ঢাকা, শুক্রবার , ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

করতোয়ায় ভাসছে টাকা...

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৬ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

বগুড়ায় করতোয়া নদীর পানিতে ভাসছে টাকা, দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের ভয়ে গত সোমবার রাতের আঁধারে কে বা কারা নদীতে টাকা ফেলে গেছে। ওই টাকা সংগ্রহের জন্য নদী তীরে ভীড় জমে কৌতুহলী মানুষের!

তবে পুঁিথর বর্ণনার মতো ‘লাখে লাখে সৈন্য মরে কাতারে কাতার, শুমার করিয়া দেখি ২৪ও হাজার’ এর মতোই মাঝ রাতে জানা গেল, টাকার নদীতে ভেসে থাকা টাকার পরিমান হবে ৬ থেকে ৭ হাজার টাকা। ঘটনাস্থল বগুড়া শহরের বিখ্যাত ফতেহ আলী শাহ (রহ.) এ বাজার ও রাজাবাজারের মাঝখানের রেলওয়ে ব্রিজের নিচে। গত সোমবার রাত ১০ টার দিকে ওই রেল ব্রিজের নিচে কেউ কেউ নদীতে নেমে কয়েকজন টোকাইকে টাকা সংগ্রহ করতে দেখে। সংগৃহিত নোটগুলোর বেশির ভাগই ছিল ১০ ও ২০ টাকার। দুয়েকজন এই টাকা ও টোকাইদের ছবি ফেসবুকে পোস্ট দেয়ার পরই শহরে গুজব ছড়িয়ে যায় দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের ভয়ে কেবা কারা হয়তো টাকা নদীতে ভাসিয়ে দিয়েছে। রাত ১১ টা নাগাদ সেখানে বিপুল সংখ্যায় উৎসাহী মানুষ, মিডিয়া কর্মি ও পুলিশ পৌঁছে যায়। ঘন্টা খানেকের মধ্যেই বোঝা যায় কেউ টাকা ফেলে রেখে বা ভাসিয়ে দিয়ে যায়নি।

এ প্রসঙ্গে বগুড়া সদর থানার ওসি জানান, রেল ব্রিজ পার হওয়ার সময় হয়তো কারো কাছ থেকে টাকা পড়ে গিয়ে থাকতে পারে। তবে স্থানীয় কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, আসলে এখানে রেল ব্রিজের নিচের ঘুপচি এলাকায় নিয়মিত, জুয়া ও মাদকের আসর বসে। মাঝে প্রতিপক্ষ মাস্তান বা সাদা পোশাকের পুলিশ হানা দিলে জুয়াড়–, মাদক ব্যবসায়ী এবং মাদকসেবীরা টাকা পয়সা ফেলে দৌড় দেয় অনেক সময় নদীতেও ঝাঁপিয়ে পড়ে। গত সোমবার রাতেও হয়তো একই ধরণের ঘটনা ঘটেছে।

পরে তারাই বা জানতে পেরে টোকাইরা নদীর পাড় ও নদীর পানিতে ভেসে থাকা টাকা খুঁজতে থাকলে কল্পনা বিলাসি পাবলিক মুখে মুখে অতিরঞ্জিতভাবে গুজব ছড়িয়ে দেয়। আর ফেসবুক পোস্ট ব্যাপারটা আরো ব্যাপক রুপ দেয়। তবে রাত ১২টা নাগাদ আসল ঘটনা জেনে সবাই নিজ নিজ গন্তব্যে ফিরে যায়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন