শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮, ২০ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

নয়াপল্টনে পুলিশ ছাত্রদল সংঘর্ষ গাড়ি ভাঙচুর

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০২১, ১২:০৬ এএম

রাজধানীর নয়াপল্টনে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছে। বেশ ক’জনকে পুলিশ আটক করেছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। ময়মনসিংহ বিভাগ ছাত্রদলের আলোচনা সভাকে কেন্দ্র করে পুলিশের অতর্কিত হামলার ঘটনার প্রতিবাদে ঢাকায় ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশের সাথে এ সংঘর্ষ হয়। গতকাল বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বিএনপি সূত্র বলছে, সংঘর্ষে ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনায় পুলিশসহ একাধিক ছাত্রদল নেতাকর্মী আহত হয়। পরে দলীয় কার্যালয়ে প্রবেশের সময় দুই বিএনপি কর্মীকে পুলিশ আটক করে নিয়ে গেছে। ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকেনের নেতৃত্বে মিছিলে উপস্থিত ছিলেন, ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, সহ-সভাপতি কাওসার, পার্থদেব মন্ডল, আশ্রাফুল আলম লিংকন, হাফিজুর রহমান হাফিজ, মামুন খান, যুগ্ম সম্পাদক রাজু আহমেদ, রিয়াদ ইকবাল, ঢাকা মহানগর পূর্ব ছাত্রদলের সভাপতি খন্দকার এনামুল হক এনামসহ নেতাকর্মীরা।

এদিকে, বিজয় নগর মোড়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) লোগো সম্বলিত প্রাইভেটকারসহ কয়েকটি গাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়েছে। পুলিশের দাবি, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ঢাকা মহানগর উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিমের পূর্ণাঙ্গ কমিটি বিলুপ্তির জেরেক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা এ কান্ড ঘটিয়েছেন। এর আগে বিএনপি কার্যালয়ে সংগঠনটির দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশের ভাষ্য, গতকাল বিকেল ৫টার দিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে কয়েকজন ব্যক্তি দৌড়ে এসে রাজধানীর বিজয় নগর মোড়ে চারটি গাড়িতে ভাঙচুর চালান। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ওই চারটি গাড়ির একটি ঢাকার আশুলিয়া থানার ওসি, তদন্ত জিয়াউল ইসলামের প্রাইভেটকার, দুটি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বাস এবং একটি মাইক্রোবাস। এ বিষয়ে ওসি, তদন্ত জিয়াউল ইসলামের স্ত্রী পলি বলেন, বিজয় নগর সেন্ট্রাল ল কলেজের নিচে গাড়ি রেখে ক্লাস করতে গিয়েছিলাম। ১৫ মিনিট পর চালক রুবেল ফোন করে জানান কয়েকটি ছেলে তার গাড়িতে ভাঙচুর করে চলে গেছে। এরপর নিচে নেমে দেখি গাড়ির সামনের গøাস ভাঙা।

রমনা মডেল থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, গত বুধবার ছাত্রদলের চারটি ইউনিটের কমিটি বিলুপ্ত হয়। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে গতকাল বিকেলে বিএনপি অফিসে ছাত্রদলের দুই পক্ষের হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে একটি পক্ষ সংশ্লিষ্ট এলাকার রাস্তায় লাঠিসোঁটা নিয়ে গাড়ি ভাঙচুর করে। পার্টি অফিসের সামনে কোনো ভাঙচুর হয়নি। সেখানে ভাঙচুর হলে টহলরত পুলিশ তাদেরকে ধরে ফেলত। তারা পুলিশের অগোচরে গিয়ে ভাঙচুর চালায়। ওসি আরও বলেন, এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে। তাদেরকে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের ডিসি আব্দুল আহাদ বলেন, কয়েকটি লোক লাঠিসোঁটা নিয়ে বিএনপি পার্টি অফিস থেকে বেরিয়ে বিজয় নগরের দিকে যাচ্ছে। এ খবর পাওয়ার পরেই পুলিশ ফোর্স নিয়ে আমরা ঘটনাস্থলে আসি। এসে দেখতে পাই ডিএমপির লোগো সম্বলিত একটি গাড়ির গøাস ভাংচুর করা হয়েছে এবং সরকারি দুটি বাসসহ একটি মাইক্রোবাস ভাঙচুরের কথা শুনেছি। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে সরকারি গাড়ি ভাঙচুরে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন