রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

আওয়ামী লীগ নেতার হাতে প্রধান শিক্ষক লাঞ্ছিতের অভিযোগ

জয়পুরহাটে খঞ্জনপুর মিশন বালিকা বিদ্যালয়

প্রকাশের সময় : ৯ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

জয়পুরহাট জেলা সংবাদদাতা

জয়পুরহাট পৌর এলাকার খঞ্জনপুর মিশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিনয় কৃষ্ণ মন্ডলকে ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আ.লীগ নেতা আব্দুস সোবহানসহ তার লোকজন লাঞ্ছিত করেছে। ওই বিদ্যালয়ে কর্মরত প্রধান শিক্ষকের স্ত্রী শাপলা বসাককেও লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার জয়পুরহাট প্রেসক্লাবে ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষক সমিতির ডাকা সংবাদ সম্মেলনে প্রধান শিক্ষক বিনয় কৃষ্ণ মন্ডল এ অভিযোগ উত্থাপন করেন। লিখিত বক্তব্যে প্রধান শিক্ষক বিনয় কৃষ্ণ মন্ডল বলেন, গত ৬ অক্টোবর বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুস সোবহানসহ তার লোকজন বিদ্যালয়ে এসে তাকে প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে বরখাস্ত করার চিঠি নিতে বলেন। প্রধান শিক্ষক তাকে বলেন কমিটির কোন সভা ও রেজুলেশন ছাড়া এ বরখাস্তের আদেশ ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি দিতে পারেন না। এই কারণে তিনি ওই আদেশকপি গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আব্দুস সোবহান ও তার লোকজন তাকে হেনস্থা করে। এ সময় প্রধান শিক্ষকের স্ত্রী ওই বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থগারিক শাপলা বসাক এগিয়ে এলে তাকেও গালিগালাজ এবং লাঞ্চিত করা হয়। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। ঘটনার সময় ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাহেদুল আহসান সোহেলসহ শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। প্রধান শিক্ষক আরো অভিযোগ করেন, কমিটির সভাপতি আব্দুস সোবহান বিধি বহির্ভূত ও অনিয়মতান্ত্রিকভাবে ম্যানেজিং কমিটি গঠন করে তাকে পুনরায় সভাপতি ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী (আয়া) নিয়োগ করার জন্য আমাকে নানাভাবে চাপ প্রদান করেন। সংবাদ সম্মেলনে প্রধান শিক্ষক ছাড়াও বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, জেলা শিক্ষক সমিতির (সেলিম ভূঁইয়া) সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক, ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাহেদুল আহসান সোহেল। সংবাদ সম্মেলনে জেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগণ উপস্থিত ছিলেন। শিক্ষক নেতৃবৃন্দ ঘোষণা করেন এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া হলে শিক্ষক সমাজ অচিরেই বৃহত্তম কর্মসূচি ঘোষণা করবে। এদিকে এ ঘটনার প্রেক্ষিতে প্রধান শিক্ষক বিনয় কৃষ্ণ মন্ডল ও তার স্ত্রী শাপলা বসাক পৃথকভাবে সদর থানায় অভিযোগ করেছে। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুস সোবাহান জানান, অনিয়মের অভিযোগে তাকে পতদ্যাগপত্র গ্রহণ করতে বললে তিনি অস্বিকৃতি জানান। তাকে মারপিট করা হয়নি এবং তার স্ত্রীকে লাঞ্জিত করা হয়নি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন