ঢাকা বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭, ১২ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে কক্সবাজার সদর থানার ওসি প্রত্যাহার

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১১ আগস্ট, ২০২০, ৯:২৩ পিএম

কক্সবাজার সদরের খরুলিয়া বাজার এলাকায় ইয়াবা বিক্রির সময় গণধোলাইয়ের শিকার এক ইয়াবা ব্যবসায়ী থানা হেফাজতে মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে । 

তবে পুলিশের দাবি, আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সকালে সে মারা যান।

এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান কবিরকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাকে কক্সবাজার থেকে প্রত্যাহার করে সিলেট রেঞ্জের সংযুক্ত করা হয়েছে।

এই তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোঃ ইকবাল হোসেন।

মারা যাওয়া নবী হোসেন (৩৮) নামের ওই ইয়াবা ব্যবসায়ী সদরের বাংলা বাজার পশ্চিম মুক্তারকুল এলাকার মৃত আব্দু শুক্কুরের ছেলে।

ইতোপূর্বে সোমবার ১০ আগস্ট দুপুরে খরুলিয়া বাজার এলাকায় ইয়াবা বিক্রি করার সময় স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করার চেষ্টা করলে সে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

এসময় তার ধারালো অস্ত্রের আঘাতে উপস্থিত টমটম চালক সাহাবুদ্দিনসহ কয়েকজন আহত হন। পরে তাকে ধাওয়া করে গণধোলাই দেয় উত্তেজিত জনতা।

ওই সময়ে তাঁর শরীরে তল্লাশি চালিয়ে ধারালো অস্ত্রসহ নগদ এক লাখ আটাশ হাজার টাকা ও ১৩ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান টিপু সুলতান বলেন, খবর পেয়ে স্থানীয়রা সদর থানা পুলিশকে খবর দেয়। সদর থানার এসআই অঞ্জনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ওই ইয়াবা ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে নিয়ে যান। তখন সে সুস্থ ছিল বলে জেনেছি।

সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) খাইরুজ্জামান বলেন, ইয়াবা ব্যবসায়ীকে গণধোলাই দিয়ে আটক করে রাখার খবর পেলে পুলিশ ইয়াবা ব্যবসায়ীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানায় নিয়ে আসে। সকালে সে অসুস্থতা বোধ করলে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তিনি বলেন তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরো দুটি মামলা রয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক কর্মকর্তা (আরএমও) ডাক্তার শাহিন মোঃ আব্দুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, হাসপাতাল থেকে একটু বাহিরে আছি, পুলিশের আনা ব্যক্তি চিকিৎসাধীন অবস্থায় নাকি হাসপাতালে আনার আগে মারা গেলেন তা জেনে বলতে হবে।

এদিকে এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মোঃ শাহজাহান কবিরকে প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানিয়ে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোঃ ইকবাল হোসাইন বলেন, তাকে সিলেট রেঞ্জে সংযুক্ত করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
Mohammed Shah Alam Khan ১১ আগস্ট, ২০২০, ১০:৪৫ পিএম says : 0
কক্সবাজার জেলার সবকয়টি থানার ওসিদের প্রতি এখন জনগণের আর বিশ্বাস নেই। উপরে উল্লেখিত ইয়াবা ব্যাবসায়িকে দুপুরে বাজার এলাকায় ইয়াবা বিক্রি করার সময় এলাকার লোকজন তাঁকে আটক করে ধোলাই দিয়ে পুলিশের হাঁতে অর্পণ করে। এলাকাবাসী এটাও বলে যে, ইয়াবা বিক্রেতার নিকট থেকে ১ লাখ ২৮ হাজার টাকা নগদ ও ১৩ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। পুলিশ তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে থানায় নিয়ে যায়। পুলিশের বক্তব্য মোতাবেক এরপর দিন সকালে সে অসুস্থতা বোধ করলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন তাঁর মৃত্যু হয়। এতে প্রতিয়মান হয় যে, লোকটাকে থানায় এনে আবারো শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে সেজন্যেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। এটা পরিষ্কার বুঝাগেছে তাই পুলিশ প্রশাসন থানার ওসিকে সাথে সাথে অন্য এক জেলায় পাঠিয়ে দিয়েছে যাতে করে এই ঝামেলা থেকে সে রেহাই পেতে পারে এটাই নিন্দুকেরা মন্তব্য করছেন। এখন জনগণের একটাই দাবী পুলিশ প্রশাসনকে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর শাসন আমালে যেভাবে পুলিশকে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছিল সেভাবেই আবার পুলিশদেরকে নিয়ন্ত্রণে আনা হউক। আল্লাহ্‌ আমাদের দেশের প্রশাসনিক প্রধানকে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা প্রদান করুন। আমিন
Total Reply(0)
মোশারফ হোসেন ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৬:০৮ এএম says : 0
আইনের এই গুরুত্ব পদে বি সি এস ক্যাডার থেকে নিয়োগ দেওয়া হঊক। যে ভাবে যেনতেন ভাবে মানুষ হত্যা হচ্ছে তা কোন ভাবে কাম্য নয়।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন