ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিশ্বব্যাপী প্রাধান্য বিস্তার করছে তুরস্কের টিভি

‘সোপ অপেরা নয়, ডিজি’

ফাতিমা ভুট্টো, দ্য গার্ডিয়ান | প্রকাশের সময় : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

ইস্তাম্বুলের বোলগাজিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৌখিক ইতিহাসের শিক্ষক ড. আরজু ওজতুর্কমেন কড়া গলায় আমাকে বললেন, প্রথমেই আমাদের যে ব্যাপারে মতৈক্যে পৌঁছনো উচিত তা হচ্ছে ওগুলোকে সোপ অপেরা না বলা। আমরা এটা বলা একেবারেই পছন্দ করি না। তুরস্ক এখন টেলিভিশনের জন্য যা তৈরি করছে সেসব সোপ অপেরা, টেলিনভেলা বা পিরিয়ড ড্রামা নয়, সেগুলো হচ্ছে ডিজি। আরজু বলেন, অসাধারণ বক্তব্য, স্পেস ব্যবহার ও সঙ্গীত আবহের দিক দিয়ে সেগুলো উন্নত এবং অত্যন্ত জনপ্রিয়।

আন্তর্জাতিক বিক্রয় ও বিশ্বব্যাপী দর্শকদের ধন্যবাদ যে, বিশ্বব্যাপী টিভি অনুষ্ঠান পরিবেশনের দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পরই তুরস্কের স্থান দ্বিতীয়। রাশিয়া, চীন, কোরিয়া ও ল্যাটিন আমেরিকায় রয়েছে তুর্কি টিভির বিপুল দর্শক। এ মুহূর্তে ডিজির শো বিক্রির সংখ্যার দিক দিয়ে চিলি হচ্ছে বৃহত্তম ভোক্তা, অন্যদিকে মেক্সিকো, তারপর আর্জেন্টিনা সবচেয়ে বড় ক্রেতা।

ডিজির এপিসোডগুলোর দৈর্ঘ্য সাধারণত দু’ঘন্টা বা তারও বেশি। তুরস্কে বিজ্ঞাপনের সময় সস্তা এবং রাষ্ট্রীয় সম্প্রচার ওয়াচডগের ম্যান্ডেট হচ্ছে প্রতি ২০ মিনিট অনুষ্ঠানের ৭ মিনিট ভেঙে বাণিজ্যিক বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা যাবে। প্রতিটি ডিজির নিজস্ব মূল সাউন্ডট্র্যাক আছে এবং ৫০টি পর্যন্ত প্রধান চরিত্র রাখতে পারে। আশা করা হয় যে, তারা ঐতিহাসিক ইস্তাম্বুলের লোকেশনে চিত্রায়ন করবে, জরুরি প্রয়োজনেই শুধু স্টুডিও ব্যবহৃত হবে।
ইস্তাম্বুলের এক তরুণ চিত্রনাট্যকার ও চলচ্চিত্র নির্মাতা এসেত আমাকে বলে, ডিজির গল্পকাররা হতে পারেন ডিকেন্স থেকে ব্রন্টি বোনেরা, গল্পগুলোতে গণধর্ষণ থেকে কুচক্রি ওসমানীয় সম্রাজ্ঞী সবকিছুই থাকতে পারে। প্রতি বছর তুর্কি টিভিতে আমরা সিন্ডারেলার গল্পের কমপক্ষে দুটি ভাষ্য বলি, কখনো সিন্ডারেলা ৩৫ বছর বয়সিনী এক শিশুর মা সংগ্রামরতা নারী কখনো বা ২২ বছর বয়স্কা অনাহারী এক অভিনেত্রী। এসেত, সম্ভবত যে সবচেয়ে বিখ্যাত ডিজি ‘ম্যাগনিফিসান্ট সেঞ্চুরি’তে কাজ করেছে, সেসব আখ্যান থিমের কথা স্মরণ করে যেগুলোর প্রতি সাধারণত ডিজি বিশ^স্তঃ

* আপনি আপনার নায়কের হাতে কোনো বন্দুক রাখতে পারেন না।
* যে কোনো নাটকেরই কেন্দ্রবিন্দু হবে পরিবার।

* বহিরাগতরা সব সময়ই এক আর্থ-সামাজিক বিন্যাসের মধ্যে ভ্রমণরত থাকবে যা তাদের নিজস্ব অবস্থানের বিপরীত প্রান্ত অর্থাৎ গ্রাম থেকে শহরে আগমন করবে।

* নাটকে যিনি হার্টথ্রব হবেন তিনি বাস্তবে হবেন ভগ্নহৃদয় এবং বেদনাদায়ক ভালাবাসায় কাতর।
* কোনো কিছুই ত্রিভুজ প্রেমকে আঘাত করবে না।

এসেত বলেন, ডিজি নির্মিত হয় সাম্প্রদায়িক লিপ্সার বেদিতে যা উভয়ই শ্রোতা-দর্শকের জন্য। আমরা ভালো ছেলেকে ভালো মেয়ের সাথে দেখতে চাই, কিন্তু আপনাকে মানতে হবে যে, জীবনের খারাপ দিকও আছে, চারপাশে আছে খারাপ চরিত্র।

গ্লোবাল এজেন্সি ইস্তাম্বুলভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠান। এ প্রতিষ্ঠান নিজেদের বিশ্ব বাজারের শীর্ষস্থানীয় স্বাধীন টিভি অনুষ্ঠান বিতরণকারী হিসেবে প্রচার করে। এর প্রতিষ্ঠাতা ইজ্জত পিন্টুর মতে, ডিজি সাম্রাজ্যবাদের বিস্তার শুরু হয় ২০০৬ সালে ‘বিনবির জেসে’র (হাজার এক রজনী) মাধ্যমে। একই সময়ে আরেকটি তুর্কি শো ‘গুমুস’ (রুপা) মধ্যপ্রাচ্যে সাফল্য লাভ করে। তবে বিশ্বব্যাপী প্রকৃত সাফল্য লাভ করে ‘হাজার এক রজনী।’ ৮০টি দেশে ‘হাজার এক রজনী’ বিক্রি হয় যা ছিল এক রেটিং ধাক্কা।

এই শোতে হালিত এরজেন্স নামের এক স্বপ্ন নায়কের আত্মপ্রকাশ ঘটে, যিনি ‘ম্যাগনিফিশান্ট সেঞ্চুরি’র নায়ক হিসেবে তারকা খ্যাতি লাভ করেন। দশম ওসমানীয় সুলতান সুলেমানের জীবনভিত্তিক এ সিরিয়ালে হুররাম নামের উপপত্মীর সাথে সুলতানের ভালোবাসার কাহিনী বলা হয়েছে। হুররামকে সুলতান বিয়ে করেন যা ছিল ঐতিহ্য ভঙ্গের গুরুতর ঘটনা। ইতিহাসে একেবারেই অনুল্লেখিত হুররাম এখনকার ইউক্রেনের এক অর্থোডক্স খ্রিস্টান ছিলেন বলে মনে করা হয়।

২০১১ সালে প্রথম সম্প্রচার শুরুর পর ‘ম্যাগনিফিশান্ট সেঞ্চুরি’ দেশের এক তৃতীয়াংশ দর্শককে আকর্ষণের দাবি করে। বিদেশী সংবাদপত্র একে ‘ওসমানীয় আমলের সেক্স অ্যান্ড সিটি’ নামে আখ্যায়িত করে এবং একে বাস্তব জীবনের ‘গেম অব থ্রোনস’-এর সাথে তুলনা করে।

‘ম্যাগনিফিশান্ট সেঞ্চুরি’ আরব বিশ্বে এত জনপ্রিয়তা লাভ করে যে, ইস্তাম্বুলে আরব পর্যটন অকল্পনীয়ভাবে বৃদ্ধি পায়। তুরস্কের সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রণালয় কয়েকটি নির্দিষ্ট আরব দেশের সম্প্রচার ফিও নেয়া বন্ধ করে। গ্লোবাল এজেন্সির হিসেব মতে, ল্যাটিন আমেরিকায় সর্বসাম্প্রতিক ক্রেতারা ছাড়াও বিশ্বব্যাপী ৫০ কোটিরও বেশি দর্শক ‘ম্যাগনিফিশান্ট সেঞ্চুরি’ দেখেছে। ২০০২ সালে জাপানের কেনা এটাই প্রথম ডিজি। আলজেরিয়া, মরক্কো ও বুলগেরিয়াসহ ১শ’টিরও বেশি দেশে প্রায় ১৫০টি তুর্কি ডিজি বিক্রি হয়েছে। ‘ম্যাগনিফিশান্ট সেঞ্চুরি’র সাফল্যের পথ ধরেই অন্যদের সাফল্য এসেছে। (অসমাপ্ত)

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
আব্দুল মতিন মুন্সি ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬:৫৪ এএম says : 0
আসসালামু আলাইকুম সমস্ত প্রশংসা আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের যিনি আমাদেরকে সঠিক পথের দিশা দেন আমরা সারা বিশ্বে আজ কোনঠাসা হয়ে আছি একমাত্র মিডিয়ার দুর্বলতার কারণে আজকের এই খবরটি পড়ে নিঃসন্দেহে মুসলিম প্রেমীদের ভালোলাগার কথা ধন্যবাদ নিউজ এডিটর কে এত সুন্দর একটি খবর পরিবেশন করেছে
Total Reply(0)
আব্দুল মতিন মুন্সি ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬:৫৪ এএম says : 0
আসসালামু আলাইকুম সমস্ত প্রশংসা আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের যিনি আমাদেরকে সঠিক পথের দিশা দেন আমরা সারা বিশ্বে আজ কোনঠাসা হয়ে আছি একমাত্র মিডিয়ার দুর্বলতার কারণে আজকের এই খবরটি পড়ে নিঃসন্দেহে মুসলিম প্রেমীদের ভালোলাগার কথা ধন্যবাদ নিউজ এডিটর কে এত সুন্দর একটি খবর পরিবেশন করেছে
Total Reply(0)
মহররম আলী ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:২২ এএম says : 0
মুসলিম বিশ্বের জন্য ভালো খবর।
Total Reply(0)
সাইফুল কবির ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
তুরস্কের টিভির জন্য শুভ কামনা রইলো্।
Total Reply(0)
বিন ইউসুফ ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
খবরটি পড়ে ভালো লাগলো। কেননা মুসলিমরা আজ বিশ্বব্যাপী মিডিয়া অ্যাটাকের শিকার। সেখানে এটা আমাদের আশার আলো দেখাচ্ছে।
Total Reply(0)
সাবের চৌধুরী ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
সকল প্রশংসা মহান রাব্বুল আলামিনের জন্য। এভাবে এগিয়ে যাক তুরস্ক।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন