সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

রেলব্রিজে ঝুঁকিপূর্ণ যান চলাচল

মোজাম্মেল হক, গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) থেকে | প্রকাশের সময় : ২৭ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৫ এএম

গোয়ালন্দে ঝুঁকি নিয়ে রেলব্রিজের ওপর দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করছে ৫ গ্রামের মানুষ ও যানবাহন। যে কোন মুহূর্তে ঘটতে পারে দুর্ঘটনা।
ঝুঁকি এড়াতে গত বছর রেলব্রিজের পাশে ২১ লাখ টাকা ব্যায়ে একটি ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। কিন্তু ব্রিজটির দুপাশে ঠিকমতো সংযোগ সড়ক নির্মাণ না করায় ব্রিজটি ব্যবহার করা যাচ্ছে না।
জানা গেছে, গোয়ালন্দ বাজার ও গোয়ালন্দঘাট রেলওয়ে স্টেশনের মাঝে গোয়ালন্দ শ্মশানঘাট এলাকায় একটি রেলব্রিজ রয়েছে। সেখান দিয়ে স্থানীয় নতুনপাড়া, তোরাপ শেখেরপাড়া রেলপাড়া, শ্মশানপাড়া ও ফকিরপাড়ার লোকজনকে প্রতিনিয়ত গোয়ালন্দ বাজারে আসা-যাওয়া করতে হয় এই পথে। এছাড়া গোয়ালন্দ শহর এলাকা হতে শ্মশানে যাতায়াতের একমাত্র পথও সেটি। পাশাপাশি দৌলতদিয়া ঘাটে যানজট সৃষ্টি হলে রিকশা, অটোরিকশার মতো বহু ছোট যানবাহন দৌলতদিয়া ঘাটে যাওয়া-আসা করতে এই রাস্তাটি বিকল্প হিসেবে ব্যাবহার করে। এর গুরুত্ব বিবেচনায় গোয়ালন্দ পৌর কর্তৃপক্ষ কয়েক বছর আগে রেলের পাশ দিয়ে ২ কিলোমিটারের মতো পাকা সড়ক নির্মান করে।
শ্মশানঘাট সংলগ্ন রেল ব্রিজে ঝুঁকি এড়াতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে ২১ লাখ টাকা ব্যায়ে ২৬ ফুট দৈর্ঘ্যে একটি আরসিসি ব্রিজ নির্মাণ করে।
কিন্তু ব্রিজটির দু’পাশের সংযোগ সড়কে অল্প কিছু মাটি ফেলে সরু করে তৈরি করায় এবং গাইড ওয়াল না দেয়ায় মাটি ধ্বসে গেছে। এতে করে ব্রিজটি ঠিকমতো ব্যাবহার করা যাচ্ছে না। সেখান দিয়ে চলতে গিয়ে ঘোড়ার গাড়ি, রিকশা ও অটোরিকশা উল্টে যাওয়ার ঘটনা ঘটছে। বাধ্য হয়ে যাত্রী ও চালকরা আগের মতোই ঝুঁকি নিয়ে রেলব্রিজের পাশ দিয়ে যাতায়াত করছে।
স্থানীয় বাসিন্দা দোয়াত আলী শেখ, ঘোড়ার গাড়ি চালক সবুজ ফকিরসহ কয়েকজন জানান, নতুন ব্রিজের দুই পাশের রাস্তায় গাইড ওয়ালসহ আরো চওড়া করার দরকার ছিলো। তা না করায় এখানে প্রতিনিয়ত ছোটখাট দুর্ঘটনা ঘটছে। অটোরিকশা চালক আজাদ মোল্লা (৪০), আলম শেখ (৩৫), রিকশাচালক নজরুল ইসলাম (৫০)সহ কয়েকজন বলেন, তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়ে রেলব্রিজের পাশ দিয়েই চলাচল করছেন। সেখান থেকে হঠাৎ গাড়ি উল্টে গেলে নিচে পড়লে প্রানহাণির আশংকা রয়েছে।
গোয়ালন্দ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবু সাঈদ মন্ডল জানান, বন্যার কারণে ব্রিজটির সংযোগ সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নির্মাণের পর ব্রিজটি পৌর কর্তৃপক্ষকে বুঝিয়ে দেয়া হয়। পৌর মেয়রের সাথে আলোচনা করে সংযোগ সড়কের জরুরি সংস্কারের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন