ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০৩ আষাঢ় ১৪২৮, ০৫ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

ঈদে বৈশাখী টেলিভিশনের জমজমাট আয়োজন

বিনোদন রিপোর্ট: | প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০২১, ১২:০৪ এএম

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বৈশাখী টেলিভিশনের আয়োজনে থাকছে ১৪টি নতুন নাটক, ১৪টি সিনেমা, জনপ্রিয় শিল্পীদের পরিবেশনায় সংগীতানুষ্ঠান এবং বিশেষ কমেডি শোসহ নানা আয়োজন। বিশেষ সংগীতানুষ্ঠানগুলোর মধ্যে ঈদের ৭দিন সকাল ৮.১৫ মিনিটে প্রচার হবে বৈশাখীর সকালের গান’। দুপুর ১২.৩০ মিনিটে প্রচার হবে কমেডি শো: ফানি মোমেন্ট। ঈদের ৭ দিন প্রতিদিন প্রচার হবে দুটি সিনেমা। প্রচার সময় হলো দুপুর ২.২০ মি. এবং রাত ১১.৩৫ মি.। ঈদের দিন দুপুরে প্রচার হবে দ্য স্পিড। সোহানুর রহমান সোহানের পরিচালনায় এ ছবিতে অভিনয় করেছেন অনন্ত জলিল, ববি, রাজ্জাক, আলমগীর, সোহেল রানা প্রমুখ। রাতে প্রচার হবে ধোকা। শাহীন সুমনের পরিচালনায় এতে অভিনয় করেছেন মান্না, পূর্ণিমা প্রমুখ। ঈদের দ্বিতীয় দিন দুপুরে প্রচার হবে জান্নাত। অভিনয় করেছেন মাহিয়া মাহি, সায়মন সাদিক, আলীরাজ প্রমুখ। পরিচালনা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। রাতে প্রচার হবে শাহ মোহাম্মদ সংগ্রাম পরিচালিত বলবো কথা বাসর ঘরে। অভিনয়ে শাকিব খান, শাবনূর, সাহারা, ওমর সানী, কাবিলা প্রমুখ। ঈদের তৃতীয় দিন দুপুরে প্রচার হবে ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না। জাকির হোসেন রাজুর পরিচালনায় এতে অভিনয় করেছেন শাকিব খান, অপু বিশ্বাস প্রমুখ। রাতে প্রচার হবে গরীবের ভাই। ডিপজল, রেসি, অভিনীত ছবিটি পরিচালনা করেছেন পি এ কাজল। ঈদের চতুর্থ দিন দুপুরে রয়েছে বিশ্ব প্রেমিক। শহীদুল ইসলাম খোকনের পরিচালনায় এতে অভিনয় করেছেন রুবেল, মৌসুমী, ববি, হুমায়ুন ফরীদি প্রমুখ। রাতে প্রচার হবে মোহাম্মদ হোসেন জেমী পরিচালিত রাজধানী। অভিনয় করেছেন মান্না, সুমনা সোমা, আহমেদ শরীফ, মিশা প্রমুখ। ঈদের ৫ম দিন দুপুরে রয়েছে অন্তরে অন্তরে। অভিনয়ে সালমান শাহ, মৌসুমী প্রমুখ। পরিচালনা শিবলী সাদিক। রাতে প্রচার হবে দারোয়ানের ছেলে। অভিনয়ে কাজী মারুফ, সাহারা প্রমুখ। পরিচালনা রকিবুল ইসলাম রাকিব। ঈদের ৬ষ্ঠ দিন দুপুরে রয়েছে মন বসে না পড়ার টেবিলে। অভিনয়ে রিয়াজ, শাবনূর প্রমুখ। পরিচালনা আবদুল মান্নান। রাতে প্রচার হবে সাত খুন মাফ। অভিনয়ে শাকিব খান, নদী, আমিন খান প্রমুখ। পরিচালনা সাফি ইকবাল। ঈদের ৭ম দিন দুপুরে প্রচার হবে মানিক রতন দুই ভাই। অভিনয়ে কাজী মারুফ, তমা মির্জ্জা, ডিপজল, রেসি, কাজী হায়াৎ প্রমুখ। পরিচালনা কাজী হায়াৎ। রাতে প্রচার হবে শাহাদৎ হোসেন লিটন পরিচালিত রাজ্জাক, সুচরিতা অভিনীত বাপ বড় না শ্বশুর বড়। নাটকগুলোর মধ্যে ৭টি একক এবং ৭ পর্বের ৬টি ধারাবাহিক রয়েছে। একক নাটকগুলো প্রচার হবে প্রতিদিন রাত ৮.১০ মিনিটে। ১৪টি নাটকের মধ্যে ৬টি নাটকেরই গল্প লিখেছেন গল্পকার বৈশাখী টিভির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলন। এর মধ্যে ৩টি একক ও ৩টি ধারাবাহিক। একক নাটক তিনটি হলো, সুবাতা রাহিক জারিফার চিত্রনাট্যে, সরদার রোকনের পরিচালনায় রাশেদ সীমান্ত, নাদিয়া আহমেদ ও অলিউল হক রুমি অভিনীত ‘হিল্লা বিয়ে’, মনিরুজ্জামান মনির চিত্রনাট্যে অনন্য ইমন পরিচালিত অবিদ রেহান, শিখা মৌ, ইমতু রাতিশ অভিনীত ‘প্রথম সন্তান’ এবং অনামিকা মন্ডলের চিত্রনাট্যে, ফরিদুল হাসানের পরিচালনায় স্প্যানিশ অভিনেত্রী ডায়ানা, ফারুক আহমেদ অভিনীত ‘ফরেন লাভ’। ৩টি ধারাবাহিকের মধ্যে জাকির হোসেন উজ্জলের চিত্রনাট্যে ফরিদুল হাসানের পরিচালনায় উর্মিলা শ্রাবন্তী কর, রওনক হাসান অভিনীত ‘সুন্দরী বাঈদানী-২’, জাকির হোসেন উজ্জ্বলের চিত্রনাট্যে হানিফ খান ও আহমেদ রোহান খান রুবেলের যৌথ পরিচালনায় জাহিদ হাসান, মীম মানতাশা, আরফান অভিনীত ‘বুড়া জামাই-২' এবং আহসান আলমগীরের চিত্রনাট্যে ও আল হাজেনের পরিচালনায় মৌসুমী হামিদ, রাশেদ সীমান্ত, আমিরুল হক চৌধুরী অভিনীত ‘শিয়াল বাড়ি-২'। বাকি দুটি ধারাবাহিকের মধ্যে হাসান জাহাঙ্গীরের রচনা ও পরিচালনায় চিত্রনায়িকা সিমলা, হাসান জাহাঙ্গীর, ড্যানিরাজ, নিথর মাহবুব অভিনীত ‘আমার বউ সেলিব্রেটি' এবং সাজ্জাদ স্বপনের রচনায় ও ফজলুল হকের পরিচালনায় মীর সাব্বির, নাদিয়া আহমেদ অভিনীত ‘সৌদি জামাই বিদায় রজনী'। অপর ৪টি একক নাটকের মধ্যে সুবাতা রাহিক জারিফার রচনায়, সাজিন আহমেদ বাবুর পরিচালনায় রাশেদ সীমান্ত, নীলাঞ্জনা নীলা অভিনীত ‘আমি মীর জাফর’, রুহুল আমিন পথিকের রচনায়, মুজিবুল হক খোকনের পরিচালনায় মীর সাব্বির, নাবিলা ইসলাম অভিনীত ‘মজিদের কোলবালিশ', মীর্জা রাকিবের রচনায়, সাদেক সিদ্দিকীর পরিচালনায় শিপন, হুমায়রা সুবা অভিনীত ‘কারাতে বউ চাই' এবং সজল আহমেদের রচনায়, মঞ্জুরুল হক মঞ্জুর পরিচালনায় ফজলুর রহমান বাবু, শহীদুজ্জামান সেলিম, শেলী আহসান অভিনীত ‘খয়ের পান'। ঈদ আয়োজন নিয়ে বলতে গিয়ে বৈশাখী টিভির উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলন বলেন, করোনাকালে দুঃশ্চিন্তাগ্রস্থ মানুষকে কিছুটা বিনোদন দেয়ার জন্যই আমাদের এ আয়োজন। বৈশাখী টেলিভিশনের মূল লক্ষ্যই হচ্ছে দর্শকদের বিনোদন দেওয়া। কতটুকু সফল হতে পারব সে বিচারের ভার বৈশাখী টেলিভিশনের দর্শকদের, যাদের ভালোবাসা আর অনুপ্রেরণায় আমাদের এগিয়ে চলা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন