ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

অভ্যন্তরীণ

গাড়ির স্টিয়ারিংয়ে কিশোর : ঝুঁকিতে যাত্রী

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক

কুমিল্লা থেকে সাদিক মামুন | প্রকাশের সময় : ২৪ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

নেই ড্রাইভিং লাইসেন্স। নেই মহাসড়কে চলাচলের সংকেত সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা। তারপরও শত শত কিশোর লেগুনা, মারুতি, সুজকি ও ফিটনেসহীন লক্কর-ঝক্কর মাইক্রোবাসের চালকের আসনে নিয়মিত ড্রাইভার। এসব অনভিজ্ঞ কিশোর চালকের হাতে গাড়ির স্টিয়ারিং ঘিরে মহাসড়কে ঘুরছে সাধারণ যাত্রীদের জীবনচাকা। প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় দিন দিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে অনভিজ্ঞ লাইসেন্সহীন কিশোর চালকদের গাড়ির স্টিয়ারিংয়ের হাল ধরার প্রতিযোগিতা বেড়ে চলছে। ধরা পড়লে হাইওয়ে থানা পুলিশ বা সার্জেন্টের হাতে টাকা গুজে দিয়ে সমস্যা মিটিয়ে ফেলছে।

মহাসড়কে থ্রিহুইলার বাহন বন্ধ হওয়ার পর লেগুনা, মারুতি ও লক্কর-ঝক্কর মাইক্রোবাস হরদম চলছে। আর এসব বাহনের চালকের আসন দখল করে নিয়েছে শিশু-কিশোররা। যাত্রীরা অনেকটা নিরুপায় হয়েই কিশোর চালকের গাড়িতে চড়ে বসেন। অথচ এমন চালকের হাতে স্টিয়ারিং ওঠে আসায় প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। চলাচলের ফিটনেস সার্টিফিকেট, রুট পারমিট এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া কিশোর চালকের হাত ধরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে শত শত লেগুনা মারুতি ও লক্কর-ঝক্কর দরজাখোলা মাইক্রোবাস ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে দাবড়িয়ে চলছে। কুমিল্লা হাইওয়ে পুলিশের দাবি, কিশোর চালকরা এ ধরণে যানবাহনে চালকের আসনে বসে কর্তব্যরত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়েই চলাচল করছে।
অনুসন্ধানে দেখা গেছে, দেশের ব্যস্ততম ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দির গৌরিপুর থেকে ক্যান্টনমেন্ট, আলেখারচর, পদুয়ারবাজার এবং শহরের শাসনগাছা এলাকা পর্যন্ত হিউম্যান হলার-লেগুনা, লক্কর ঝক্কর মাইক্রোবাস, মেক্সি এবং লেগুনার আদলে মিনি পিকআপভ্যানেও যাত্রী পরিবহন করছে। এ ধরণের ৪০ ভাগ যানবাহনেরই স্টিয়ারিং হাতে নিয়েছে অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোররা। নামমাত্র শিখে ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়াই ওরা বসেছে চালকের আসনে। আবার কিশোর চালকদের হেলপার হিসেবেও যাত্রী উঠানো, নামানো ও ভাড়া আদায়ের কাজটি করছে শিশুরা। মহাসড়কে অনভিজ্ঞ ও ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়াই লেগুনাসহ এধরণের যানবহনগুলোর কিশোর চালকরা এখন আতঙ্কের আরেক নাম। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ রয়েছে লেগুনা, মারুতিসহ স্বল্পগতির গাড়ি মহাসড়কে চলতে পারবে না। অথচ থানা ও হাইওয়ে পুলিশের চোখের সামনে দিয়েই যাত্রী ওঠানামা করে নির্বিঘেœ চলাচল করছে শত শত লেগুনা, মারুতি ও লক্কর-ঝক্কর দরজাখোলা মাইক্রো।
হাইওয়ে পুলিশ কুমিল্লা অঞ্চলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রহমত উল্লাহ অপু বলেন, মহাসড়কে লেগুনাসহ এধরণের যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এরপরও হাইওয়েতে কর্তব্যরত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে চলছে। এসব যানবাহনের বেশিরভাগ চালকই কিশোর। যাদের ড্রাইভিং পেশায় আসার বয়স হয়নি। এধরনের যানবাহনের মালিকরা স্বল্প বেতনে কিশোর চালক, হেলপার রাখছে। এক্ষেত্রে মালিকরা নিরুৎসাহিত হলে লেগুনা, মারুতি বা লক্কর ঝক্কর মাইক্রোবাসের চালকের আসনে এবং হেলপার পদে অপ্রাপ্তবয়স্ক চালক ও হেলপার প্রবণতা কমে আসবে। সর্বোপরি মহাসড়কে অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোরদের দিয়ে গাড়ি চলাচল ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া ও অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ গাড়ি চলাচল বন্ধে হাইওয়ে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন