রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বেনাপোলে পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতু হত্যা মামলার আসামি এহতেশামুল হক গ্রেফতার...

বেনাপোল অফিস থেকে স্টাফ রিপোটার | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ৫:৩২ পিএম

পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যা মামলার আসামি এহতেশামুল হককে বেনাপোল পরিবহন স্ট্যান্ড থেকে শুক্রুবার রাতে গ্রেফতার করেছে পিবিআই।
গ্রেফতারের পর বেনাপোল থেকে তাকে চট্টগ্রাম নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন মিতু হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা।

তিনি বলেন, মিতু হত্যার ঘটনায় তার বাবার দায়ের করা মামলার আসামি এহতেশামুল। তাকে শুক্রবার রাতে বেনাপোল পরিবহন স্ট্যান্ড থেকে গ্রেফতার করে চট্টগ্রামে আনা হয়েছে।
পিবিআই সূত্রে জানা গেছে, বেনাপোল দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করার সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।
গত ১৪ অক্টোবর সাবেক পুলিশের এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যা মামলার আসামি এহতেশামুল হকের জামিন নামঞ্জুর করে চট্টগ্রামের একটি আদালত। মিতু হত্যা মামলার আসামি এহতেশামুল হক উচ্চ আদালতের নির্দেশে আত্মসমর্পণ করতে সময়ের আবেদন করে।

মামলায় গত ১৫ সেপ্টেম্বর আসামি এহতেশামুল উচ্চ আদালত থেকে ৪ সপ্তাহের অন্তর্র্বতী জামিন পান। মেয়াদ শেষ হওয়ায় মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন তিনি।

উল্লেখ্য ২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে চট্টগ্রাম নগরের নিজাম রোডে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের গুলিতে খুন হন মাহমুদা খানম মিতু। ঘটনার সময় মিতুর স্বামী পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার অবস্থান করছিলেন ঢাকায়। ঘটনার পর চট্টগ্রামে ফিরে বাবুল আক্তার পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।
জঙ্গিবিরোধী কার্যক্রমের জন্য স্ত্রীকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে মামলায় অভিযোগ করেন বাবুল আক্তার। কিন্ত সন্দেহের কেন্দ্রবিন্দুতে আসে মিতুর স্বামী বাবুল আক্তারের নাম। তদন্তে তার বিরুদ্ধেই হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার সংশ্লিষ্টতা পাওয়ার পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১১ মে তাকে হেফাজতে নেয় পিবিআই।
পরে ১২ মে বাবুল আক্তারসহ আটজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। এই মামলায় আসামী করা হয় এহতেশামুল হককে।
বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি মামুন খান জানান, মিতু হত্যা মামলার আসামি এহতেশামুল হক আটকের বিষয়ে আমরা কিছু ই জানিনা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন