ঢাকা সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১০ সফর ১৪৪২ হিজরী

স্বাস্থ্য

হৃদরোগ ও দাঁতের যত্ন

| প্রকাশের সময় : ৩১ জুলাই, ২০২০, ১২:০৩ এএম

আঠালো খাবার ক্যান্ডি, চকোলেট ইত্যাদি খাবার পর দাঁত ব্রাশ করতে না পারলে ভালভাবে কুলকুচি করতে হবে। বাচ্চাদের যদি একান্তই বেশি চকোলেট খাওয়ার অভ্যাস থাকে সেক্ষেত্রে দুপুরের খাবার খাওয়ার এক ঘণ্টা আগে চকোলেট দেওয়া যেতে পারে। এতে করে দুপুরের খাবারের সময় চকোলেটের আঠালো অংশ অপসারিত হয়ে যায়। লালাতে এমন কিছু গুণাগুণ বিদ্যমান যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ এবং দন্তক্ষয় রোধে ভূমিকা রাখে। বয়ঃসন্ধিতে এই উপাদানের পরিমাণের তারতম্য ঘটে। তাই মাড়ি ও দাঁতের সংক্রমণ হতে পারে। এ সময় সচেতন হওয়া জরুরী।

শিশুদের ক্ষেত্রে বুকের দুধ পান করার সময় দুধের স্তর মাড়িতে শুকিয়ে ফাংগাল সংক্রমণ হতে পারে। তাই নরম জীবাণুমুক্ত গজ বা তুলা দিয়ে নিয়মিত পরিষ্কার রাখা উচিত। বয়স্ক লোকদের মধ্যে যাদের দাঁতের গোড়ায় দন্তক্ষয় থাকে তাদের ক্ষেত্রে অস্বাভাবিক হৃদস্পন্দন হতে পারে। যদি সি রিঅ্যাকটিভ প্রোটিন বেশি থাকে তাহলে ভবিষ্যতে ঐ রোগীর হৃদরোগের সম্ভাবনা বেশি বা হতে পারে। আবার আপনার ডায়াবেটিস থাকলে পেরিওডন্টাল রোগ দেখা দিতে পারে। মাড়ি রোগের ক্ষেত্রে কোন প্রকার অবহেলা করা যাবে না। কারণ অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মাড়ি রোগে সি রিঅ্যাকটিভ প্রোটিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। ফলে হৃদরোগের ঝুঁকিও বেড়ে যায়। তাই মাড়ি রোগের চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে যথাযথভাবে এবং দ্রুততম সময়। দাঁতের এমব্রুসর ঠিক না থাকলে বা কমে গেলে পেরিওডন্টাল পকেট সৃষ্টি হয়। তাই আপনার দাঁতের সংযোগস্থল এবং দাঁতের অবস্থান, আকৃতি ঠিক আছে কিনা তা ডাক্তার দিয়ে পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া উচিত। এ ছাড়াও আপনার উপরের দাঁত এবং নিচের দাঁত কামড় দিলে সৃষ্ট অবস্থান স্বাভাবিক কিনা অর্থাৎ দাঁতের অকলুশন ঠিক আছে কিনা তা পরীক্ষা করা উচিত।

ডাঃ মোঃ ফারুক হোসেন
মুখ ও দন্তরোগ বিশেষজ্ঞ
মোবাইল ঃ ০১৮১৭৫২১৮৯৭
ই-মেইল ঃ dr.faruqu@gmail.com

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন