ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সোনালি আসর

সাদা বক ও শিকারি

| প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

সা ই দু ল   ই স লা ম : বকের ছানাগুলো ঠোঁট উঁচিয়ে বাসার মধ্যে বসে আছে মায়ের অপেক্ষায়। কখন মা আসবে আর কখন যে কিছু খাবে। সেই আধা ঘণ্টা আগে মা বকটি বেরিয়েছে তার মাত্র তিন দিনের বাচ্চাগুলোর জন্য খাবারের খোঁজে। হঠাৎ মা বকটি গালে কয়েকটি পুঁটিমাছ নিয়ে বাসায় হাজির হলো। বাচ্চাগুলো খাবারের জন্য আওয়াজ করছে খুব জোরে জোরে। তখনই মা বকটি টুপ করে গাল থেকে চার-পাঁচটা পুঁটিমাছ বের করে বাচ্চাগুলোকে খেতে দিল এবং বাচ্চাগুলো ক্ষণিকের মধ্যে গাপুসগুপুস করে পুঁটিমাছগুলো খেয়ে ফেলল।
এভাবেই বক ও তার বাচ্চাদের সুখের দিনগুলো চলছে গাছের ওপর একটি ছোট্ট বাসায়। দেখতে দেখতে বাচ্চাগুলো অনেক বড় হয়েছে। তাদের বয়স প্রায় তিন সপ্তাহ হয়েছে,  একটু একটু উড়তেও শিখেছে। মাঝে-মধ্যে মা বকটি তাদের নিয়ে উড়তে বের হয়। বাচ্চাগুলো তার আদরের চোখের তারা। সে তার বাচ্চাদের সব সময় আঁচলের তলে আগলে রাখে, বাইরে খুব কম বের করে, কখন জানি দুষ্টু শিকারি বা
দুষ্টু ছেলেদের খপ্পরে পরে। সব সময় ভয়ে ভয়ে থাকে সে।
মা বকটি খাবারের খোঁজে বের হয়েছে প্রায় আধা ঘণ্টা হলো কিন্তু এখনো ফেরেনি। এদিকে বাচ্চাগুলো খাবারের জন্য ছটফট করছে। মা বকটি প্রতিদিন বিভিন্ন খাল-বিল ও পুকুর থেকে মাছ ধরে আনে বাচ্চাদের জন্য। মা বকটির এভাবে প্রতিদিন মাছ খুঁজতে অনেক কষ্ট ও সময় লাগে। আজও মাছের খোঁজে এসেছে বিলে।
আজও মাছ খুঁজে পেতে খুব কষ্ট হচ্ছে। আবার ওদিকে বাচ্চাগুলোও ক্ষুধায় ছটফট করবে, তাই সে মাছের জন্য এদিক-ওদিক ছুটতে লাগল। বিলের পাশেই এক শিকারি তার ফাঁদ পেতে আড়ালে লুকিয়ে ছিল কখন যে একটা বক তার ফাঁদে পড়বে। মা বকটি ছোটাছুটি করতে করতে একসময় ভুলে পা পড়ে গেল সেই শিকারির ফাঁদে। মুহূর্তেই
বকটি পুরোপুরি আটকে গেল। এদিকে শিকারি তা দেখে খিলখিলিয়ে হাসতে লাগল। বেচারি বক আটকে রইল সেই শিকারির ফাঁদে। আর এদিকে বাচ্চাগুলো খাবারের জন্য মায়ের অপেক্ষায় রইল, কিন্তু মায়ের আর খাবার নিয়ে ঘরে ফেরা হলো না এবং বাচ্চাগুলোর মুখও দেখা হলো না।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন