বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সিলেটে ডাক্তারের ইনজেকশন পুশে এক যুবকের মৃত্যু, প্রতিবাদে স্বজনদের বিক্ষোভ

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৩:১২ পিএম

সিলেটের উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক যুবককে ইনজেকশন পুশ করার সাথে সাথে নাকে-মুখে রক্তক্ষরণ হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে এ ঘটনা ঘটে। রোগীর মৃত্যুর পর হাসপাতালে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ করেন স্বজনরা । এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় পুলিশও। মৃত্যু যুবকের নাম আব্দুল আহাদ (৪০)। সে শহরতলির আখালিয়া নতুন বাজারের মোহাম্মদিয়া আবাসিক এলাকায়র পংকি মিয়ার পূত্র। একসময় সৌদিআরব প্রবাসী ছিলেন তিনি। ব্যক্তিজীবনে এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক ্ওই যুবক।
মৃত্যু শ্যালক হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘আজ ভোর রাত ৪টার দিকে আব্দুল আহাদের বুকে ব্যথায় ধরে। পরে তাকে নিয়ে আসা হয় উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। তখন তিনি বেডে ভালোই ছিল। ডাক্তার প্রেসক্রিপশন লিখে দেন, আমরা ওষুধ নিয়ে আসি। পরবর্তীতে একটা ইনজেকশন পুশ করতেই মারা যায় সে। ইনজেকশন মারার সাথে সাথে নাকে-মুখে রক্তক্ষরণ হয়ে মৃত্যু ঘটে ওই যুবকের। এদিকে মৃত্যু যুবকের এক ভাগ্নে বলেন, ঘটনার পর কর্তৃপক্ষের কাছে যাই আমরা। কোন ডাক্তার চিকিৎসা করেছেন, তার নামও আমাদেরকে জানায়নি। আমরা বলেছি, ডাক্তারের নামটা বলেন, আমরা বুঝি যে কেন এমনটা ঘটলো। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বারবার বলছে, ‘সরি, সরি, ভুল হয়ে গেছে’। পরবর্তীতে আমরা প্রশাসন নিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে বসেছি। তখন তারা আর দুঃখিত বলেনি, বরং ধামাচাপা দিতে চাইছে।’ তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘ অনাকাঙ্খিত এই মৃতুতে ছোট ছোট দুটি বাচ্চা এতিম হলো, একজন মহিলা বিধবা হলেন। কে নেবে এর দায় ? আব্দুল আহাদের মৃত্যুর খবর পেয়ে তাঁর স্বজনেরা হাসপাতালে ভিড় করেন। তারা লাশ নিয়ে হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ করেন। শোরগোলের খবর পেয়ে উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান নগরীর ১৬নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া শাওন। তখন উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘এ হাসপাতালে সচরাচর এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। এই জায়গায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সচরাচর মানুষ ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন