ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ২০ চৈত্র ১৪২৬, ০৮ শাবান ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দেশের সঙ্কট আড়ালেই দলের সম্রাট-সম্রাজ্ঞীর অপকর্ম প্রকাশ

আলোচনা সভায় খন্দকার মোশাররফ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

দেশের চলমান সংকট থেকে জনদৃষ্টি অন্যত্র ফেরাতেই সরকার নিজ দলের স¤্রাট-স¤্রাজ্ঞীর ‘মুখরোচক’ অপকর্ম প্রকাশ করছে বলে মন্তব্য করেছেন খন্দকার মোশাররফ হোসেন। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরাম খাঁ হলে ডেমোক্রেটিক মুভমেন্টের উদ্যোগে ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং বাংলাদেশের গণতন্ত্র’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। নরসিংদী যুব মহিলা লীগের নেত্রীসহ ক্যাসিনোকান্ডে গ্রেপ্তার গেন্ডারিয়া আওয়ামী লীগের এক সাবেক নেতার পুরনো ঢাকার বাড়ি থেকে র‌্যাবের অভিযানে পাঁচটি সিন্দুকের ২৬ কোটি টাকা উদ্ধারের ঘটনার প্রসঙ্গ টেনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এরকম মন্তব্য করেন।
ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, দেশে এখন অর্থনৈতিক সংকট, রাজনৈতিক সংকট, দেশে গণতন্ত্র নাই। গণতন্ত্রের প্রতীক, বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের প্রতীক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারটি এখন বাংলাদেশের মানুষের মনে, সকল মানুষের মাথায়। আজকে আপনারা দেখেন- যখনই কোনো গভীর সংকট সরকারের সামনে, তখনই তাদের লোকজন যেসব অপকর্ম কিছু করছে মুখরোচক- ওইটাকে প্রকাশ করে দিয়ে জনগনের দৃষ্টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চায়, ভিন্নখাতে নিয়ে যেতে চায়।
তিনি বলেন, যেসময়ে ক্যাসিনো অভিযান হয়, সেই সময়েও সরকারের একটা ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা ছিলো। বর্তমানেও সরকার সকল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এখন একটা খাদের কিনারায় আছে বলে আমি মনে করি। তা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্যই সরকার এসব জিনিসকে সামনে এনে জনগনের দৃষ্টিকে অন্যদিকে ফিরিয়ে দিতে চায়।
খন্দকার মোশাররফ বলেন, ক্যাসিনোবাজী-চাঁদাবাজীর রূপ আগেও দেছেন। এবার সর্বশেষে প্রকাশ পেয়েছে যুব মহিলা লীগের একজন সাধারণ সম্পাদিকার রূপ। আপনারা পত্র-পত্রিকায় তার সম্পর্কে দেখছেন, আরো দেখবেন। যখন এই ধরনের ঘটনা ঘটে তখন সরকারের দায়িত্ব হলো তাকে ওই দল থেকে বহিস্কার করে দেয়া এবং পরে বলা হয় যে, তাদের সাথে আমাদের দলের কোন সম্পর্ক নেই। আমাদের প্রশ্ন- এই স¤্রাটরা, এই মহিলা স¤্রাজ্ঞীরা যা কিছু করছে তারা কি পরিচয়ে করছে? আবরাবকে বুয়েটে হত্যা করলো যে দানবরা তারা কী নামে করেছে? সরকারি দলের ছাত্রলীগের নামে। জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্র লীগের নেতাদের ঈদের বকশিস প্রদানসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সলরদের আলোচিত নানা ঘটনা তুলে ধরেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এই অধ্যাপক।
আলোচনা সভায় এলডিপির একাংশের মহাসচিব ডেমোক্রেটিক মুভমেন্টের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সেলিম সভাপতিত্ব করেন। সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি আজিজুল হাই সোহাগের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক এমাজ উদ্দিন আহমদ, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, জাতীয় দলের সভাপতি সৈয়দ এহসানুল হুদা, ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মো. মাওলানা আবদুল করীম প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন