বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

কুর্দিবিরোধী অভিযান শুরু করতে যাচ্ছে তুরস্ক

ইথিওপিয়া-মরক্কোয় ড্রোন বিক্রি করছে আঙ্কারা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০২ এএম

কুর্দি বাহিনীর বিরুদ্ধে বড় ধরনের সামরিক অভিযান শুরু করতে যাচ্ছে তুরস্ক। তুর্কির দুইজন কর্মকর্তা এই তথ্য জানিয়েছেন। ওই কর্মকর্তারা বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনা ব্যর্থ হলে অভিযান শুরু করবে তুরস্ক। চলতি সপ্তাহে এক হামলায় তুরস্কের দুইজন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হওয়ার পর প্রেসিডেন্ট এরদোগান এই ঘটনাকে সর্বোচ্চ খারাপ ঘটনা হিসেবে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আঙ্কারা উত্তর সিরিয়া থেকে তৈরি হওয়া হুমকি প্রতিহত করতে বদ্ধপরিকর। তুরস্ক জানায়, সিরিয়ার আজাজ অঞ্চলে গাইডেড ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় তাদের দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়। তেল রিফাত অঞ্চল থেকে ওয়াইপিজে গোষ্ঠী এই হামলা করেছে বলে তাদের বিশ্বাস। তুরস্কের একজন কর্মকর্তা বলেন, যে অঞ্চল থেকে হামলা চালানো হয়েছে বিশেষ করে তেল রিফাত এলাকা, পরিচ্ছন্ন করা প্রয়োজন। গত পাঁচ বছরে তুরস্ক এই কুর্দি বাহিনীর বিরুদ্ধে তিনটি বড় ধরনের অভিযান চালিয়ে তাদেরকে উত্তর সিরিয়ার ৩০ কিলোমিটার দূরে তাড়িয়ে দিয়েছে। সিরিয়ার এই অঞ্চলে রাশিয়ার যুদ্ধবিমান, ইরান সমর্থিত বাহিনী, তুরস্ক সমর্থিত যোদ্ধা ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র ও সিরিয়ার সেনাবাহিনী ও কুর্দি ওয়াইপিজে বাহিনী সক্রিয় রয়েছে। তুরস্কের ওই দুই কর্মকর্তা বলেন, অভিযানের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনা করা হবে। আলোচনা সফল না হলে অভিযান শুরু করা হবে। আরব নিউজ এ খবর জানায়। অপর এক খবরে বলা হয়, ইথিওপিয়া ও মরক্কোর কাছে ড্রোন বিক্রি করছে তুরস্ক। দেশ দুটির কাছে ‘যুদ্ধক্ষেত্রে কার্যকর’ হিসেবে খ্যাতি পাওয়া বায়ারাক্তার টিবি২ ড্রোন রপ্তানি করছে আঙ্কারা। চুক্তির বিষয়ে অবগত চারটি সূত্রের কথা উল্লেখ করে এ তথ্য জানিয়েছে তুরস্কের গণমাধ্যম ডেইলি সাবাহ। খবরে বলা হয়, ইথিওপিয়ায় ড্রোন রপ্তানি তুরস্ক ও মিসরের মধ্যে উত্তেজনাপূর্ণ সম্পর্ককে আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে। নীল নদের ওপর বাঁধ তৈরির কারণে আদ্দিস আবাবার সঙ্গে এমনিতেই টানাপোড়েন চলছে কায়রোর। মিসরের দুটি নিরাপত্তা সূত্র জানায়, কায়রো যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের কিছু দেশের কাছে এ ধরনের চুক্তি স্থগিত করতে সাহায্য চেয়েছে। মিসরের তৃতীয় একটি সূত্র জানায়, কায়রো এবং আঙ্কারার মধ্যে আলোচনায় যে কোনো চুক্তির বিষয় উত্থাপন করতে হবে এবং স্পষ্ট করতে হবে। কেননা উভয় দেশ সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টা করছে। তুরস্ক, ইথিওপিয়া বা মরক্কো কেউই এখনও সশস্ত্র ড্রোনসংক্রান্ত কোনো চুক্তির বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য দেয়নি। এ ছাড়া বায়ারাক্তার টিবি২ ড্রোনের প্রস্তুতকারক সংস্থাও এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। কিন্তু চুক্তি সম্পর্কে অবগত কিছু সূত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সের কাছে এ বিষয়ে তথ্য দিয়েছে। তুরস্কের এক কর্মকর্তা বলেন, ইথিওপিয়া ও মরক্কো দুই দেশই চুক্তিতে বায়ারাক্তার টিবি২ ড্রোন কেনার বিষয়ে অনুরোধ জানিয়েছে। একই সঙ্গে অতিরিক্ত যন্ত্রাংশের নিশ্চয়তা ও প্রশিক্ষণকেও এর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ক‚টনীতিক বলেন, মে মাসে অর্ডার করা সশস্ত্র ড্রোনের প্রথম চালান ইতোমধ্যে পেয়েছে মরক্কো। মরক্কোর বেশ কিছু গণমাধ্যম তুরস্ক থেকে ড্রোন পাওয়ার বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ওই ক‚টনীতিক জানান, ইথিওপিয়াও এ ড্রোন হাতে পেতে চায়। কিন্তু এ বিষয়ে তাদের অবস্থান একেবারেই অস্পষ্ট। কত ড্রোন সরবরাহের জন্য চুক্তি হয়েছে বা চুক্তির আর্থিক বিষয়াদি সম্পর্কে সূত্রগুলো কোনো তথ্য দেয়নি। ইউক্রেন, পোল্যান্ড তুরস্কের এ সশস্ত্র ড্রোন কেনার জন্য অর্ডার দিয়েছে। অফিশিয়াল তথ্যানুযায়ী, মরক্কো ও ইথিওপিয়ায় গত দুই মাসে তুরস্কের প্রতিরক্ষা ও বিমানসংক্রান্ত রপ্তানি বেড়েছে। তবে এখানে ড্রোন বিক্রির বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি। আরব নিউজ, ডেইলি সাবাহ।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন