ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

সম্পাদকীয়

টেকসই বর্জ্য ব্যবস্থাপনা

| প্রকাশের সময় : ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০২ এএম

সঠিক ও টেকসই বর্জ্য ব্যবস্থাপনার অভাবে দেশের পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য মারাত্মক হুমকির সম্মুখীন। নীতিগত দিক দিয়ে বিবেচনা করলে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার কোনো আইন দেশে নেই। রাজধানী ঢাকাসহ পৌর শহরগুলোর মূল চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে এই বর্জ্য ব্যবস্থাপনা। প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের হাজার হাজার টন বর্জ্য তৈরি হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে শিল্পকারখানার বর্জ্য, ইলেকট্রনিক বর্জ্য, চিকিৎসা বর্জ্য, গৃহস্থালি বর্জ্য,পয়ঃবর্জ্য প্রভৃতি। বর্জ্য ব্যবস্থাপনার দিকে এখনই নজর না দিলে এবং সচেতন না হলে এমন একসময় আসবে, যখন প্রাকৃতিক পরিবেশ, মানুষের স্বাস্থ্য ও জীবন হুমকিতে পড়বে। বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সঙ্গে নগরের স্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের বিষয়টি জড়িত। শহর এলাকার জনসংখ্যা যেমন বেশি, তেমনি বিভিন্ন ধরনের বর্জ্যের উৎপাদনও বেশি। সিটি করপোরেশন এলাকার জৈব বর্জ্যকে বায়োগ্যাস ও জৈব সারে রূপান্তর করতে পারলে তা দিয়ে জ্বালানির জোগানসহ জমির উর্বরতা শক্তি বৃদ্ধি করা সম্ভব। সীমিত সম্পদের এ দেশে একই জিনিস সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বারবার ব্যবহার কিংবা ব্যবহূত জিনিস ফেলে না দিয়ে তা থেকে নতুন জিনিস তৈরি করা যেতে পারে। পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোতে বিভিন্ন ধরনের বর্জ্য সংগ্রহ করে নির্দিষ্ট ভাগাড়ে রাখা হয়। তারপর সেগুলো পরিশোধন বা রিসাইক্লিং করে অন্য প্রয়োজনীয় জিনিস তৈরি করা হয়। তাই স্বাস্থ্যকর ও বাসযোগ্য পরিবেশের কথা চিন্তা করে হলেও আজ কিংবা কাল টেকসই বর্জ্য ব্যবস্থাপনার দিকে নজর দিতেই হবে। ফলে সম্পদের পুনরায় ব্যবহারের মাধ্যমে যেমন লাভবান হওয়া যাবে, তেমনি পরিবেশ ও মানবস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিও রোধ করা সম্ভব হবে।
সাধন সরকার
শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন