্রেক্ষাপট ব্যাখ্যা করলেন আকরাম খান, ‘মুস্তাফিজের প্রস্তাব যখন এসেছিল, তখন আমাদের এখানে প্র্যাকটিস চলছিল। জাতীয় দলের খেলা ছিল সামনে। শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা ছিল আমাদের। সব ভেবেই তখন মুস্তাফিজকে অনুমতি দেইনি আমরা। এখন তো আমাদের এখানে খেলা নেই, ক্যাম্পও নেই আপাতত। টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট সপ্তাহখানেক অন্তত পেছাতে যাচ্ছে। এখন তাই ওদের দুজনকে খেলতে না দেওয়ার কারণ নেই।’

এবারের পিএসএল শেষ পর্যায়ে এসে করোনাভাইরাসের প্রকোপে স্থগিত হয়ে যায় গত মার্চে। টুর্নামেন্টের দুটি এলিমিনেটর ম্যাচ, একটি কোয়ালিফায়ার ও ফাইনাল ম্যাচ কেবল বাকি আছে। আগামী ১৪, ১৫ ও ১৭ নভেম্বর ম্যাচগুলি হবে করাচিতে। প্রাথমিক পর্ব শেষে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে আছে মুলতান সুলতানস। মাহমুদউল্লাহ তাই অন্তত দুটি ম্যাচে দলের সঙ্গে থাকতে পারবেন নিশ্চিতভাবেই। কোয়ালিফায়ার ম্যাচে ১৪ নভেস্বর তাদের প্রতিপক্ষ করাচি কিংস। জিতলে তার উঠবে ফাইনালে, হারলে পরদিন খেলতে দ্বিতীয় এলিমিনেটরে। মাহমুদউল্লাহ বললেন, কঠিন এই সময়ে ক্রিকেট হতে পারে খুশির উপলক্ষ্য, ‘পিএসএলে খেলার সুযোগ পাওয়া আমার জন্য সম্মানের। এই বছর ক্রিকেট খেলতে হচ্ছে একটু ভিন্নভাবে। আশা করি, আমাদের ভক্তদের মখে হাসি ফোটানোয় অবদান রাখতে পারব আমি।’

তামিমের পিএসল অভিযান হতে পারে এক ম্যাচ থেকে তিন ম্যাচ পর্যন্ত। লাহোর কালান্দার্স ১০ পয়েন্ট নিয়ে আছে তালিকার তিনে। ১৪ নভেম্বর প্রথম এলিমিনেটরে তামিমদের প্রতিপক্ষ পেশাওয়ার জালমি। ওই ম্যাচ জিতলে দ্বিতীয় এলিমিনেটর খেলতে হবে তাদের ১৫ নভেম্বর। সেখানে জিতলে ১৭ নভেম্বর ফাইনাল। গুরুদ্বপূর্ণ এই সময়ে সুযোগ পেয়ে তামিম তাই অবদান রাখতে চান দলের শিরোপা জয়ে, ‘পিএসএলে ফেরার জন্য তর সইছে না আমার। লাহোর কালান্দার্স খুবই ভালো খেলেছে এখনও পর্যন্ত। দলের ট্রফি জয়ে ভ‚মিকা রাখতে চাই আমি।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন