ঢাকা, বুধবার ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

মহিলা

তপ্ত গরমে সতেজ থাকার টিপস

| প্রকাশের সময় : ২৫ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

মাঠফাটা রোদের তপ্ত গরমে মানব জীবনের বেহাল দশা। চারপাশে গ্রীষ্মের প্রচÐ তাপদাহ। সময় ও জীবনের এমন সমীকরণে আগামীর পথে এগিয়ে যেতে শরীর ও মনকে সতেজ রাখা জরুরি। সূর্যের তাপে কর্মজীবী মানুষের প্রাণ ওষ্ঠাগত। তাপদাহের তীব্রতায় ছাত্রছাত্রীদের লেখাপড়া নিয়ে দিশেহারা শিক্ষক ও অভিভাবক। নাভিশ্বাস ছড়াচ্ছে গৃহিনীদের রান্নাঘরে। সর্বোপরি গরমের দাপটে নাকাল দেশবাসী, বিশেষ করে নারী ও শিশুর নাজুক অবস্থা। তার মধ্যেও ছুটতে হয় সারাদিন। চাকরি, ব্যবসা, শিক্ষা ও নানান দরকারে ঘর থেকে বেরুচ্ছি আমরা। গরম, ধুলো-ময়লা এতকিছুর মধ্যে বাইরে বেরুনো যেমন জরুরি, তেমনি জরুরি নিজের শরীর-স্বাস্থ্যের প্রতি নজর রাখাও। আর এজন্য আপনাকে কয়েকটি বিষয় ভালোভাবে মেনে চলতে হবে। এখানে সতেজ থাকার ৫টি টিপস দেয় হলো।

প্রচুর পানি পান করুন
বাসা থেকে বের হলে অবশ্যই সাথে একটি পানির বোতল রাখবেন। গরমে রোদে বের হলে খুব দ্রæত আমাদের দেহ পানিশূন্য হয়ে পড়ে। সেজন্য দেহে পানিশূন্যতা রোধে পানি পান করা খুব জরুরি। তাই পানিশূন্যতা রোধে ওরস্যালাইন কিংবা টেস্টি স্যালাইন নিয়মিত পান করুন।
পানি সমৃদ্ধ খাবার খান
খাবার তালিকায় পানীয়যুক্ত খাবারের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন। শুকনো খাবার এবং যে খাবার দেহের পানি শুষে নেয়, সেসব খাবার থেকে দূরে থাকবেন। আগের চাইতে দ্বিগুণ পরিমাণ পানি পান করবেন। শুধু পানি নয়, তরল যেকোনো কিছু যেমন ডাবের পানি, আখের রস, যে কোনো ফলের রস ইত্যাদি পান করুন ও পানিসমৃদ্ধ ফল খান।
রোদ থেকে মাথা রক্ষা করুন
রোদের তীব্রতা থেকে রক্ষা করুন মাথা এবং মাথার ত্বক। সাথে রাখুন ছাতা, স্কার্ফ বা ক্যাপ। সরাসরি রোদ মাথায় পড়তে দেবেন না। তীব্র রোদ সরাসরি মাথায় পড়লে আমাদের মস্তিষ্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং খুব সহজে আমরা ক্লান্ত হয়ে পড়ি।
রক্ষা করুন ত্বক
গরম বেশি লাগলেও কষ্ট করে একটু লম্বা ধরনের জামা কাপড় পরাই উত্তম। কারণ এতে করে রোদ সরাসরি ত্বকে পড়বে না। কিন্তু যদি বেশি গরম লাগে এবং ঢাকা কাপড় পরতে অসুবিধা হয়, তবে অবশ্যই ত্বকে ভালো এবং বেশি এসপিএফ মাত্রার সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। এতে ত্বকের আর্দ্রতা ঠিক থাকবে।
প্রতি বেলার খাবার ঠিক রাখুন
যারা ডায়েটিং করেন কিংবা ব্যস্ততার কারণে খাবার বাদ দেন তারা গরমের সময় এই কাজটি ভুলেও করতে যাবেন না। এতে করে অসুস্থ হয়ে পড়ার সম্ভাবনাই বেশি। এই সময় ভালো, পুষ্টিকর, স্বাস্থ্যকর এবং পানিসমৃদ্ধ খাবার খাওয়া অনেক বেশি জরুরি শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য।
প্রতিদিন পরিমিত ঘুমাবেন, দুশ্চিন্তা এড়িয়ে চলবেন। পেটের অসুখ যেন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন। নিয়মিত হালকা ব্যায়াম করুন।
নিজের প্রতি আস্থা রাখুন, সব সময় পজেটিভ ধারণা পোষণ করুন। আপনার সকল চাওয়া পাওয়ার জন্য স্রষ্টার সাহায্য প্রার্থনা করুন। জীবনের সব ক্ষেত্রে বিধাতার নিয়ম-নীতি মেনে চললে আপনার সুখ, সৌন্দর্য ও ঐশ্বর্য আপনার নিয়ন্ত্রণে থাকবে।
য় আলম শামস

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন