ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৮ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

‘বড় বড় শক্তি শেয়ারবাজারে আর খেলতে পারবে না’- বিএসইসি চেয়ারম্যান

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ৭:১৬ পিএম | আপডেট : ৭:২৫ পিএম, ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের নিরাপত্তা দেবে এমন ইঙ্গিত দিয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির চেয়ারম্যান প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেছেন, বড় বড় শক্তি এসে শেয়ারবাজারে আর খেলতে পারবে না। আগামী তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে এটা আপনারা ফিল (অনুভব) করবেন। বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) বিএসইসির কার্যালয়ে দৈনিক ‘বাণিজ্য প্রতিদিন’র অনলাইন ভার্সনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিএসইসি চেয়ারম্যান প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেন, বাজার ডিমান্ড-সাপ্লাই (চাহিদা-যোগান) এর উপর নির্ভর করে ওঠানামা করবে। ওঠানামা হবে সাসটেইনেবল (টেকসই)। এর মধ্যে কোনও দুষ্টু শক্তি এসে জন্যক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের নিঃস্ব করে যেতে না পারে সেটা আমরা খেয়াল রাখছি।

তিনি বলেন, ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশসহ (আইসিবি) আমাদের সহযোগী প্রতিষ্ঠান যাতে ঠিকভাবে রোল প্লে করতে পারে সেদিকেও আমরা খেয়াল করছি। আর একটু সময়ের ব্যাপার, তারপর আপনারাও বুঝতে পারবেন এই ক্যাপিটাল মার্কেটে সাসটেইনেবলিটি খুব বেশি দূরে নেই। সেটার জন্য খুব বেশি সময় লাগবে না। আশা করি তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে আপনারা এটা ফিল করবেন, বড় বড় শক্তি এসে যদি এখানে খেলতে চায় সেটা তারা আর পারবে না। আমরা বিনিয়োগকারীদের নিরাপত্তা দিব।

প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেন, আমরা আইপিও দিব। কেননা আইপিওর মাধ্যমে বড় বড় ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসার জন্য দীর্ঘমেয়াদি অর্থায়নের ব্যবস্থা করতে পারবেন। এর মধ্যে প্রাইমারি মার্কেটের আইপিও বিজয়ীরা লাভবান হবেন।

শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম বলেন, আমরা অনেকগুলো আইপিও দিয়েছি। কিন্তু তার কোনও নেতিবাচক প্রভাব পড়তে দেখিনি। বরং আইপিওর মাধ্যমে ব্যবসায়ীদের পুঁজির যোগান হচ্ছে। অনেক মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে। এর মাধ্যমে উদ্যোক্তারা বেনিফিটেড হচ্ছেন। মার্কেট বেনিফিটেড হচ্ছে। মার্কেটের গভীরতা বাড়ছে। জনগণ যারা আইপিও করছেন তারাও লাভবান হচ্ছেন। সবমিলিয়ে আমরা একটি উইন উইন অবস্থা দেখতে পাচ্ছি। যদি কখনো দেখি এখানে (আইপিও) আমাদের একটু স্লো করা উচিত এবং এখানে ইন্টারভেন করা উচিত, সেটাও আমরা করব।

তিনি বলেন, প্রথমদিকে আমাদের সেকেন্ডারি মার্কেটে নজর দিতে হয়েছে। এখন প্রাইমারি মার্কেট, ডেরিভিটিভ মার্কেট নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে। বৃহষ্পতিবার থেকে রবির শেয়ার লেনদেন শুরু হয়েছে। রবি আশায় এদিন ১২টার মধ্যে ৮’শ কোটি টাকার ওপরে লেনদেন হয়েছে। আমরা আশা করছি এখন থেকে বাজার একটু ভালোর দিকে দিকে যাবে।

সেমিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএসইসির কমিশনার প্রফেসর শামছুদ্দিন ও মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সভাপতি ছায়েদুর রহমান, ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্ট ফোরামের (সিএমজেএফ) সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল, সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন