ঢাকা, সোমবার , ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৬ মাঘ ১৪২৬, ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সউদী প্রবাসী নারীকর্মীর দায়দায়িত্ব এজেন্সির

প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রবাসী সচিব

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

সউদী আরবে কর্মরত প্রবাসী বাংলাদেশি নারীকর্মীদের দায় দায়িত্ব উভয় দেশের রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোকে বহন করতে হবে। অতীতে নারীকর্মী সউদী আরব যাওয়ার পর তিন মাস পর্যন্ত দায় বহন করতো রিক্রুটিং এজেন্সিগুলো।

এখন থেকে নারীকর্মীরা যতদিন সউদী আরব থাকবেন তার দায় দায়িত্ব সউদী ও বাংলাদেশের রিক্রুটিং এজেন্সিকে নিতে হবে। স¤প্রতি সউদী আরবের সঙ্গে জয়েন্ট টেকনিক্যাল কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। গতকাল সোমবার প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এক প্রেসব্রিফিংয়ে প্রবাসী সচিব মো.সেলিম রেজা এসব কথা বলেছেন। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রবাসী মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. আহমদ মনিরুছ সালেহীন, বিএমইটির মহাপরিচালক শামসুল আলম, অতিরিক্ত সচিব সাবিহা, যুগ্ম সচিব সারওয়ার আলম, যুগ্ম সচিব ফজলুল করিম ও যুগ্ম সচিব যাহিদ হোসেন।

গত ২৭ নভেম্বর সউদী আরবের রিয়াদে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং সউদীর শ্রম ও সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মধ্যে তৃতীয় জয়েন্ট টেকনিক্যাল কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের পক্ষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সেলিম রেজা এবং সউদীর পক্ষে শ্রম ও সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি অ্যাসিসটেন্ট মন্ত্রী জাবের আব্দুর রহমান আল মাহমুদ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলে রিয়াদে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
জয়েন্ট টেকনিক্যাল কমিটির সভায় নেয়া আরও সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছে নারী কর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিতে এ সংক্রান্ত আইটি মোসানেদে কর্মীর বিস্তারিত ঠিকানা, সউদী ও বাংলাদেশ রিক্রুটিং এজেন্সি এবং নিয়োগকর্তার পূর্ণ যোগাযোগের ঠিকানা, নারীকর্মীর নিয়োগকর্তা পরিবর্তন সংক্রান্ত তথ্যাদি, নারীকর্মীর আগমনের তারিখ এবং নিয়োগকর্তার কাছে হস্তান্তরের তারিখ, প্রত্যাবর্তনকারী গৃহকর্মীর এক্সিট সংক্রান্ত তথ্যাদি সন্নিবেশিত করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

ইতোমধ্যে নিয়োগকর্তা পরিবর্তন, নতুন চুক্তি নবায়ন ও এক্সিট সংক্রান্ত তথ্যাদি ছাড়া অন্যান্য তথ্যাদি হালনাগাদ করা হয়েছে এবং অবশিষ্ট তথ্যাদি হালনাগাদের কাজ চলমান রয়েছে বলে জানান প্রবাসী সচিব। এছাড়া সউদী কর্তৃপক্ষ মোসানেদ সিস্টেমে বাংলাদেশ দূতাবাসের একটি অ্যাপ্রæভাল উইন্ডো স্থাপনের বিষয়টি বিবেচনা করবে।
মন্ত্রণালয় আরও জানায়, যেসব নারীকর্মী কাজ ছেড়ে পলাতক রয়েছেন তাদেরকে পুলিশ কোনোভাবেই নিয়োগকর্তার কাছে হস্তান্তর করবে না। নারীকর্মী যতদিন কর্মরত থাকবেন ততদিন তার দায় দায়িত্ব বাংলাদেশ ও সউদী রিক্রুটিং এজেন্সি বহন করবে। যেসব নারীকর্মী প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষায় আছে তারা প্রত্যাবর্তন না করা পর্যন্ত তাদের আবাসন ও অন্যান্য দায় দায়িত্ব রিক্রুটিং এজেন্সি বহন করবে। নারীকর্মীরা কর্মকাল পূর্ণ করলে তাদের নিরাপদ প্রত্যাবর্তনের দায় দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট এজেন্সি বহন করবে এবং এ বিষয়ে বাংলাদেশ দূতাবাস ও সউদী শ্রম মন্ত্রণালয়কে অবহিত করবে। যদি নারীকর্মী মেয়াদ শেষে কাজ করতে চান তাহলে অবশ্যই চুক্তি নবায়ন করতে হবে এবং এ নবায়ন বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক অনুমোদিত হতে হবে।

এছাড়া, কোনও বিপদগ্রস্ত নারীকর্মীর সুরক্ষার বিষয়ে গুরুতর অভিযোগ উঠলে সউদী ডিপার্টমেন্ট অব প্রোটেকশন অ্যান্ড সাপোর্ট দ্রæত ব্যবস্থা নেবে। সংশ্লিষ্ট শ্রম কল্যাণ উইং বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আনবেন। বৈঠকে বাংলাদেশি কর্মী নিয়োগের বিষয়ে সউদী আরবের সঙ্গে একটি সাধারণ চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়টি আলোচিত হয়। সউদী কর্তৃপক্ষ জানান, এ বিষয়টি এখনও পরীক্ষাধীন রয়েছে এবং আগামী জয়েন্ট টেকনিক্যাল কমিটির সভায় এ বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন