ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ক্যাম্পাসগুলো এখন ডেঞ্জার জোনে পরিণত হয়েছে: রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ অক্টোবর, ২০২০, ৪:২০ পিএম

বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ ক্যাম্পাসগুলো এখন ডেঞ্জার জোনে পরিণত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ক্যাম্পাসগুলোতে এখন ছাত্রলীগ-যুবলীগের অফিস রয়েছে। সেসব স্থান সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য ডেঞ্জার জোনে পরিণত হয়েছে। অভিভাবকরা এখন তাদের সন্তানদের ক্যাম্পাসে শিক্ষাঙ্গনে পাঠাতে ভয় পায়। বিশেষ করে মেয়েদের পাঠাতে ভয় পায়। কারণ শিক্ষাঙ্গনগুলোর ক্যাম্পাস ছাত্রলীগ-যুবলীগের দৌরাত্মে এখন শিক্ষার্থীদের জন্য ডেঞ্জার জোন।

বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মহানগর উত্তরের উদ্যোগে জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে কুৎসা রটনার প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

ছাত্রলীগের কর্মকাÐের সমালোচনা করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ওরা কাপুরুষ, ওরা নারী নির্যাতন করে, ওরা গুন্ডামি করে হামলা চালায়। আর আমরা দেখুন এতো মামলা-হামলার পরও আছি। যতক্ষণ আছি, মুখ থেকে আওয়াজ বেরুবে এই স্বৈরাতান্ত্রিক সরকারের পতন ধ্বনিত হবে। আমাদের কন্ঠস্বর থামবে না। আমরা লাঠিপেটার সম্মুখিন হবো, আমাদের মাথা দিয়ে রক্ত ঝরবে তারপরেও আমরা এই অবৈধ সরকারের অন্যায়-অবিচারের, জুলুম-নির্যাতন, নারীদের সম্ভ্রমহানির বিরুদ্ধে কন্ঠস্বর উচ্চারিত হবে টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত।

সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে সরকার দেশে ‘লাঠিপেটা গণতন্ত্র’ চালু করেছে অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, আওয়ামী লীগ যে গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে সেটা হচ্ছে লাঠি পেটার গণতন্ত্র। এই লাঠি পেটার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে বলেই তারা আজকে নির্বাচনী সভা বলুন, মিছিল বলুন, গণতান্ত্রিক সংগ্রাম বলুন সেখানে তারা সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিচ্ছে। এই সন্ত্রাসীরা কাপুরুষ। যেদিন তাদের কাছে রাষ্ট্র শক্তি থাকবে না তারা গর্ত খুঁজে বেড়াবে গর্ত। কোথায় লুকনো যায় সেই গর্ত ওরা খুঁজে বেড়াবে। কারণ রাষ্ট্র শক্তি যখন থাকবে না, তখন পুলিশ থাকবে না, র‌্যাব থাকবে না, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী থাকবে না। ওদের টিকি খুঁজে পাওয়া যাবে না।

জিয়াউর রহমানের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করতে ‘ইনডেমনিটি’ নাটক রচনার সমালোচনা করে তিনি বলেন, যে ইনডেমনিটি নাটকটি তারা রচনা করেছেন এটি একটি চটি নাটক। তারা মনে করেছে, সম্রাট, খালেদ এরা ক্যাসিনো করে এতো টাকা বানিয়েছে, ফরিদপুরের ছাত্র লীগের নেতা শামীম ২০০০ হাজার কোটি টাকা বানিয়েছে তাহলে আমরাও করি। আমরা শেখ হাসিনা একটু চামচামি করে, জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে একটা নাটক বানাই। তাহলে আমাদের ঘোড়াশালে ঘোড়া, হাতিশালে হাতি রাখা হবে, আমরা রাজপ্রসাদের মধ্যে বসবাস করতে পারবো।

রিজভী বলেন, জনগণই এই নাটক রচয়িতাদের একদিন বিচার করবে। তারা বিচার করবে যে, একটা অগণতান্ত্রিক সরকারকে খুশি করার জন্য তোমরা সাংস্কৃতিক ইতররা যে অপরাধ করেছো-এটা জনগণের সেন্টিমেন্ট, আবেগের বিরুদ্ধে। তোমাদের বিচার এই বাংলার মাটিতেই হবে।

মহানগর উত্তরের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুন্সি বজলুল বাসিত আনজুর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম, আবদুস সালাম আজাদ, উত্তরের আবদুল আলিম নকি, কফিলউদ্দিন আহমেদ, এজিএম শামসুল হক, যুব দল উত্তরের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন