বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২২ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

নাগাল্যান্ড রাজ্য জুড়ে বনধের ডাক

১৪৪ ধারা : নিহত বেড়ে ১৫

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে বেসামরিক নাগরিকদের হত্যার ঘটনায় উত্তপ্ত ভারতের নাগাল্যান্ড। এ ঘটনায় নিরাপত্তা বাহীনিকেই দুষছে নাগাল্যান্ড পুলিশ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মান জেলায় জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। ঘটনার প্রতিবাদে রাজ্যজুড়ে বনধের ডাক দিয়েছে নাগা স্টুডেন্ট ফেডারেশন ও ইস্টার্ন নাগাল্যান্ড পিপলস অর্গানাইজেশনসহ বেশ কয়েকটি সংগঠন।

নাগাল্যান্ডকান্ডের পরিপ্রেক্ষিতে লোকসভায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দাবি করলেন, জঙ্গিদের গতিবিধির বিষয়ে তথ্য মিলেছিল। সেইমতো সন্দেহভাজন এলাকায় তৈরি ছিলেন ২১ প্যারা স্পেশাল ফোর্সের জওয়ানরা। একটি গাড়ি সেখানে আসে। সেটিকে থামতে বলা হয়। কিন্তু সেটি পালানোর চেষ্টা করে। গাড়িতে করে জঙ্গিরা যাচ্ছে সন্দেহে গুলি চালানো হয়।

আসাম রাইফেলসের অভিযানে ১৫ বেসামরিক নাগরিক নিহত হওয়ার ঘটনায় ভারতের নাগাল্যান্ড রাজ্যে বিরাজ করছে থমথমে পরিস্থিতি। এদিকে বেসামরিক নাগরিকদের হত্যার উদ্দেশ্যেই অভিযান চালানো হয়েছে, এমন অভিযোগ এনে আসাম রাইফেলসের বিরুদ্ধে মামলা করেছে নাগাল্যান্ডের পুলিশ।
তবে আসাম রাইফেলস এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করলেও দাবি করেছে হামলা ঠেকাতে আত্মরক্ষার্থেই ফাঁকা গুলি ছুড়তে বাধ্য হয় তাদের জওয়ানরা।

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন নাগাল্যান্ডের মুখ্যমন্ত্রী নেফিউ রিও। নিহতদের পরিবারকে এককালীন ৬ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। নেফিউ রিও জানিয়েছেন, আহতদের চিকিৎসার যাবতীয় খরচ বহন করবে রাজ্য সরকার। সোমবার ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিকে এ ঘটনাকে গণহত্যা আখ্যা দিয়েছেন বিজেপির নাগাল্যান্ড রাজ্য সভাপতি তেমজেং ইমা আলং। রোববার টুইট করে নাগাল্যান্ডের ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইটে মমতা বলেন, ‘নাগাল্যান্ড থেকে খুব খারাপ খবর এসেছে। শোকাহত পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা রইল। যারা আহত হয়েছেন, তাদের দ্রæত আরোগ্য কামনা করছি।’ এ সময় ঘটনার তদন্তও দাবি করেন মমতা।
আগে জানা গিয়েছিল, ১৩ জন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়েছে। এই মৃত্যু সংখ্যা নিয়ে ধন্দ ছিল শুরু থেকেই। স্থানীয় আদিবাসী সংগঠন দাবি করে, মোট ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে পরে জানা যায় ১৩ জন নয়, শনি এবং রোববারের গুলিচালনার ঘটনায় মোট ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি নাগাল্যান্ড রাজ্য পুলিশের তরফে সেনার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

রাজ্য পুলিশের অভিযোগে বলা হয়েছে, গ্রামবাসীদের উপর হামলার উদ্দেশ্যেই ২১ প্যারা স্পেশাল ফোর্স গুলি চালায়, যার কারণেই এই হত্যাকান্ড। শনিবার এবং রবিবার পৃথক পৃথক গুলিচালনার ঘটনা ঘটে। তাতে মোট ১৫ জন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়েছে। সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস, ইটিভি বাংলা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন