শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ০৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মুহাররম ১৪৪৪

সারা বাংলার খবর

পদ্মা সেতুর এত বিপুল অর্থের হিসেব আমরা চাই, এটাই এখন বড় ইস্যু - ঠাকুরগাঁওয়ে মির্জা ফখরুল

যে সেতু থেকে বেগম জিয়াকে ফেলে হত্যার হুমকি দেওয়া হয় তার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠেনা

ঠাকুরগাঁও জেলাসংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০২২, ৫:৪৭ পিএম | আপডেট : ৮:১৬ পিএম, ১৪ জুন, ২০২২

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রশ্নের সুরে বলেন, পদ্মা সেতুর প্রথম ভিজিবিলিটি রিপোর্ট করে বিএনপি ১৯৯৪/১৯৯৫ সালে। সেই সময় ভিজিবিলিটি রিপোর্ট অনুসারে সাড়ে ৮ হাজর কোটি টাকা ব্যায় ধরা হয়। আর এখন সেতু নির্মানে খরচ হয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকা ? এতো টাকা কোথায় গেলো? তিনি অভিযোগ করে বলেন, পদ্ম সেতুর টাকা দিয়ে আরো ৩টি পদ্মা সেতু বানানো যেতো।

মঙ্গলবার বিকালে ঠাকুরগাঁও বিএনপি কর্যালয়ে মহিলা দলের আয়োজনে মতবিনিময় সভায় এসব অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল।

তিনি আরো বলেন,সরকার জনগণের জন্য উন্নয়ন করছেনা, নিজেদের পকেট ভরতে ও টাকা পাচার করতে উন্নয়ন করছে, সেখানে সাধারণ জনগণের কোন উন্নয়ন নেই। এই দেশে শতকরা ৪২% মানুষ দারিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে। লোক দেখানো উন্নয়নের নামে ৩ পদ্মা সেতুর টাকায় এক পদ্মা সেতু বানান ? এই টাকার হিসাব চাই আমরা, এটাই হচ্ছে এখন বড় ইস্যু।

কুমিল্লার সিটি নির্বাচন নিয়ে ফখরুল আরো মন্তব্য করেন, নির্বাচানী নিয়ম নীতি অনুসরণ করে একজন সাংসদকে নির্বাচনী এলাকা থেকে বের করতে পারেনি নির্বাচন কমিশন, এ থেকে বোঝা যায় নির্বাচন কমিশন কতটা ব্যর্থ, কতটা অসহায়।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে বিএনপির অংশগ্রহন নিয়ে মির্জা ফখরুল আরো বলেন, যে সেতু থেকে বেগম জিয়াকে ফেলে দিয়ে হত্যার হুমকি দেয় প্রধানমন্ত্রী, সেই অনুষ্ঠানে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠেনা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা মহিলা দলের সভাপতি ফোরাতুন নাহার প্যারিস, বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল আমিন সহ অন্যান্য নেতা কর্মীবৃন্দ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১৪ জুন, ২০২২, ৬:৩৭ পিএম says : 0
দুদকে চাকুরী নেয়া উচিত ফখরুল সাহেবের। তবে ২০০১-৬ এর‌ অনেক হিসাব‌ও পেন্ডীং রয়েছে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন