ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বহিষ্কারের দ্বারপ্রান্তে তুরস্কের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দাভুতোগলু

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৪:১৫ পিএম

তুরস্কের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দাভুতোগলুকে ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি (একেপি) থেকে বহিষ্কারের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে৷ তবে কবে নাগাদ তাকে দল থেকে বের করে দেওয়া হবে এখনও তা নিশ্চিত নয়৷

তুরুস্কের প্রধানমন্ত্রী রজব তৈয়ব এরদোগান দলের শীর্ষ পদে পরিবর্তন আনবেন বলে যে গুঞ্জন রয়েছে তার মধ্যই এই খবর পাওয়া গেল৷ এরদোগান একেপি পার্টির সদস্যদের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে দলটির অন্যতম নেতা, সাবেক প্রধানমন্ত্রী আহমেত দাভোগোগলুকে বহিষ্কারের প্রক্রিয়া শুরু করেন৷ এই পদক্ষেপ বাস্তবায়নের জন্য গত সোমবার দলটির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা এর পক্ষে ভোট দেন৷

তুরস্কের সংবাদ সংস্থা আনাডুলুর তথ্যানুযায়ী, এই কমিটি দলের তিনজন সদস্যকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ তবে কেন তারা এই সিদ্ধান্তে এসেছে তা জানা যায়নি এবং কবে, কখন এই বহিষ্কারাদেশ কার্যাকর করা হবে তাও নিশ্চিত নয়৷

দলের কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকের আগে এরদোগান দলে নতুন সদস্যদের নিয়োগের কথা বলেছিলেন৷ কনয়া শহরে ওই বৈঠকে তিনি বলেন, ‘আমাদের দলে যদি এমন কিছু লোক থাকে যারা কাগজে কলমে দলের সদস্য হলেও আমাদের সাথে মতভেদ রয়েছে তবে তাদের চিহ্নিত করা হবে৷’

২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন দাভুতোগলু৷ তিনি একেপির নীতি, সরকারের অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা এবং এরদোগানের সমালোচনা করেছিলেন৷

সম্প্রতি তিনি ইস্তাম্বুলের মেয়র নির্বাচন নিয়ে একেপির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কথা বলেন৷ গত মার্চ মাসে ওই নির্বাচনে বিরোধী দলের নেতা একরাম ইমামোগলুর কাছে তাদের প্রার্থী হেরে যান৷ ওই সময় তিনি টুইট করেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলো গণতন্ত্রের নোঙর এবং একই সঙ্গে আমাদের একাত্মতার ধারণা৷

এছাড়া নিষিদ্ধ কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) সঙ্গে সংশ্লিষ্টার অভিযোগ তুলে ডিয়ারবাকির, মারডিন এবং পূর্ব তুরস্কের ভানের তিনজন কুর্দিপন্থী মেয়রকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার এরদোগানের সিদ্ধান্তেরও সমালোচনা করেন দাভুতোগলু৷ দাভুতোগলুকে একেপি পার্টি থেকে চলে গেলে একজন শীর্ষ রাজনীতিবিদকে হারাবে দলটি৷ সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী আলী বাবাকান গত জুলাইয়ে এই দল ছাড়েন৷

তুর্কি গণমাধ্যমগুলো বলছে, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও একেপির সহ-প্রতিষ্ঠাতা আবদুল্লাহ গুলের সঙ্গে মিলে জোট বেঁধে একেপিকে চ্যালেঞ্জ জানাতে নতুন দল গঠন করতে পারেন তারা৷ সূত্র: ডয়চে ভেলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন