রোববার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ২১ শাবান সানি ১৪৪৫ হিজরী

মহানগর

কারাগারের বাইরে বিশেষায়িত হাসপাতালে রিজভীর চিকিৎসার দাবি বিএনপির

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২৩, ১০:৩৪ পিএম

কারাগারে গুরুতর অসুস্থ বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কারাগারের বাইরে বিশেষায়িত কোন হাসপাতালে চিকিৎসার দাবি জানিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত দফতর সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তিনি।

কারাগারে রুহুল কবির রিজভী গুরুতর অসুস্থ হবার সংবাদে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, অবিলম্বে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কারাগারের বাইরে বিশেষায়িত কোন হাসপাতালে হস্তান্তর করার ও নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। অন্যথায় আল্লাহ না করুন, রিজভী আহমেদের কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে এর দায়ভার সরকারকেই নিতে হবে। একই সাথে কারাগারে তার বিষয় স্পষ্ট করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি।

এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, আমরা গভীর উদ্বেগ এবং উৎকণ্ঠার সাথে জানাচ্ছি যে, কারান্তরীণ বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী গত ২দিন যাবৎ মারাত্মকভাবে অসুস্থ। আমরা জানতে পেরেছি তিনি বর্তমানে কারা হাসপাতালে ২দিন যাবৎ চিকিৎসাধীন আছেন এবং কোন খাবার খেতে পারছেন না। রুহুল কবির রিজভীর স্ত্রী আরজুমান আরা আমাদেরকে জানিয়েছেন, তিনিও এবিষয়ে বার বার যোগাযোগ করে কোন কিছু জানতে পারছেন না।

রিজভী আহমেদ আগে থেকেই অসুস্থ ছিলেন জানিয়ে প্রিন্স বলেন, স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে তিনি হরতালে গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন। সেসময় এবং পরবর্তীতে সড়ক দুর্ঘটনায় তার শরীরে অপারেশন হয়। গত ২ বছরে তিনি হৃদরোগে ও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। এছাড়াও তিনি বেশ কিছু জটিল রোগে আক্রান্ত ছিলেন।

'এরআগেও তিনি যখন কারাগারে বন্দি থাকাবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল। কারা হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা করানো সম্ভব ছিলনা বলেই বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল। '

গণতন্ত্র ও ভোটাধিকারের দাবিতে গড়ে ওঠা আন্দোলনে ভীত হয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা বেসামাল আচরণ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপি নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে অশালীর্ণ ভাষায় কথা বলছেন, যা রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত।

'স্বয়ং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, শেখ হেলালসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা কুরুচিপূর্ণ ভাষায় শুধু নেতৃবৃন্দকে নিয়ে নয়, আন্দোলন নিয়েও ব্যাঙ্গ বিদ্রুপ করছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আন্দোলনের গণজোয়ারে পতনের ভয়ে ভীত হয়ে তারা অরাজনৈতিক আচরণ করছে। আমরা তাদের প্রতি এধরনের অশালীণ, অরাজনৈতিক, কুরুচিপূর্ণ ভাষা পরিত্যাগ করে রাজনৈতিক শিষ্টাচার মেনে কথা বলবার আহবান জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা আবদুস সালাম আজাদ, শামীমুর রহমান শামীম, আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন