ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

যৌতুকের দাবি মেটাতে না পারায় নির্যাতন মামলা করায় প্রাণনাশের হুমকি

প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ছাতক (সুনামগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা

ছাতকে হাতের মেহেদির রং না শুকাতেই ৩ মাসের মধ্যে স্বামীর যৌতুকের দাবি মেটাতে না পেরে একটি সোনার সংসার তছনছ করা হয়েছে। বিয়ের পর থেকেই পাষ- স্বামী জুনেদ আহমদ যৌতুকের জন্যে স্ত্রী সাজনার উপর অমানসিক নির্যাতন চালাত। একপর্যায়ে তাকে পিত্রালয়ে পাঠিয়ে যৌতুকের মাধ্যমে আরেকটি বিয়ে করার হুমকি দিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে একটি মামলা দায়েরের পর সে এখন বিদেশে যাবার জন্যে গা-ঢাকা দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের ব্রাহ্মণগাঁও গ্রামে। জানা যায়, গত ২৫ মে ২০১৫ইং স্থানীয় দিঘলী রাহমানিয়া মহিলা দাখিল মাদরাসার ছাত্রী চাকলপাড়া গ্রামের আলী আহমদের মেয়ে সাজনা বেগমকে মাদরাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসী কায়দায় অপহরণ করে ব্রাহ্মণগাঁও গ্রামের নূরুল হকের পুত্র জুনেদ আহমদ। ঘটনার পর ২৬ মে ইউপি মেম্বার ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিগণ বিষয়টি আপোষে নিষ্পত্তি করেন। এতে সাজনা বেগমকে ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা দেনমোহর সাব্যস্ত করে কাবিননামার মাধ্যমে জুনেদ আহমদের সাথে বিয়ে দেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকে পাষ- জুনেদ যৌতুকের জন্যে সাজনার উপর অমানসিক নির্যাতন-নিপীড়ন শুরু করে। এক পর্যায়ে হাতের মেহেদির রং না শুকাতেই ৩ মাসের মধ্যে তাদের সোনার সংসারে নেমে আসে ঘোর অমানিশা। সাজনাকে শারীরিক নির্যাতনের পর পাঠিয়ে দেয় তার পিত্রালয়ে এবং হুমকি দেয় যৌতুকের মাধ্যমে সে আরেকটি বিয়ে করবে। এরপর থেকে আর কোনো খোঁজ-খবর না নেয়ায় অবশেষে সাজনা আইনের আশ্রয় নেয়। এতে গত ২২ নভেম্বর ২০১৫ইং সুনামগঞ্জ আদালতে জুনেদ আহমদের বিরুদ্ধে একটি পিটিশন মামলা দায়ের করে। এরপর থেকে জুনেদ সন্ত্রাসী কায়দায় সাজনা ও তার পরিবারকে অব্যাহত প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। মামলায় ওয়ারেন্ট হবার পর সে বিদেশে যাবার জন্যে গা-ঢাকা দিয়েছে। জানা গেছে, সাজনা বেগমের পিতা সউদীআরবে প্রবাসী আলী আহমদের কোনো ছেলে সন্তান নেই। ৪ মেয়ের মধ্যে সাজনা হচ্ছে ৩য়। এ ব্যাপারে সাজনা বেগম জানায়, বিয়ের পর সে অনেক নির্যাতন-নিপীড়ন সহ্য করে সংসার টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করে। কিন্তু যৌতুকলোভী স্বামীর জন্যে তা সম্ভব হয়নি। এর মধ্যে কয়েক দফা যৌতুকের দাবি মিটিয়েছে। পাষ- জুনেদ যাতে বিদেশে যেতে না পারে সে জন্যে প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন