মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক সংবাদ

চীনের কাছে লাদাখে টহলদারির অধিকার ফেরত চাইল ভারত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ আগস্ট, ২০২১, ৩:৪৭ পিএম

শনিবার শীর্ষ পর্যায়ের সামরিক সংলাপের সময় ভারত ফের গোগরা এবং হট স্প্রিংস থেকে সেনা সরাতে এবং তদেরকে ডেপসাংয়ে "বাধাহীন টহলদারির অধিকার" ফিরিয়ে দিতে চীনের প্রতি ফের আহ্বান জানায়। যার মাধ্যমে পূর্ব লাদাখের সীমান্ত বরাবর উভয় পক্ষ সেনা প্রত্যাহার এবং ফলস্বরূপ উত্তেজনা কমাতে পারে।

সীমান্তে সেনা অবস্থানকে কেন্দ্র করে ভারত এবং চীনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। বার বার দু'পক্ষের মধ্যে বৈঠক হলেও এ বিষয়ে এখনও কোনও সমাধান মেলেনি। প্যাংগং থেকে চীন তাদের সেনা সদস্যদের সরিয়ে নিলেও এখনও লাদাখের বহু জায়গায় ঘাঁটি রয়েছে দেশটির সামরিক বাহিনীর। ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকায় চীনের টহলদারিও চলছে। সীমান্ত এলাকায় সেনা সরানোর প্রক্রিয়া নিয়ে তাই আবারও মুখোমুখি হয়েছে ভারত এবং চীন। লাদাখ ইস্যু নিয়ে এটি ছিল ১২তম বৈঠক। প্রায় ৯ ঘন্টা ধরে এই দুই দেশের কমান্ডার পর্যায়ে আলোচনা হয়েছে।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার (এলওএসি) চীনের দিকে মোল্ডোতে এই বৈঠক আয়োজিত হয়। হট স্প্রিং এবং গোগরা পোস্ট এলাকা থেকে সেনা সরানোই এই সামরিক আলোচনার উদ্দেশ্য ছিল। লাদাখের একাধিক অংশে যুদ্ধ পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে আছে ভারত এবং চীনের সেনাবাহিনী। দ্রুত সীমান্ত সমস্যা মেটানো নিয়েই আলোচনা হয় দু'দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে। প্রায় সাড়ে তিন মাস পর ভারত এবং চীনের সেনা পর্যায়ের মধ্যে বৈঠক হয় শনিবার সন্ধ্যায়। যদিও এখনও কোনও সমাধান পাওয়া যায়নি বলে জানা গেছে। দুই দেশই এই লাদাখ ইস্যু নিয়ে চিন্তিত। সম্প্রতি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর এবং চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে বৈঠক হয়েছে। দু'দেশের মধ্যে যতটা সম্ভব সমাধানের লক্ষ্যেই আলোচনা করা হবে। ভারতের পক্ষ থেকে এমন বার্তাই দেয়া হয়েছিল।

চীনের সেনা মোতায়েন করার বিষয়টিই ভারতের প্রধান মাথাব্যথার কারণ। এর আগেও একাধিক বৈঠক হয়েছে, সেখানে শুধু আলোচনাই হয়েছে কিন্তু কোনও সমাধান আসেনি। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে সীমান্তে সেনা সংঘর্ষে ভারত-চীনের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। এসব সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছেন। যদিও গত মাসেই সেনা ও কূটনৈতিক পর্যায়ে আলোচনার পর সবচেয়ে বিতর্কিত প্যাংগং হ্রদ থেকে সেনা সরিয়ে নিয়েছে দু'পক্ষই। তবে পরিস্থিতি এখনও পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি। সূত্র : টিওআই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন