শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

সারা বাংলার খবর

মুসা বিন শমসেরকে ডিবি কার্যালয়ে তলব

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০২১, ৩:৫০ পিএম

বিশিষ্ট ধনকুবের মুসা বিন শমসেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। এ জন্য মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) তাকে ডিবি কার্যালয়ে ডাকা হয়েছে।
এ বিষয়ে গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান বলেন, রোববার তার ছেলেকে জিজ্ঞাসাবাদ করে কিছু তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। মঙ্গলবার মুসাকে ডাকা হয়েছে। তাকে প্রতারকের বিষয়ে কিছু প্রশ্নোত্তর করা হবে।
এর আগে গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অতিরিক্ত সচিব পরিচয়ে গ্রেফতার আব্দুল কাদেরের প্রতিষ্ঠানে শমসেরের একাধিক ছবি টাঙানো রয়েছে। তিনি নিজেকে পরিচয় দিতেন শমসেরের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অ্যাডভাইজার হিসেবে। প্রতারক আব্দুল কাদেরের কাছ থেকে মুসা বিন শমসের ও তার স্ত্রীর সঙ্গে করা কিছু চুক্তিপত্র উদ্ধার করা হয়। এসব বিষয় জানতেই মূলত শমসেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।
ডিসি মশিউর রহমান বলেন, আব্দুল কাদের চৌধুরীর আসল নাম, আব্দুল কাদের মাঝি। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা দশম শ্রেণি। কিন্তু তিনি প্রতারণামূলকভাবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আইডি কার্ড, ভিজিটিং কার্ড ছাপিয়ে, নিজেকে অতিরিক্ত সচিব হিসেবে পরিচয় দিতেন। নিজের এক কোটি ২০ লাখ টাকার প্রাডো গাড়িতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের স্টিকার লাগিয়ে ঢুকতেন সচিবালয়ে।
ডিবি জানায়, দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে এভাবে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন আব্দুল কাদের। নানা অভিযোগের ভিত্তিতে ৭ অক্টোবর মিরপুর ৬ নম্বরে বাসা থেকে বাইরে যাওয়ার সময় গ্রেফতার হন তিনি। একই সঙ্গে আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়।
তারা হলেন- সততা প্রপার্টিজের চেয়ারপারসন ও আব্দুল কাদেরের দ্বিতীয় স্ত্রী শারমিন চৌধুরী ছোঁয়া, অফিস ম্যানেজার শহিদুল আলম ও অফিস সহায়ক আনিসুর রহমান।
ডিবিপ্রধান বলেন, আব্দুল কাদেরের আদি বাড়ি নোয়াখালীর সুবর্ণচরের ভূমিহীন এক কৃষক পরিবারে। তার বাবা জীবিকার সন্ধানে সন্দ্বীপে পাড়ি জমিয়েছিলেন। মাছ ধরে ও মাঝির কাজ করে জীবিকা উপার্জন করতেন। এমন ভূমিহীন ভাসমান আব্দুল কাদেরের ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে রয়েছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ। এর মধ্যে গুলশান-১ নম্বরের জব্বার টাওয়ারের প্রায় ৬ হাজার স্কয়ার ফুট আয়তনের অফিস রয়েছে। কারওয়ান বাজারেও রয়েছে আরও একটি অফিস। মিরপুর-৬ নম্বরে বসবাস করলেও একাধিক ফ্ল্যাট রয়েছে তার।
ডিবিপ্রধান আরও জানান, আব্দুল কাদের নয়তলা বাড়ি কিনেছেন গাজীপুরের বোর্ডবাজারে। গাজীপুরের পুবাইলে রয়েছে ৮ বিঘার বাগানবাড়ি। ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক ও সিটি ব্যাংকসহ আরও কয়েকটি ব্যাংকে রয়েছে তার একাধিক অ্যাকাউন্ট। যেখানে রয়েছে লাখ লাখ টাকা। অঢেল সম্পদের মালিক এ কাদেরের নেই কোনো বৈধ উপার্জন। প্রতারণা ও মিথ্যা তার একমাত্র পুঁজি বলে মন্তব্য করেন ডিবিপ্রধান।
আব্দুল কাদের, তার স্ত্রী ও তার সহকর্মীদের বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় অস্ত্র মামলা, তেজগাঁও থানায় প্রতারণার মামলা রয়েছে। এর আগে তার বিরুদ্ধে পাসপোর্ট জালিয়াতি, বিভিন্ন প্রতারণা, ব্যাংকে নিয়োগ বিষয়ে কমপক্ষে অর্ধ ডজন মামলাও রয়েছে বলে জানায় ডিবি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১১ অক্টোবর, ২০২১, ৪:১৮ পিএম says : 0
এগুলো সব মিথ্যা অবৈধ সরকারের এই পলিটিক্স,এরা অবশ্যই এই অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে কিছু বলেছেন,এবং তাল মিলিয়ে চলতে পারেন নাই,এই জন্য এই অবস্থা,এখন দেশে অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বললেই বিপদ হয়,এই অবৈদ সরকার এখন ইউরোপের রানি এলিজাবেথ এবং সোদি আরবের মত দেশের মত কিংডম হয়ে অবৈধ ভাবে ক্ষমতা দখল করে বসে আছে। কভে জনগণ এই মসিবত থেকে রক্ষা পাবে একমাত্র আল্লা ছাড়া আর কেউ জানেনা।মুসা বিন সমসের বেবসা বানিজ্য করে টাকা উপার্জন করেছে ,এই জন্য এই দেশে উনাকে বার বার অপদস্থ করার কি পয়োজন,বিদেশে বেবসা বানিজ্য করে সে দেশে এনেছেন সেটা দেশের সম্পদ দেশের উন্নত কিন্তু এই দরনের একজন লোককে অসম্মানিত করা কি উচিত,আমি মুসাবিন সমসের কে বলবে আপনি ভয় করবেন না,আপনি বিদেশে টাকা কামাই করে দেশে এনেছেন,সেটা দেশের জন্য মংগল হয়েছে।
Total Reply(0)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১১ অক্টোবর, ২০২১, ৪:২৭ পিএম says : 0
আমি মুচা বিন সমসেরর সাথে বেবসা বানিজ্য করতে চাই ,উনি রাজি কি না জানতে আগ্রহী।
Total Reply(0)
Tareq Sabur ১১ অক্টোবর, ২০২১, ৫:০৭ পিএম says : 0
এতদিন কোথায় গিয়েছিল এই সততার পর্দায় লুকানো ... ডিবি পুলিশগুলো?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন