ঢাকা শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ মুহাররম ১৪৪২ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

নান্দাইলে বেহাল রাস্তায় চরম জনদুর্ভোগ

শংকর চন্দ্র বনিক, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) থেকে : | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০২০, ১২:০০ এএম

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ নান্দাইল-দেওয়ানগঞ্জ ও মুশুল্লী চৌরাস্তা-কালিগঞ্জ বাজার রাস্তার বেহাল দশা। যার ফলে জনসাধারণকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এসব যেন দেখার কেউ নেই।
সরেজমিনে দেখা যায়, সড়ক ২টির বিভিন্ন জায়গায় পিচ, ইট-পাথর ওঠে গিয়ে খানাখন্দ ও ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এসব গর্তের ফলে সড়কটি যেন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। উক্ত রাস্তা দিয়ে দুর্ভোগের সাথে প্রতিদিন সহস্রাধিক বিভিন্ন ধরণের যানবাহন চলাচল করছে। আর প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। তবে উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা রাজগাতী ও মুশুল্লী ইউনিয়নের মানুষ বেশি দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। কারণ তাদের চলাফেরার একমাত্র রাস্তা হচ্ছে মুশুল্লী চৌরাস্তা টু কালিগঞ্জের এই ৪ কিলোমিটার রাস্তা। রাস্তাটি সংস্কারের ৬ মাস যেতে না যেতেই বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। জরুরি কোন মুমূর্ষু বা প্রসূতি রোগীদের উপজেলা সদর হাসপাতালে নিতে সীমাহীন দুর্ভোগের শিকার হতে হয়।
এ বিষয়ে কালিগঞ্জ বাজারের মো. সাহেদ মিয়া, আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, ‘রাস্তা নির্মাণের বছর যেতে না যেতেই ভেঙে বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। এর কারণ হচ্ছে ঠিকাদারের গাফিলতি ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলা।’ অপরদিকে নান্দাইল সদর হতে দেওয়ানগঞ্জ বাজার পর্যন্ত ১৭ কি.মি. সড়কের বিভিন্ন জায়গায় ধেবে গিয়ে উঁচু-নিচু ও ছোট-বড় খানাখন্দে ভরে গেছে। এই রাস্তাটিও নির্মাণের ২/৩ বছর যেতে না যেতেই বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটি সংস্কারে কর্তৃপক্ষের নেই কোন উদ্যোগ। তবে উক্ত রাস্তাগুলোতে চলাচলকারী যান চালক তাদের নিজেদের কথা চিন্তা করে রাস্তার কিছু গর্তে রাবিশ বা ইটের টুকরা ফেলে চলাচলের উপযোগী করে তুললেও ২/৩ দিনেই ফের ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।
দেওয়ানগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. আফতাব উদ্দিন ও একই বাজারের আব্দুর রহমান শিকদার বলেন, রাস্তা সংস্কারের বছর না ঘুরতেই রাস্তার বেহাল অবস্থায় জনগনের চলাচলের যে, ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে তা একমাত্র ভুক্তভোগীরাই জানেন। নান্দাইল উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী রশিদুল হাসান বলেন, মুশুলী-কালিগঞ্জ সড়কটি স্থায়ীভাবে সংস্কারের জন্য প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। বাজেট পাশ হলেই রাস্তাটি সংস্কারসহ দু’পাশ বড় করা হবে। এছাড়া রাস্তাগুলো অতিবৃষ্টিপাত ও ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে নষ্ট হচ্ছে। গ্রামীণ সড়কে ভারী যানচলাচলে সর্তক হতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন