বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

খাগড়াছড়িতে প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ

খাগড়াছড়ি জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২২, ৯:০৯ পিএম

এবার খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলায় প্রেমিকাকে (১৫) বেড়ানোর কথা বলে এনে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে এক প্রেমিক। অভিযুক্ত যুবকের নাম নাঈম মজুমদার (২২)। সে রামগড় পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের বলিটিলার নুরুল আমীন মজুমদারের ছেলে এবং সোনাইপুল বাজারের একটি কাপড়ের দোকানের কর্মচারী।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার(১৩ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে ভিকটিম কিশোরী নিজে বাদী হয়ে প্রেমিক নাঈম মজুমদারকে আসামী করে রামগড় থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ধর্ষক প্রেমিক গা ঢাকা দিয়েছে।

মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়, নাঈম মজুমদারের সাথে মোবাইলে পরিচয়ের পর প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে রামগড়ের পার্শ্ববর্তী ফটিকছড়ির বাগান বাজারের বড়বিলের বাসিন্দা ভিকটিম ওই কিশোরী (১৫)। গত ১০ জানুয়ারি বিকেলে বেড়ানোর কথা বলে প্রেমিকাকে রামগড়ে ফোন করে ডেকে আনে নাঈম। ঐদিন রামগড়ের বিভিন্ন স্থানে ঘুরাঘুরির পর রাত ৮ টার দিকে পৌরসভার বলিটিলা এলাকায় এক আত্মীয়র বাড়িতে ধর্ষণ করে নাঈম। পরে রাত পৌনে ৯টার দিকে ইজিবাইক ভাড়া করে ওয়াইফাপাড়া গ্রামে কিশোরীকে তার এক বান্ধবীর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় নাঈম। পরদিন ওই কিশোরী তার বাবা-মাকে ঘটনাটি জানায়।

স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, কিশোরীর আত্মীয়স্বজন প্রেমিক নাঈমের অভিভাবককে ঘটনাটি জানালে তারা এক লক্ষ টাকায় ধর্ষণের ঘটনার দফারফার প্রস্তাব দেয়। ভিকটিমের পরিবার বিয়ে ছাড়া অন্য কোনভাবে সমঝোতায় রাজী না- এমন সিদ্ধান্ত জানালে নাঈমের পরিবার ওই কিশোরীকে বিয়ে করাতে অসম্মতি জানায়। এ অবস্থায় অভিভাবকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভিকটিম কিশোরী বুধবার গভীর রাতে রামগড় থানায় উপস্থিত হয়ে নাঈম মজুমদারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

রামগড় থানার ওসি (তদন্ত) রাজীব কর বলেন, ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে এজাহার দাখিল করে। রাতেই নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০, সংশোধিত ৩ এর ৯(১) ধারায় মামলাটি রুজু হয়।

তিনি আরো বলেন, মামলা রুজুর পর ঐ রাতেই পুলিশ আসামীকে গ্রেফতার করতে অভিযান শুরু। মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে আজ বৃহস্পতিবার সকালে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন