ঢাকা, রোববার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ০১ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

হেফাজত নেতা মুফতি হাবীবুল্লাহ মাহমুদ কাশেমী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম

হেফাজতে ইসলামীর নেতা হাফেজ মো. মুফতি হাবীবুল্লাহ মাহমুদ কাশেমীকে (৪৩) গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওয়ারী বিভাগ। গতকাল রাজধানীর ভাটারা থানা এলাকার ওয়াসা মোড় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
ডিবি ওয়ারী বিভাগের ডিসি মো. আ. আহাদ বলেন, ২০১৩ সালের ৫ মে শাপলা চত্বরে ভয়াবহ সহিংসতায় নেতৃত্ব দিয়েছিলেন হাফেজ মো. মুফতি হাবীবুল্লাহ মাহমুদ কাশেমী। এছাড়া সম্প্রতি দেশব্যাপী হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনের নামে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সহিংসতায় সশরীরে নেতৃত্ব দেন গ্রেফতার কাশেমী। তিনি হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির কার্যকরী সদস্য ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
Shaikh ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১:১৪ এএম says : 0
Allah will not tolerate such kind of extreme injustice.
Total Reply(0)
Dadhack ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০৮ পিএম says : 0
Alem's are the Inheritor of Rasul [SAW].. Those who fight then Allah will severely punish them: সূরা ৮:আল-আনফাল:আয়াত:৩: “এবং যারা অবিশ্বাস পোষণ করেছে তারা একে অপরের মিত্র, [এবং] যদি আপনি [সমগ্র বিশ্বের মুসলমানগণ সম্মিলিতভাবে] তা না করেন [যেমন: মিত্র হয়ে যান, যেমন ঐক্যবদ্ধভাবে এক খলিফা] (সমগ্র মুসলিম বিশ্বের প্রধান মুসলিম শাসক) ইসলামী একেশ্বরবাদের ধর্মকে বিজয়ী করার জন্য, পৃথিবীতে ফিতনা [যুদ্ধ, ধর্ষণ, ব্যভিচার, খুন, শিরক] এবং নিপীড়ন থাকবে এবং একটি মহান দুষ্টামি এবং দুর্নীতি বিশ্বের প্রতিটি কোণে ছড়িয়ে পড়বে।”
Total Reply(0)
Dadhack ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০৯ পিএম says : 0
হযরত উবাদা বিন সামিত (রা:) হতে বর্নিত; রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন:- তোমাদের ওপর এমন সব (পথ ভ্রষ্ট) শাসকরা আসবে, তোমরা যদি তাদের আনুগত্য করো, তাহলে তারা তোমাদেরকে জাহান্নামে ঢুকাবে । আর তোমরা যদি তাদেরকে অমান্য করো, তাহলে তারা তোমাদেরকে (বিভিন্ন কৌশলে) হত্যা করে ফেলবে । তখন তাদের মধ্যে এক ব্যক্তি বললো; ইয়া রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ! আমাদেরকে তাদের নামগুলো বলে দিন । যাতে আমরা তাদের মুখে মাটি নিক্ষেপ করতে পারি । তখন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন: সম্ভাবনা রয়েছে, তারাই তোমার মুখে মাটি নিক্ষেপ করবে এবং তোমার চোখ বের করে ফেলবে । ???????????? (মাজমাউয যাওয়ায়ীদ; ত্বাবরানী:- ৫/৪২৯) ---------------------------------------------- ???? আব্দুর রহমান বিন বাসীর আল আনসারী (র:) হতে বর্নিত, তিনি বলেন; (একবার) এক ব্যক্তি এসে আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা:) কে ডাক দিলো, এবং তার দিকে মুখ করে বলল; হে আব্দুর রহমানের পিতা (ইবনে মাসউদ) ! সেটা কোন সময় যখন আমি (পথভ্রষ্টতা কি তা) জেনেও পথভ্রষ্ট হয়ে যাব ? তিনি (রা:) বললেন; যখন তোমার উপর এমন শাসকরা হবে, যখন তুমি তাদের আনুগত্য করলে তারা তোমাকে জাহান্নামে ঢুকাবে । আর তাদেরকে অমান্য করলে তারা তোমাকে (বিভিন্ন কৌশলে) হত্যা করে ফেলবে । ????????????(মুসতাদরাকে হাকিম:- ৪/৬২৯ হা: ৮৪৯০) ————————————————————————— ???? হযরত আলী (রা:) হতে বর্নিত, তিনি বলেন; মানুষের উপরে অবশ্যই এমন জামানা আসবে, যখন ফাজের ব্যক্তির প্রশংসা করা হবে, প্রতারককে কাছে রাখা হবে, ইনসাফগার ব্যক্তিকে কোণঠাসা করে দেওয়া হবে । ঐ জামানায় এমন হবে যে, তখন (মানুষের দ্বীন দ্বারিত্ব না থাকায় তাদের কাছে) আমানত হয়ে যাবে গণীমত (স্বরূপ) । যা তারা নিজেদের ব্যক্তিগত সম্পদের মতো ভোগ করবে । (তাদের মধ্যে মুনাফেকী, বদ-দ্বীনীতা ও ভোগ-বাদীতা ঝেঁকে বসার কারণে শরীয়তের ফরযকৃত) যাকাত (তাদের কাছে মনে) হবে জরিমানা (স্বরূপ) । সালাত হবে দীর্ঘায়িত (অথবা বাড়াবাড়ি মূলক) । (তারা যা’ও-বা কিছু) দান সদকাহ (করবে, তা) হবে খোঁটাদান মূলক । সেই জামানায় বাদীর কাছে পরামর্শ চাওয়া হবে । নারী রাষ্ট্রপ্রধান হবে এবং মন্ত্রীরা হবে নির্বোধ । ????????????(ইবনু মুনাদী আল-জামিউল কাবীর; ইমাম সুয়ূতী:- ৩২/৬১ হাদীস নং:- ৩৪৭১২) ????????????(কানজুল উম্মাল- ১৪/৫৭৫ হাদীস:- ৩৯৬৪১ ভারতীয় সরকার প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই অখন্ড ভারত প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখে। অতীতে তাদের মুসলিম বিদ্বেষী চরিত্র মুখোশের আড়ালেই ছিলো- যদিও তা গুজরাট,কাশ্মীর, আসাম ইত্যাদি বিভিন্নস্থানে গনহত্যার ঘটনায় মাঝে মাঝে বের হয়ে এসেছিলো। কিন্তু নরেন্দ্রমোদীর বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর ভারত নিজেই এই মুখোশ টেনে খুলে ফেলেছে। এখন প্রকাশ্যেই তাদের নীতি নির্ধারক থেকে শুরু করে সাধারণ জনতা- মুসলিম নিশ্চিহ্ন করে দিয়ে অখন্ড ভারত প্রতিষ্ঠার কথা বলছে। বাংলাদেশ দখল করে নেবার হুমকি তো কিছুদিন পর পরই আসে ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী সরকারের তরফ থেকে। . এ সব কিছুই আমাদের মনে করিয়ে দেয় আল্লাহ এবং তাঁর রাসূলের নিম্নোক্ত বাণীসমূহ . ‘মানুষের ভেতর মুমিনদের শত্রুতার বেলায় অবশ্যই তুমি ইহুদি ও মুশরিকদের সর্বাধিক কঠোর পাবে’।[১] রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, ‘শীঘ্রই মানুষ তোমাদেরকে আক্রমন করার জন্য আহবান করতে থাকবে, যেভাবে মানুষ তাদের সাথে খাবার খাওয়ার জন্য একে-অন্যকে আহবান করে।’ জিজ্ঞেস করা হলো, ‘তখন কি আমরা সংখ্যায় কম হবো?’ তিনি বললেন, ‘না, বরং তোমরা সংখ্যায় হবে অগণিত কিন্তু তোমরা সমুদ্রের ফেনার মতো হবে, যাকে সহজেই সামুদ্রিক স্রোত বয়ে নিয়ে যায় এবং আল্লাহ তোমাদের শত্রুর অন্তর থেকে তোমাদের ভয় দূর করে দিবেন এবং তোমাদের অন্তরে আল-ওয়াহ্হান ঢুকিয়ে দিবেন।’ জিজ্ঞেস করা হলো, ‘হে আল্লাহর রাসুল (সা.),আল– ওয়াহ্হান কি?’ তিনি বললেন, ‘দুনিয়ার প্রতি ভালোবাসা এবং ক্বিতালকে অপছন্দ করা।’[২] সাওবান (রা.) হতে বর্ণিত হাদিসে এসেছেঃ ‘দুনিয়ার প্রতি ভালোবাসা এবং মৃত্যুকে অপছন্দ করা।’[৩] . মুসলিম, এখনো সময় আছে। জেগে উঠুন, চিরতরে ধ্বংস হবার পূর্বেই। ------ রেফারেন্সঃ [১] সুরা আল-মায়েদা, আয়াত ৮২ [২] মুসনাদে আহমদ, খন্ডঃ ১৪, হাদিস নম্বরঃ ৮৭১৩, হাইসামী বলেছেনঃ হাদিটির সনদ ভালো, শুয়াইব আল আর নাউতের মতে হাদিসটি হাসান লি গাইরিহি [৩] সুনানে আবু দাউদ ও মুসনাদে আহমদ, হাদিস হাসান -----
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন