বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

নিজেদের উদ্যোগে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ ব্রিজ না থাকায় কয়েক গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ নিত্যসঙ্গী

প্রকাশের সময় : ২৩ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা

খরিয়া নদীর উপর পয়ারী টু গোপ্তেরগাঁও একটি ব্রিজের অভাবে শিক্ষা বঞ্চিত ও অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে রয়েছে ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার গোপ্তেরগাঁও ও এর আশপাশের কয়েক গ্রামের মানুষ। উপজেলা শহর থেকে ৫/৬ কিলোমিটার দূরে গোপ্তেরগাঁও গ্রাম। গ্রামটি এতই অবহেলিত ও নিগৃহীত যে, স্বাধীনতার ৪৫ বছরেও গড়ে উঠেনি এখানে কোন উচ্চ শিক্ষার প্রতিষ্ঠান। এখানে কৃষকের রক্ত পানি করে ফলানো ফসল ভালো দামে বিক্রিও করা যায় না, এলাকায় গাড়ি প্রবেশ করার জন্য কোনো পাকা রাস্তা নেই, কাঁচা রাস্তা থাকলেও নেই কোনো ব্রিজ। এটি একটি কৃষি সমৃদ্ধ এলাকা। শাকসবজি, সরিষা, ধান, ডাল, আখ, গম, মরিচ, মিষ্টি আলু, খিরা, তরমুজ ইত্যাদিসহ হেন কোন ফসল নেই যা খরিয়া নদীর পাড় ঘেঁষা এই এলাকায় ফলে না। কৃষিনির্ভর এসব এলাকার মানুষ তাদের ফলানো ফসল একটি ব্রিজের অভাবে যথাসময়ে যথাস্থানে পৌঁছাতে না পেরে ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। শুধু তাই না, পয়ারী গোকুল চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়, পয়ারী ডালের বাজার সংলগ্ন আলিম মাদ্রাসাসহ খরিয়ার দক্ষিণ পাড়ে গড়ে ওঠা উন্নত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে উন্নত ও উচ্চ শিক্ষার জন্য যেতে পারেন না গোপ্তেরগাঁও, মুলাকান্দি, মামুদপুর, ছোট শুনই, বড় শুনইসহ এর আশপাশের এলাকার শত শত ছাত্রছাত্রী। ফলে একদিকে যেমন কৃষক বঞ্চিত হচ্ছে তার অর্জিত ফসলের ন্যায্যমূল্য পাওয়ার অধিকার থেকে, অন্যদিকে উচ্চ ও উন্নত শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কৃষকেরই সম্ভাবনাময় আদরের ছেলেমেয়েরা। মামুদপুর হয়ে শেরপুর রোড দিয়ে অনেক ব্যয়সাধ্যভাবে প্রতিবছর এখান থেকে প্রায় কোটি টাকার শস্য রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রপ্তানি করা হয়ে থাকে। অত্র এলাকার মানুষ এ যাবৎ অনেক দুঃখ-কষ্ট সয়ে আসলেও কোনো চেয়ারম্যান, মেম্বার বা নেতা-নেত্রী তাদেরকে উপহার হিসেবে দিতে পারেননি একটি ব্রিজ। দীর্ঘ ত্যাগ-তিতিক্ষা ও অপেক্ষার পর এলাকাবাসী তাদের নিজ উদ্যোগে হাজার হাজার বাঁশ জোগাড় করে সন্তানাদির লেখাপড়া ও উপার্জিত শস্যাদি অন্তত যাতে মাথায় করে পাড় করা যায় সেই লক্ষে বিশাল নদী খরিয়ার বুকে গড়ে তোলেন ব্রিজের ন্যায় অনেক লম্বা বাঁশের সাঁকো। মাত্র দেড়শ’, ২০০ গজ দূরত্বের ব্যবধানে তারা দুটি বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেন। এখানে পয়ারী টু গোপ্তেরগাঁও একটি ব্রিজ নির্মাণ করা হলে শিক্ষাদীক্ষা ও অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধশালী ও সম্ভাবনাময় হয়ে গড়ে ওঠতে পারে গোপ্তেরগাঁও, মুলাকান্দিসহ খরিয়া নদীর তীর ঘেঁষা আশপাশ এলাকা। স্থানীয় এমপি শরীফ আহমেদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে আশু ব্রিজটি নির্মাণের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন