মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

অনিয়মের প্রতিবাদ করায় জাবি ছাত্রকে বেধড়ক মারধর

জাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৩৯ পিএম

জাতীয় স্মৃতিসৌধে ঘুরতে গিয়ে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় আনসার সদস্যদের দ্বারা বেধড়ক মারধরের শিকার হয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) প্রাণীবিদ্যা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র নুর হোসাইন।

আজ (সোমবার) আনুমানিক দুপুর ২ টার সময় সাভার নবীনগরে অবস্থিত জাতীয় স্মৃতিসৌধে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, চট্গ্রাম থেকে আসা দুজন ভাগ্নেকে নিয়ে আজ দুপুরের দিকে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ঘুরতে যান তারা। দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা দর্শনার্থী প্রবেশ বন্ধ বলে তাদেরকে ঢুকতে না দিলেও ভিতরে অনেককে প্রবেশ করতে দেখেন নুর হোসাইন। এসময় সে দেখতে পান টাকা দিলে ভিতরে প্রবেশ করানো হচ্ছে। এর প্রতিবাদ ও ভিতরে থাকা দর্শনার্থীদের ভিডিও করতে গেলে আনসার সদস্যরা তাকে স্মৃতিসৌধের ভিতরে একটি কক্ষে আবদ্ধ রেখে অত্যন্ত নারকীয় কায়দায় শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্মকভাবে আঘাত করে।

এরই মধ্যে নুরের বড় ভাগ্নে ৯৯৯ এ ফোন করলে নিকটস্থ থানা থেকে পুলিশ এসে তাদের উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। তার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় সেখান থেকে নিউরোসায়েন্স ইন্সটিটিউটে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন জাতীয় স্মৃতিসৌধে কর্তব্যরত গণপূর্ত বিভাগের ইনচার্জ উপ-সহকারী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত, আনসার সদস্যের সাথে ঐ শিক্ষার্থীর বাক বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে চারজন আনসার সদস্য তাকে মারধোর করে। পরে আমি সেখানে উপস্থিত হয়। কিছুক্ষণ পরে পুলিশ আসে। সেখানে সাময়িক আলোচনার পর তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ‘

এ বিষয়ে নূর হোসাইনের বরাত দিয়ে তার বন্ধু জহির ফয়সাল বলেন, ওর দুজন ভাগিনা চট্টগ্রাম থেকে এসেছে স্মৃতিসৌধ দেখার জন্য। আজ তাদেরকে নিয়ে স্মৃতিসৌধে নিয়ে যায়। সেখানে সিকিউরিটি গার্ড কিছুসংখ্যক কাপলকে টাকার বিনিময়ে প্রবেশ করতে দিলেও তাদের প্রবেশ করতে দেয়নি। ও এর প্রতিবাদ করায় তর্ক বিতর্ক শুরু হয়। পরে সে টাকার বিনিময়ে ভিতরে প্রবেশ করা দর্শনার্থীদের ভিডিও করতে গেলে একজন আনসার সদস্য এসে বলে ওরা ভিডিও করতেছে। পরে ৭-৮ জন আনসার সদস্য তাকে ভিতরে নিয়ে অত্যন্ত নারকীয় কায়দায় মারধর করে। প্রথমে একটি রুমে আবদ্ধ রেখে ৭-৮ জন আনসার সদস্য মিলে ঠোঁট, গলা, ও তলপেটে মারাত্মকভাবে আঘাত করে। পরে মাথাতেও মারাত্মক আঘাত করে এবং ব্যবহৃত লাঠি দিয়ে পা থেতলিয়ে দিয়েছে।

ফয়সাল বলেন, ‘নূরের চিকিৎসা ব্যয় স্মৃতিসৌধ প্রশাসনকে বহন করতে হবে। এ ঘটনায় আমরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। এছাড়া এ ঘটনার প্রতিবাদে আগামীকাল (মঙ্গলবার) বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন করবো।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন