ঢাকা বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৮ রজব ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ভারতের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে বার্ড ফ্লু

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ জানুয়ারি, ২০২১, ১১:৩২ এএম

প্রাণঘাতী মহামারির মধ্যেই ভারতের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে বার্ড ফ্লু’র আতঙ্ক। দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে এই ফ্লু। ইতোমধ্যে ভারতের ১০টি রাজ্যে ছড়িয়ে পড়েছে এই সংক্রমণ।

গত কয়েক দিনে চারপাশ থেকে বার্ড ফ্লু’র খবর আসতে থাকায় কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে অ্যাডভাইজরি জারি করে রাজ্যগুলোকে অ্যালার্ট করা হয়েছে।
এখনো পর্যন্ত দিল্লিতে ৮৫০টি পাখির মৃতদেহ মিলেছে। যার মধ্যে অধিকাংশই কাক। এ ছাড়াও কিছু শীতের পরিযায়ী পাখি আছে। মৃতদেহ থেকে রক্ত সংগ্রহ করে ভোপালের পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছিল। জানা গিয়েছে, এর মধ্যে প্রায় ৪৫০টি পাখির শরীরে এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জার নমুনা মিলেছে। এই ইনফ্লুয়েঞ্জা পোলট্রির পাখিদের বেশি হয়। এই ধরনের ইনফ্লুয়েঞ্জা হলে পোলট্রিতে মড়ক লাগে। তবে এখনো পর্যন্ত পোলট্রিতে তা পৌঁছায়নি বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন। বিক্রেতা এবং ক্রেতা দুই পক্ষকেই সতর্ক থাকার কথা বলেছেন তিনি।

বার্ড ফ্লু পাখিদের একধরনের জ্বর। কিন্তু এই জ্বরটির জন্য দায়ী এক ধরনের ভাইরাস, যার নাম এইচ৫এন১। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হাঁস-মুরগি থেকে ভাইরাসটি মানুষের দেহে প্রবেশ করতে পারে। ছবিতে অণুবীক্ষণ যন্ত্রের নিচে এইচ৫এন১ ভাইরাসকে দেখা যাচ্ছে।
গত শুক্রবার ছয়টি রাজ্যে বার্ড ফ্লুয়ের জীবাণু মিলেছিল। মরা পাখি পাওয়া গিয়েছিল বিভিন্ন এলাকা থেকে। এক সপ্তাহ পরে ১০টি রাজ্য বার্ড ফ্লুয়ে আক্রান্ত। সর্বশেষ আক্রান্ত হয়েছে উত্তরাখণ্ড। এর আগে কেরালা, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানা, গুজরাট, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ এবং হিমাচলপ্রদেশে বার্ড ফ্লুয়ের জীবাণু মিলেছিল। জয়পুরের চিড়িয়াখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। কারণ, সেখানে জলের ধারে বেশ কিছু পাখির মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছিল।

হিমাচলপ্রদেশ এবং কেরালায় এখনো পর্যন্ত হাজার হাজার পাখির মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ অবশ্য জানিয়েছে, সেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে। দিল্লিতেও বেশ কিছু পার্ক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বার্ড ফ্লু যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে তা দেখার জন্য এই সপ্তাহেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা একটি বৈঠক করেছেন। কোভিড পরিস্থিতি মাথায় রেখে সকলকে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছেন মোদী।

বিশেষজ্ঞদের একাংশের বক্তব্য, বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়লেও তা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার সময় এখনো আসেনি। মানুষকে এখনো পর্যন্ত এই রোগ সমস্যায় ফেলেনি। তবে সচেতন থাকা জরুরি। পরিস্থিতি সামলাতে প্রায় প্রতিটি রাজ্যই অসুস্থ পাখি মারার কাজ শুরু করেছে।

ভারতের সরকারি সূত্র থেকে জানানো হয়েছে, যে যে রাজ্যে বার্ড ফ্লুয়ের সতর্কতা জারি করা হয়েছে, সেসব রাজ্যে আগামী ১৫ দিন হাঁস-মুরগি-ছাগলের গোশত, সব ধরণের মাছ, ডিম ও পোলট্রিজাত পণ্যের কেনাবেচা ও সরবরাহ বন্ধ রাখার নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।

তবে পশ্চিমবঙ্গে তার কোনো প্রভাব না পড়লেও আশঙ্কিত সাধারণ প্রতিপালক এবং মুরগি খামারের মালিকরা। উদ্বেগ ছড়িয়েছে প্রশাসনেও। পরিস্থিতির উপর কড়া নজর রাখার জন্য জেলার কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য ভেটেরিনারি কাউন্সিল। রাজ্য প্রাণিসম্পদ দফতরের পক্ষ থেকেও জেলায় জেলায় সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে। বার্ড ফ্লু আটকাতে রাজ্যের বিভিন্ন মুরগি খামারে ছড়ানো হচ্ছে জীবাণুনাশক স্প্রে। সূত্র : পিটিআই

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Md Rejaul Karim ১৫ জানুয়ারি, ২০২১, ২:১২ পিএম says : 0
একমাত্র আল্লাহপাক সকল সাহায্য ও ভরসার দেয়ার মালিক।।।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন