ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

অভ্যন্তরীণ

তিস্তায় তলিয়েছে নিম্নাঞ্চল

দেখা দিয়েছে ভাঙন আতঙ্ক

পীরগাছা থেকে সরকার রবিউল আলম বিপ্লব | প্রকাশের সময় : ২৩ জুন, ২০১৯, ১২:৩০ এএম

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে রংপুরের পীরগাছায় তিস্তা নদীতে আকস্মিকভাবে পানি বেড়ে যাওয়ায় বাদামসহ উঠতি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গত মঙ্গলবার থেকে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলেও গত শুক্রবার পানি কমতে শুরু করায় দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন আতঙ্ক।

সরেজমিনে জানা যায়, গত মঙ্গলবার থেকে হঠাৎ করেই তিস্তার পানি বৃদ্ধি শুরু হয়। এতে উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের গাবুড়া, শিবদেবচর, আমিনপাড়া, চরছাওলা, কামারের হাট, রামসিং ও জুয়ানের চরসহ প্রায় ১০টি গ্রামের নিম্নঞ্চলের বাড়ি-ঘরসহ উঠতি ফসল পানির নিচে তলিয়ে যায়। গ্রামগুলোতে অবস্থিত প্রায় ৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় পানিবন্দি হয়ে পড়ে।

আকস্মিক পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চরাঞ্চলের ৫০ হেক্টর জমির বাদাম ও আগাম মরিচসহ রবি শস্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
চরাঞ্চলে কৃষকেরা বাদাম তোলা শুরু করেছিল। শতাধিক কৃষক বাদাম তুলে চরেই শুকোতে দিয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ রাতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উত্তোলনকৃত সব বাদাম ভেসে যায়। এতে ওই কৃষকেরা নি:শ^ হয়ে পড়েছে। গত শুক্রবার সকাল থেকে পানি কমতে শুরু করায় ছাওলা ইউনিয়নের গাবুড়ার চরসহ আশেপাশের কয়েকটি এলাকায় নদী ভাঙন শুরু হয়েছে।

উপজেলা জুয়ানের চর গ্রামের আফছার আলী বলেন, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হঠাৎ করে তিস্তার পানি বাড়তে শুরু করে। রাতের মধ্যে চরাঞ্চলের ফসলি জমি ও ঘরবাড়ি পানির নিচে তলিয়ে যায়।

শিবদেব চর গ্রামের আশরাফুল ইসলাম জানান, আকস্মিকভাবে তিস্তা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বাদাম ও মরিচসহ উঠতি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বর্তমানে পানি কমতে থাকায় ভাঙন আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) আব্দুল আজিজ জানান, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের তালিকা তৈরীর কাজ চলছে।
পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জেসমীন প্রধান বলেন, তিস্তার পানি আকস্মিক বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন