ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে দুর্নীতি-অনিয়মে সেবা ব্যাহত

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালটি পর্দা দুর্নীতির পরেও বেপরোয়া দুর্নীতি অব্যাহত রেখেছে হাসপাতালটির পরিচালক কামদা প্রসাদ সাহা। প্রধান সহকারী কাম প্রশাসনিক কর্মকর্তা শামসুল হক ও হিসাব রক্ষন সহকারী প্রকাশ বিশ্বাস। তারা এতোই প্রভাবশালী দুদক আদালতের নির্দেশে দুর্নীতি তদন্ত অব্যাহত রেখেছে তবুও হাসপাতালের ওই তিন কর্মকর্তা তাদের মত দুর্নীতি ও অনিয়ম চালিয়ে যাচ্ছে। এবছরের জুন মাসে হাসপাতালের খাদ্য, ধোলাই, স্টেশনারী সহ একাধিক মালের টেন্ডার হবার কথা কিন্তু ওই টেন্ডার এবছরের জুন মাসে না করে চলতি মাসের ১২ তারিখে টেন্ডার ড্রপিংয়ের শেষ দিন। অভিযোগ উঠেছে, যে টেন্ডার তিন মাস আগে করার কথা সেই টেন্ডার তিন মাস পরে কেন করা হলো? অভিযোগকারিরা জানান, এই তিন মাস ঠিকাদারের কাছ থেকে উৎকোচ নিয়ে এই টেন্ডার বিলম্বিত করেছে। রোগীর সঙ্গে আসা অনেক স্বজন দাবি করেন এতে হাসপাতালের সেবা ব্যাহত হচ্ছে।

পরিচালক কামদা প্রসাদ সাহা, প্রধান সহকারী কাম প্রশাসনিক কর্মকর্তা শামসুল হক ও সহকারী হিসাব রক্ষক প্রকাশ বিশ্বাস। হাসপাতালের অনেক অভ্যন্তরীন টেন্ডার না করিয়ে কোটেশনের মাধ্যমে ক্রয় করে হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকা।
এই বিষয়ে প্রধান সহকারী কাম প্রশাসনিক কর্মকর্তা শামসুল হক অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা যা করেছি নিয়মতান্ত্রিকভাবেই করেছি এখানে কোন অনিয়ম করি নাই।

হাসপাতালের অনেক কর্মকর্তা - কর্মচারীরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, শামসুল হক এই হাসপাতালটির শুরু থেকেই কর্মরত আছেন। আর এই সুযোগে এত দুর্নীতি করতে সাহস পেয়েছেন ওকে অন্যত্র বদলী করে সুষ্টভাবে তদন্ত করলেই আর অনেক দুর্নীতির তথ্য বেরিয়ে আসবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন