ঢাকা রোববার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ২৮ চৈত্র ১৪২৭, ২৭ শাবান ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

প্রতিপক্ষের ধারালো চাকুর আঘাতে মাদ্রাসা শিক্ষক নিহত, গুরুতর জখম ৩, গ্রেপ্তার ২

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১১:৩৮ এএম | আপডেট : ১২:১৫ পিএম, ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

আজ সকাল সাড়ে নয়টার দিকে জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার দেউলি সুবিদখালীতে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের ধারালো চাকুর আঘাতে আব্দুল মান্নান মুজাহিদী (৫৭)নিহত হয়েছেন। এসময় শাকিল (৩৭)শাহিদুল (২৭)আযহার (৭০)নামে তিনজন চাকুর আঘাতে গুরুতর জখম হয় এদের মধ্যে আজহারকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহত মান্নান মুজাহিদীপশ্চিম সুবিদখালী সালেহিয়া আলিম মাদ্রাসার শিক্ষক।
মির্জাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শওকত আনোয়ার ইসলাম জানান, আজ সকাল সাড়ে নটার পরে নিহত মান্নান মুজাহিদী স্থানীয় সালিশের মাধ্যমে ফয়সালার কৃত বাড়ি সংলগ্ন এলাকার জমিতে নির্মাণ করতে গেলে প্রতিপক্ষ কিতাব আলি, লিটন, শিপন গংরা ধারালো দেশীয় অস্ত্র, ও চাকু নিয়ে তাদের উপরে হামলা চালায়। এসময় মান্নান মুজাহিদীর বুকে চাকু দিয়ে তিনটি জখম করা সহ অন্যান্যদের উপর হামলা চালানো হয়। গুরুতর অবস্থায় মুজাহিদী সহ অন্যান্যদেরকে মির্জাগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মান্নান মুজাহিদকে মৃত বলে ঘোষণা করেন, এছাড়াও গুরুতর জখম আজহারকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ইতিমধ্যে ঘটনাস্থল থেকে দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Forkan ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:২৬ পিএম says : 0
মরে গেছে মানবতা মরে গেছে বিবেক বেঁচে আছে শুধু আইনের দোহাই ও হাতকড়া
Total Reply(0)
Forkan ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১:২৬ পিএম says : 0
মরে গেছে মানবতা মরে গেছে বিবেক বেঁচে আছে শুধু আইনের দোহাই ও হাতকড়া
Total Reply(0)
Shamim Reza ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৩:১০ পিএম says : 0
আমার লেখার ভাষা নাই
Total Reply(0)
Sujon Rony ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ৭:২৮ পিএম says : 0
Ki bolbo kisui bujte parci na Kintw jara oporadi tader k ain ar awtai ana hok
Total Reply(0)
আঃ ওহাব ২৫ মার্চ, ২০২১, ৭:২২ পিএম says : 0
প্রকাশ্য দিবালোকে একজন মসজিদের ইমাম ও মাদ্রাসার শিক্ষককে নির্দয় ভাবে আঘাতের পর আঘাত করে ক্ষতবিক্ষত করেছে খুনি ঘাতকরা। এর নিন্দা জানানোর ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। এই নির্মম হত্যাকান্ড আমাদের বিবেককে কতটা জাগ্রত করবে তা আমাদের বোধগম্য নয়। আমরা শুধু একটি কথা জোরদিয়ে বলতে চাই যে সমাজে একজন শিক্ষকের বেঁচে থাকার চেয়ে একজন খুনির বেঁচে থাকাকে প্রাধান্য দেয় সেই সমাজের দৃশ্যমান পরিবর্তন দরকার। খুনিরা সভ্যসমাজের ক্যান্সার। আল্লাহর দেয়া সুস্থ আলোবাতাসে ঘুরেবেরানোর কোনো অধিকার তাদের নেই। এদের স্থান কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্ঠ এবং পরবর্তী অন্তিম পরিণতি ম্যানোলা রৌপ নামে খ্যাত ফাঁসির দড়ি। আজ হোক কাল হোক পাপিষ্ঠ খুনিদের ফাঁসির জল্লাদের সামনে দাঁড়াতে হবেই হবে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন