ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

অভ্যন্তরীণ

শ্যামনগরে গ্রামীণ সড়কে ভোগান্তি

খুঁড়ে রাখা হয়েছে দুই বছর

সাতক্ষীরা থেকে আবদুল ওয়াজেদ কচি | প্রকাশের সময় : ২০ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

দুই বছর ধরে আটকে আছে শ্যামনগর উপজেলার ঈশ্বরীপুর ইউনিয়ন পরিষদ হতে হরিননগরহাট ভায়া ধুমখালি সড়ক ও ঈশ্বরীপুর ইউনিয়ন পরিষদ হতে পরানপুরহাট ভায়া রমজাননগর সড়ক নির্মাণ কাজ।
দুই বছর ধরে রাস্তাটি খুড়ে রাখা হলেও শেষ হচ্ছে না নির্মাণ কাজ। এতে জনভোগান্তি চরম আকার ধারণ করেছে। প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। নির্মাণাধীন রাস্তা লাগায়ো কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা দুর্ভোগ পোহাচ্ছে দুই বছর ধরে।
সড়ক সংস্কার দ্রুত শেষ করার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য, স্থানীয় বাসিন্দা ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের সহযোগিতা চেয়ে বার বার চিঠি দিলেও তাতে সাড়া দেয়নি প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান সাতক্ষীরা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ (কেডিআরআইডিপি)।
সূত্র জানায়, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে দুটি রাস্তার মোট সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার পাকা করার জন্য ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কাজটি বাস্তবায়নে দরপত্র আহবান করে উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ। এই রাস্তার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আছে দুটি বাজার, তিনটি স্কুল।
এবারই প্রথম ইজিপিতে দরপত্র আহবান করায় ৭ শতাংশ কম দরে কাজ পায় মেসার্স রাবেয়া ট্রেডার্স। যাতে সরকারের প্রায় ৬০ লাখ টাকা বেঁচে যায়। মূলত কাজ কম দরে পাওয়ার কারণে দুই বছর ধরে আটকে রয়েছে নির্মাণ কাজ।
শুরুতে কাজের অগ্রগতি বেশ দ্রুত হয়। ২০১৭ সালের জুনে রাস্তার লেয়ার ও মেকাপের কাজ শেষ হলেও অজ্ঞাত কারণে বিল আটকে দেয় প্রকৌশল বিভাগ। এতে জটিলতায় পড়তে হয় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে। পরে এখানকার প্রকৌশলী পরিবর্তন হলেও রাস্তার কাজের কোন অগ্রগতি হয়নি।
এই ঘটনায় স্থানীয় এমপি এস এম জগলুল হায়দার স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রধান প্রকৌশলী বরাবর কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য কয়েক দফা চিঠি দেন। এমনকি সংসদ সদস্য প্রধান প্রকৌশলীর সঙ্গে দেখাও করেন।
এ বিষয়ে এমপি জগলুল হায়দার বলেন, আমার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী অবহেলিত শ্যামনগরবাসীর প্রাণের দাবি ঈশ্বরীপুর ইউপি রাস্তা উন্নয়নের স্বার্থে সকল জটিলতা নিরসনের জন্য স্থানীয় সরকারের প্রধান প্রকৌশলীকে চিঠি দিয়েছি। এমনকি আমি দেখা করেও বলেছি। অতিদ্রুত এই রাস্তার কাজ শেষ করা দরকার। জনগণ চরম ভোগান্তিতে আছে।
শ্যামনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল হক দোলন বলেন, এই রাস্তার কাজ শেষ না হওয়ায় লোকজন অত্যন্ত দুর্ভোগ পোহাচ্ছ। এর জটিলতা নিরসন হওয়া দরকার।
এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী শামসুজ্জামান জানান, ওই কাজের দর নিয়ে একটু জটিলতা ছিল। সেটা নিরসন হওয়ার পথে। খুব দ্রুত আবার রাস্তার কাজ শুরু হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন