ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বিলম্ব, চীনের উদ্বেগ

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে চীনের রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মিয়ানমার সরকার ও সে দেশের সেনাবাহিনীর বর্বর নির্যাতনের মুখে প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে বাংলাদেশে অবস্থান নেয়া রোহিঙ্গাদের সেদেশে ফেরানোর (প্রত্যাবাসন) প্রক্রিয়া এখনও শুরু না হওয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছে চীন। গতকাল রোববার ঢাকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাতকালে এ উদ্বেগ জানান ঢাকায় চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। এ সময় রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনে চীনের সহযোগিতা চান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। গতকাল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন- রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া দীর্ঘায়িত হলে তারা এই এলাকার নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে উঠবে। কিছু রোহিঙ্গা মাদক পাচারের সঙ্গে জড়িয়ে গেছে বলেও চীনা রাষ্ট্রদূতকে জানান ড. মোমেন।

স¤প্রতি দু’দল রোহিঙ্গার সংঘর্ষে ৮ জন নিহত ও কাটা তারের বেড়া না থাকায় এ সমস্ত ঘটনা উত্তরোত্তর বাড়ছে বলেও জানান মন্ত্রী। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া দেরি হওয়ায় দিনে দিনে রোহিঙ্গা এবং বিদেশি সাহায্যকারী প্রতিষ্ঠানের ওপর স্থানীয় জনগণের অসন্তুষ্টি ঘনিভূত হচ্ছে। বাংলাদেশ সীমান্তে মিয়ানমারের সৈন্য সমাবেশ ঘটানোর ফলে বাংলাদেশের উদ্বেগের বিষয়টিও চীনা রাষ্ট্রদ‚তকে অবহিত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ড. মোমেন বলেন, রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সাহায্য দেয়া এবং জীবনমানের উন্নয়ন এ সমস্যা সমাধানের জন্য যথেষ্ট নয়। বরং তাদের প্রত্যাবাসনের মাধ্যমে এ সমস্যার স্থায়ী সমাধান দরকার। এ সময় চীনা রাষ্ট্রদূত এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে একমত প্রকাশ করেন। সাক্ষাতকালে চীনের রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনকে লেখা সে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই’র একটি চিঠি হস্তান্তর করেন। এতে হংকং চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে উল্লেখ করায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ধন্যবাদ জানান। বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন ‘এক চীন নীতি’র প্রতি বাংলাদেশের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছেন। ##

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mohammed Kowaj Ali khan ১২ অক্টোবর, ২০২০, ১২:২৫ এএম says : 0
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নয়। চাই আরকানের স্বাধীনতা রোহিঙ্গাদের জন্য। ইনশাআল্লাহ। অতি সত্বর বারমার সকল কায্যকলাপ বন্ধ করিয়া আরকান স্বাধীন ঘোষণা করিয়া রোহিঙ্গাদের হাতে আরকান দেওয়া হোক। ইনশাআল্লা।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন