শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

গঙ্গাচড়ায় নানা রোগের প্রাদুর্ভাব হাসপাতালে বাড়ছে ভিড়

মেরামত ও সংযোগের নামে লোডশেডিং

প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

গঙ্গাচড়া (রংপুর) উপজেলা সংবাদদাতা
রংপুর জেলার গংগাচড়া উপজেলায় লোডশেডিং আর তীব্র গরমে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। প্রচ- তাপপ্রবাহ, লোডশেডিংয়ে সবচেয়ে কষ্টের শিকার হচ্ছে শিশু, বৃদ্ধ-বৃদ্ধা, এইচএসসি পরীক্ষার্থী ও স্বল্প আয়ের মানুষ। গত কয়েকদিনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির সংখ্যা কমে গেছে। জানা গেছে, গত দুই মাস ধরে বিদ্যুৎ লাইন মেরামত ও সংযোগের নামে প্রচ- গরমের মাসেও দিনেরাতে ৫/৬ ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকছে না। বিকেলে দেখা মিললেও গড়ে প্রায় ৪/৫ বার যাওয়া আসার দোলাচল চলে। এখানেই শেষ নয়, সামান্য বাতাস ও আকাশে মেঘ দেখলেই সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়। গঙ্গাচড়া ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী শামিমা আকতার ও মহিলা ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী লাবনী আক্তার বলেন, প্রচ- তাপ ও তার ওপর আবার বিদ্যুতের তীব্র সংকট আমরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছি। গরমের কারণে ডায়রিয়া, জ্বর, সর্দি-কাশি, হাম, বসন্তসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বিসিই কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের স্বত্বাধিকারী সারোয়ার জাহান শাওন বলেন, পল্লী বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের কারণে সিডিউল অনুযায়ী প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। গঙ্গাচড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও প প কর্মকর্তা আবু মো. জাকিরুল ইসলাম জানান, ইতোমধ্যে হাসপাতালে রোগীদের ভিড় বেড়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে শিশুদের সংখ্যা বেশি। এদিকে ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের ফলে গঙ্গাচড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর গঙ্গাচড়া জোনাল অফিসের ডিজিএম অকিল কুমার রায় এর ওপর শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ীসহ সচেতন মহলের ক্ষোভ বেড়েছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর গঙ্গাচড়া জোনাল অফিসের ডিজিএম বলেন, রংপুর গ্রিডের সমস্যার কারণে এবং চাহিদার চেয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ কম পাওয়ায় গঙ্গাচড়ায় লোডশেডিং হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন